Barta Kontho
নিবন্ধন নম্বর: ৪৬১রবিবার , ২৪ এপ্রিল ২০২২
  1. 1st Lead
  2. 2nd Lead
  3. অপরাধ
  4. আইটি বিশ্ব
  5. আইন ও আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. খেলাধুলা
  10. চাকুরি
  11. ছবি ঘর
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. ট্রাভেল
  15. নির্বাচন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

মুজিববর্ষে শেখ হাসিনার উপহার, ঘর পাচ্ছে আরও ৫৪০ পরিবার

কামাল উদ্দিন টগর, নওগাঁ প্রতিনিধি
এপ্রিল ২৪, ২০২২ ৮:৪৭ অপরাহ্ণ
Link Copied!

মুজিববর্ষে “বাংলাদেশের একজন মানুষও গৃহহীন খাকবেনা ” প্রধানমন্ত্রীর এ নির্দেশনা বাস্তবায়নে দেশের সকল ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে জমি ও গৃহ প্রদান কার্যক্রমের অংশ হিসেবে কর্মসূচীর তৃতীয পর্যায়ে নওগাঁ জেলায় ৬১০টি পরিবারের অনুকুলে গৃহ নির্মানের বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বরাদ্দকৃত গৃহ নির্মানের আওতায় ইতিমধ্যে আরও ৫৪০টি গৃহ নির্মান সম্পন্ন হয়েছে। বাঁকী ৭০টি’র নির্মান কাজ চলছে।

রবিবার সকাল সাড়ে ১০টায় নওগাঁ’র জেলা প্রশাসক খালিদ মেহেদী হাসান তাঁর সভাকক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এই তথ্য প্রদান করেছেন। তিনি বলেছেন তৃতীয় পর্যায়ে আরও মজবুত ভিত্তি ও আরও গুনগত মানসম্পন্ন বাড়ি নির্মান করা হয়েছে। প্রতিটি বাড়ির নির্মান বাবদ ১ লাখ ৭১ হাজার টাকা থেকে বৃদ্ধি করে এই পর্যায়ে ২ লাখ ৫৯ হাজার করা হয়েছে। তিনি আরও জানান মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামী ২৬ এপ্রিল সারাদেশে একযোগে তৃতীয় পর্যায়ের জমির দলিল ও নির্মানকৃত গৃহসমূহের চাবি প্রদান কর্মসূচীর উদ্বোধন করবেন।

জেলা প্রশাসক জানিয়েছেন ঐ দিন নওগাঁ জেলার মোট ৫৪০টি গৃহের জমির দলিল এবং চাবি হস্তান্তর করা হবে। এর মধ্যে ধামইরহাট উপজেলায় ৪২টি, নওগাঁ সদর উপজেলায় ৬০টি, আত্রাই উপজেলায় ৩২টি, বদলগাছি উপজেলায় ৪৬টি, রানীনগর উপজেলায় ৪১টি, পতœীতলা উপজেলায় ৮১টি, মান্দা উপজেলায় ৫২টি, মহাদেবপুর উপজেলায় ৫২টি, নিয়ামতপুর উপজেলায় ৫৫টি, পোরশা উপজেলায় ৩৪টি এবং সাপাহার উপজেলায় ৪৫টি। জেলা প্রশাসক জানান মুজিববর্ষে পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর উপলক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রীর ঈদ উপহার হিসেবে এই পর্যায়ে এসব ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মধ্যে জমিসহ গৃহ নির্মান করে দেয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য এই কার্যক্রমের আওতায় নওগাঁ জেলায় প্রথম পর্যায়ে ১০৫৬টি এবং দ্বিতীয় পর্যায়ে ৫০২টিসহ মোট ১৫৫৮টি ভুমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে।

 

 

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।