Barta Kontho
নিবন্ধন নম্বর: ৪৬১রবিবার , ১৭ এপ্রিল ২০২২
  1. 1st Lead
  2. 2nd Lead
  3. অপরাধ
  4. আইটি বিশ্ব
  5. আইন ও আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. খেলাধুলা
  10. চাকুরি
  11. ছবি ঘর
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. ট্রাভেল
  15. নির্বাচন

কাঁচা আমের কত গুণ!

বার্তাকণ্ঠ ডেস্ক
এপ্রিল ১৭, ২০২২ ৫:৪১ অপরাহ্ণ
Link Copied!

তীব্র রোদের আঁচ। সঙ্গে গা পোড়ানো গরম। এ সময় কাঁচা আমের এক গ্লাস শরবত সারা শরীরে এনে দিতে পারে প্রশান্তি। বাজারে এখন কাঁচা আম পাওয়া যাচ্ছে। মৌসুমি এ ফলটি কম-বেশি সবারই পছন্দের। ডাল থেকে শুরু করে আচার- অনেকভাবেই আম খাওয়া হয়। কেউবা কাসুন্দি মেখে কাঁচা আমের ভর্তা খেতে ভালোবাসেন। কেবল স্বাদ নয়, স্বাস্থ্যের জন্যও ফলটি বেশ উপকারি। চলুন জেনে নেওয়া যাক কাঁচা আমের উপকারিতা—

গরমে ক্লান্তি কমায়

প্রখর রোদের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে শরীরকে রক্ষা করে কাঁচা আম। সান স্ট্রোকের ঝুঁকি কমায় এটি। দেহের সোডিয়াম ক্লোরাইড ও আয়রনের ঘাটতি পূরণেও কাজ করে কাঁচা আম।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়

কাঁচা আমে রয়েছে ভিটামিন সি, ই এবং একাধিক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। এই উপাদানগুলো শ্বেত রক্তকণিকার কার্যকারিতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। ফলে বাড়ে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা।

চোখের স্বাস্থ্য ভালো রাখে

কাঁচা আমে থাকে লুটেইন ও জিয়াজ্যান্থিন নামক অ্যান্টি অক্সিডেন্ট। এই উপাদান চোখের স্বাস্থ্য রক্ষায় উপকারি। এছাড়া, কাঁচা আমে থাকে ভিটামিন ‘এ’। চোখের স্বাস্থ্য রক্ষায় যা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

মুখের সমস্যা কমায়

কাঁচা আমে প্রচুর ভিটামিন ‘সি’ রয়েছে। মুখের নানা ক্ষত সারাতে এটি সাহায্য করে। স্কার্ভি, মাড়ি থেকে রক্তপাতের মতো মুখের সমস্যা সমাধানে উপকারি ভূমিকা রাখে কাঁচা আম।

পেটের সমস্যা কমায়

অ্যাসিডিটি, কোষ্ঠকাঠিন্য, বদ হজম ইত্যাদি সমস্যা কমাতে সাহায্য করে কাঁচা আম। এটি খাদ্যনালীতে বিভিন্ন পাচক উৎসেচকের ক্ষরণ বৃদ্ধি করে। গ্রাম বাংলায় অ্যাসিডিটির সমস্যা কমাতে কাঁচা আম চিবিয়ে খাওয়ার প্রচলন রয়েছে।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।