রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

বেনাপোলে বন্দর শ্রমিকদের ওপর দুর্বৃওদের মুহুমুহ বোমা হামলা, আহত ২০

বেনাপোল বন্দর দখল নিতে বহিরাগত দুর্বৃওদের মুহুমুহ বোমা হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন পথচারী সহ বন্দরের ২০ শ্রমিক। ফলে বšদর দিয়ে দু’ দেশের মধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে আমদানি রপ্তানী বানিজ্য সহ পণ্য খালাশ প্রক্রিয়া।
আজ সোমবার (২৮ মার্চ) সকালে কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই একদল দুর্বৃও বন্দরের হ্যান্ডলিং কার্যক্রম দখলে নিতে শ্রমিক সংগঠনের অফিসের সামনে মুহুমুহু বোমা হামলা শুরু করে। বোমার আতংকে বন্দরের সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। কর্মরত শ্রমিকরা প্রাণ বাচাতে এদিক ওদিক ছোটা ছুটি করতে থাকে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বন্দরে সব ধরনের মালামাল ওঠা নামা সহ পন্য খালাশ কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।
সকাল থেকে এ পর্যন্ত অর্ধ শতাধিক বোমার বিস্ফোরন ঘটে। গুরুতর আহত ইমরান হোসেনকে আশংকাজনক অবস্থায় স্থানীয় হামপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
দীর্ঘদিন ধরে বন্দরে হ্যান্ডলিং শ্রমিকের ঠিকাদারি কাজ দখল নিতে দুটি গ্রুপ মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে।

বন্দর হ্যান্ডলিং শ্রমিক ঠিকাদার অহিদুজ্জামান অহিদ জানান, সকালে প্রতিদিনের ন্যায় শ্রমিকরা কাজে যোগদান করেন। কোন কিছু বোঝার আগেই বহিরাগত একদল শ্রমিক বন্দরের সামনে অর্ধ শতাধিক বোমার বিস্ফোরণ ঘটায় ফলে বন্দরে সব ধরনের কাজ কর্ম বন্ধ হয়ে যায়। রাশেদ বাহিনীর লোকজন বন্দরে এধরনের বোমা হামলা করেছে।

নাভারন পুলিশের “ক” সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান জানান, বোমা হামলার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনা স্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। তবে তদন্তে জানা গেছে রাশেদ কাউন্সিলর এর নেতৃত্বে বন্দরে বোমা হামলা করা হয়েছে। আমারা ৩জনকে আটক করেছি।

 

বার্তা/এন

বেনাপোলে বন্দর শ্রমিকদের ওপর দুর্বৃওদের মুহুমুহ বোমা হামলা, আহত ২০

প্রকাশের সময় : ০৩:৪১:৩৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৮ মার্চ ২০২২

বেনাপোল বন্দর দখল নিতে বহিরাগত দুর্বৃওদের মুহুমুহ বোমা হামলায় গুরুতর আহত হয়েছেন পথচারী সহ বন্দরের ২০ শ্রমিক। ফলে বšদর দিয়ে দু’ দেশের মধ্যে বন্ধ হয়ে গেছে আমদানি রপ্তানী বানিজ্য সহ পণ্য খালাশ প্রক্রিয়া।
আজ সোমবার (২৮ মার্চ) সকালে কোন কিছু বুঝে ওঠার আগেই একদল দুর্বৃও বন্দরের হ্যান্ডলিং কার্যক্রম দখলে নিতে শ্রমিক সংগঠনের অফিসের সামনে মুহুমুহু বোমা হামলা শুরু করে। বোমার আতংকে বন্দরের সব ধরনের কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যায়। কর্মরত শ্রমিকরা প্রাণ বাচাতে এদিক ওদিক ছোটা ছুটি করতে থাকে। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত বন্দরে সব ধরনের মালামাল ওঠা নামা সহ পন্য খালাশ কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে।
সকাল থেকে এ পর্যন্ত অর্ধ শতাধিক বোমার বিস্ফোরন ঘটে। গুরুতর আহত ইমরান হোসেনকে আশংকাজনক অবস্থায় স্থানীয় হামপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
দীর্ঘদিন ধরে বন্দরে হ্যান্ডলিং শ্রমিকের ঠিকাদারি কাজ দখল নিতে দুটি গ্রুপ মুখোমুখি অবস্থানে রয়েছে।

বন্দর হ্যান্ডলিং শ্রমিক ঠিকাদার অহিদুজ্জামান অহিদ জানান, সকালে প্রতিদিনের ন্যায় শ্রমিকরা কাজে যোগদান করেন। কোন কিছু বোঝার আগেই বহিরাগত একদল শ্রমিক বন্দরের সামনে অর্ধ শতাধিক বোমার বিস্ফোরণ ঘটায় ফলে বন্দরে সব ধরনের কাজ কর্ম বন্ধ হয়ে যায়। রাশেদ বাহিনীর লোকজন বন্দরে এধরনের বোমা হামলা করেছে।

নাভারন পুলিশের “ক” সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার জুয়েল ইমরান জানান, বোমা হামলার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনা স্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে সক্ষম হয়। তবে তদন্তে জানা গেছে রাশেদ কাউন্সিলর এর নেতৃত্বে বন্দরে বোমা হামলা করা হয়েছে। আমারা ৩জনকে আটক করেছি।

 

বার্তা/এন