রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

টেকনাফে র‌্যাবের অভিযানে দুই ডাকাত আটক

টেকনাফের পাহাড়ি এলাকা হতে অস্ত্র-গুলিসহ ও স্বশস্ত্র ডাকাত গ্রুপের নিজস্ব পোশাকসহ দু’সন্ত্রাসীকে আটক করেছে র‌্যাব-১৫।

আটকদের একজন স্থানীয় অপরজন রোহিঙ্গা, দু”জনই রোহিঙ্গা ডাকাত পুতিয়া গ্রুপের সদস্য।

আটককৃতরা হলেন টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের পূর্ব সিকদারপাড়া এলাকার মৃত ইদ্রিসের ছেলে মোহাম্মদ রমিজ (২৭) ও নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ই-ব্লকের বাসিন্দা মৃত জহিরের ছেলে মোহাম্মদ শফিক (৩০)।

বুধবার (২মার্চ) বেলা ১১ টার দিকে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল খায়রুল ইসলাম সরকার উক্ত বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এসময় তাদের কাছ থেকে ৮টি অস্ত্র, ১৮ রাউন্ড গুলি, পুতিয়া গ্রুপের নিজস্ব পোশাক উদ্ধার করা হয়।

সুত্রে জানা যায়, ১৯ ফেব্রুয়ারী রোহিঙ্গা স্বশস্ত্র ডাকা পুতিয়া গ্রæপের সদস্য খায়রুল আমিনকে আটকের পর থেকে র‌্যাব সদস্যের নজরদারী ও টহল জোরদার করে। অবশেষে বুধবার ভোরে টেকনাফের লেদা ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকা থেকে পাচারকালে অস্ত্র, গুলি ও নিজস্ব পোশাকসহ দুইজন আটক করতে সক্ষম হয়। পরে তাদের কাছে থাকা বস্তাবর্তী ৬টি একনলা বন্দুক, ১ টি থ্রি কোয়াটার গান, ১টি ওয়ান শুটারগান, ১৮ রাউন্ড তাজা গুলি-কার্তুজ ও ৫ সেট পোশাক উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করেছেন রোহিঙ্গাদের শীর্ষ ডাকাত পুতিয়া গ্রুপের সদস্য বলে জানিয়েছে র‌্যাব।তিনি আরো জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হবে।

বার্তা/এন

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

গ্রন্থাগার দিবসের প্রতিপাদ্য ‘স্মার্ট গ্রন্থাগার, স্মার্ট বাংলাদেশ : মতিয়া চৌধুরী

টেকনাফে র‌্যাবের অভিযানে দুই ডাকাত আটক

প্রকাশের সময় : ১১:০৮:৩৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ২ মার্চ ২০২২

টেকনাফের পাহাড়ি এলাকা হতে অস্ত্র-গুলিসহ ও স্বশস্ত্র ডাকাত গ্রুপের নিজস্ব পোশাকসহ দু’সন্ত্রাসীকে আটক করেছে র‌্যাব-১৫।

আটকদের একজন স্থানীয় অপরজন রোহিঙ্গা, দু”জনই রোহিঙ্গা ডাকাত পুতিয়া গ্রুপের সদস্য।

আটককৃতরা হলেন টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের পূর্ব সিকদারপাড়া এলাকার মৃত ইদ্রিসের ছেলে মোহাম্মদ রমিজ (২৭) ও নয়াপাড়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ই-ব্লকের বাসিন্দা মৃত জহিরের ছেলে মোহাম্মদ শফিক (৩০)।

বুধবার (২মার্চ) বেলা ১১ টার দিকে সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে কক্সবাজার র‌্যাব-১৫ এর অধিনায়ক লে. কর্ণেল খায়রুল ইসলাম সরকার উক্ত বিষয়টি নিশ্চিত করেন। এসময় তাদের কাছ থেকে ৮টি অস্ত্র, ১৮ রাউন্ড গুলি, পুতিয়া গ্রুপের নিজস্ব পোশাক উদ্ধার করা হয়।

সুত্রে জানা যায়, ১৯ ফেব্রুয়ারী রোহিঙ্গা স্বশস্ত্র ডাকা পুতিয়া গ্রæপের সদস্য খায়রুল আমিনকে আটকের পর থেকে র‌্যাব সদস্যের নজরদারী ও টহল জোরদার করে। অবশেষে বুধবার ভোরে টেকনাফের লেদা ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকা থেকে পাচারকালে অস্ত্র, গুলি ও নিজস্ব পোশাকসহ দুইজন আটক করতে সক্ষম হয়। পরে তাদের কাছে থাকা বস্তাবর্তী ৬টি একনলা বন্দুক, ১ টি থ্রি কোয়াটার গান, ১টি ওয়ান শুটারগান, ১৮ রাউন্ড তাজা গুলি-কার্তুজ ও ৫ সেট পোশাক উদ্ধার করা হয়।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তারা স্বীকার করেছেন রোহিঙ্গাদের শীর্ষ ডাকাত পুতিয়া গ্রুপের সদস্য বলে জানিয়েছে র‌্যাব।তিনি আরো জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের পর টেকনাফ থানায় হস্তান্তর করা হবে।

বার্তা/এন