রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পায়ে হেঁটে মাদক বিরোধী লং মার্চ

আজ মানবাধিকার সংগঠন সারডা সোসাইটি’র ২ দশক বর্ষপূর্তি উপলক্ষে, চলমান মাদক বিরোধী ক্যাম্পেইনে ফান্ড সংকট উত্তোরণে, টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পায়ে হেঁটে লং মার্চ যৌথভাবে উদ্বোধন করেন টেকনাফের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ এরফানুল হক চৌধুরী এবং সারডা সোসাইটি’র প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক, মহামান্য হাইকোর্টের ইন-পারসন হিসেবে জনস্বার্থে রিট’কারী, সিগারেটের প্যাকেটে ছবির রুপকার, মানবাধিকারকর্মী মুঃ আর মুরাদ ভূঁইয়া।
সহকারী কমিশনার উদ্বোধন শেষে বলেন, সারডা সোসাইটি’র চলমান মাদক বিরোধী কার্যক্রম বাস্তবায়নে সকলকে আর্থিকভাবে সহযোগিতার হাত সম্প্রসারিত করার জন্য।
নরসিংদীর মানবাধিকারকর্মী মুরাদ ভূঁইয়া বলেন, অল্প কয়েক বছরের জন্য আমরা পৃথিবীতে এসেছি, কত কাজ করতে হবে! বাংলাদেশ আমাকে কি দিলো সেটা না ভেবে, জন্মভূমির ঋণ শোধ করতে, জনস্বার্থে এমন কিছু ভালো কাজ করে যেতে হবে; যাতে মৃত্যুর পর বিশ্ববাসী আজীবন স্মরণ রাখে!
লং মার্চের মূল লক্ষ্য, চলমান মাদক বিরোধী ক্যাম্পেইনে ফান্ড সংকট উত্তোরণে, মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, সকল জেলা প্রশাসক (ডিসি), জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও), উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মহোদয় সহ দেশবরেণ্য ৪০ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের সৌজন্য সাক্ষাৎ।
নরসিংদীর দুইজন স্বেচ্ছাসেবী মহাসড়ক হয়ে তেঁতুলিয়া যাবেন। কক্সবাজারের টেকনাফ জিরো পয়েন্ট থেকে যাত্রা শুরু করে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া (বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্ট) শেষ হবে।
ক্যাম্পেইনের ইস্যু: এসো স্বপ্ন গাঁথি: ধূমপান, মাদক, দুর্নীতি ও ভোক্তা অধিকার ক্ষুণ্ণ বিরোধী” (মাতাপিতা হত্যাকারী মাদকাসক্ত সন্তান হবো না, কলঙ্কে দেশ ভরবো না), দেশব্যাপি বিবর্তন ক্লাসের ক্যাম্পেইন।
ক্যাম্পেইনের লক্ষ্য: আমরা বাংলাদেশে পিতা-মাতা হত্যাকারী ঐশী’র মতো মাদকাসক্ত কোন শিক্ষার্থী, কোন সন্তান দেখতে চাই না! টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া, ছুটাছুটির পথচলা।

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

হজের নিবন্ধন শুরু হবে আগামী ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে

টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পায়ে হেঁটে মাদক বিরোধী লং মার্চ

প্রকাশের সময় : ১০:০৮:৪৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২২
আজ মানবাধিকার সংগঠন সারডা সোসাইটি’র ২ দশক বর্ষপূর্তি উপলক্ষে, চলমান মাদক বিরোধী ক্যাম্পেইনে ফান্ড সংকট উত্তোরণে, টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া পায়ে হেঁটে লং মার্চ যৌথভাবে উদ্বোধন করেন টেকনাফের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোঃ এরফানুল হক চৌধুরী এবং সারডা সোসাইটি’র প্রতিষ্ঠাতা ও নির্বাহী পরিচালক, মহামান্য হাইকোর্টের ইন-পারসন হিসেবে জনস্বার্থে রিট’কারী, সিগারেটের প্যাকেটে ছবির রুপকার, মানবাধিকারকর্মী মুঃ আর মুরাদ ভূঁইয়া।
সহকারী কমিশনার উদ্বোধন শেষে বলেন, সারডা সোসাইটি’র চলমান মাদক বিরোধী কার্যক্রম বাস্তবায়নে সকলকে আর্থিকভাবে সহযোগিতার হাত সম্প্রসারিত করার জন্য।
নরসিংদীর মানবাধিকারকর্মী মুরাদ ভূঁইয়া বলেন, অল্প কয়েক বছরের জন্য আমরা পৃথিবীতে এসেছি, কত কাজ করতে হবে! বাংলাদেশ আমাকে কি দিলো সেটা না ভেবে, জন্মভূমির ঋণ শোধ করতে, জনস্বার্থে এমন কিছু ভালো কাজ করে যেতে হবে; যাতে মৃত্যুর পর বিশ্ববাসী আজীবন স্মরণ রাখে!
লং মার্চের মূল লক্ষ্য, চলমান মাদক বিরোধী ক্যাম্পেইনে ফান্ড সংকট উত্তোরণে, মহামান্য রাষ্ট্রপতি, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, সকল জেলা প্রশাসক (ডিসি), জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও), উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মহোদয় সহ দেশবরেণ্য ৪০ জন বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের সৌজন্য সাক্ষাৎ।
নরসিংদীর দুইজন স্বেচ্ছাসেবী মহাসড়ক হয়ে তেঁতুলিয়া যাবেন। কক্সবাজারের টেকনাফ জিরো পয়েন্ট থেকে যাত্রা শুরু করে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া (বাংলাবান্ধা জিরো পয়েন্ট) শেষ হবে।
ক্যাম্পেইনের ইস্যু: এসো স্বপ্ন গাঁথি: ধূমপান, মাদক, দুর্নীতি ও ভোক্তা অধিকার ক্ষুণ্ণ বিরোধী” (মাতাপিতা হত্যাকারী মাদকাসক্ত সন্তান হবো না, কলঙ্কে দেশ ভরবো না), দেশব্যাপি বিবর্তন ক্লাসের ক্যাম্পেইন।
ক্যাম্পেইনের লক্ষ্য: আমরা বাংলাদেশে পিতা-মাতা হত্যাকারী ঐশী’র মতো মাদকাসক্ত কোন শিক্ষার্থী, কোন সন্তান দেখতে চাই না! টেকনাফ থেকে তেঁতুলিয়া, ছুটাছুটির পথচলা।