Barta Kontho
নিবন্ধন নম্বর: ৪৬১বুধবার , ২৭ এপ্রিল ২০২২
  1. 1st Lead
  2. 2nd Lead
  3. অপরাধ
  4. আইটি বিশ্ব
  5. আইন ও আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. খেলাধুলা
  10. চাকুরি
  11. ছবি ঘর
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. ট্রাভেল
  15. নির্বাচন
আজকের সর্বশেষ সবখবর

নির্ভীকভাবে সত্য উচ্চারন করতেন মাহফুজ উল্লাহ

ঢাকা ব্যুরো
এপ্রিল ২৭, ২০২২ ৯:০৫ অপরাহ্ণ
Link Copied!

অন্যের মতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থেকে নির্ভীকভাবে সত্য উচ্চারন করতে কুন্ঠিত হতে না বরেণ্য সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ মন্তব্য করে বক্তারা বলেন, আর এ কারণেই সাহসিকতার জন্য তিনি প্রেরণার উৎস হয়ে থাকবেন। পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি হিসেবে মাহফুজ উল্লাহ সাংবাদিকতা ও লেখনীর মাধ্যমে আমাদের মাঝে বেঁচে থাকবেন।

বুধবার (২৭ এপ্রিল) নয়াপল্টনের যাদু মিয়া মিলনায়তনে প্রখ্যাত সাংবাদিক, লেখক ও বুদ্ধিজীবী মাহফুজ উল্লাহ’র ৩য় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে মাহফুজ উল্লাহ স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত তিনি দিন ব্যাপী কর্মসূচীর প্রথম দিন কোরআন খানি, দোয়া ও ইফতার মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন।

মাহফুজ উল্লাহ স্মৃতি পরিষদ সভাপতি মুহম্মদ ওয়ালিদ সিদ্দিকী তালুকদারের সভাপতিত্বে আলোচনায় অংশগ্রহন করেন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টি-বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক বিশিষ্ট সাংবাদিক আফজাল বারী, ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টি-এনডিপি মহাসচিব মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, আরট ফাউন্ডেশনের সভাপতি আবদুর রহমান তপন প্রমুখ।

বাংলাদেশ ন্যাপ মহাসচিব এম. গোলাম মোস্তফা ভুইয়া বলেন, মাহফুজ উল্লাহ থাকলে আমাদের সাহস দিতে পারতেন। গণতন্ত্রের যাত্রাপথে যে অভিযান সে অভিযানকে শক্তিশালী করতে পারতেন। বিজ্ঞানের ছাত্র হিসেবে পরিবেশ সাংবাদিকতায় তিনি দেশে পথিকৃৎ ছিলেন। তিনি যে লেখা লিখে গেছেন তার মধ্যেই বেঁচে থাকবেন।

তিনি আরো বলেন, মৃত্যুর পরেও মাহফুজ উল্লাহ প্রেরণার উৎস হয়ে আছেন। উনি ঝুঁকি নিয়েছিলেন, সাহসকিতার পরিচয় দিয়েছিলেন। উচিত কথা বলতেন। তরুণ সমাজের ওনার সম্পর্কে জানা দরকার। ভিন্ন মত বা বিতর্ক হলেও তিনি সবার সঙ্গে যে আচরণ করতেন তা উদাহরণ হয়ে থাকবে। মাহফুজ উল্লাহ হেসে কঠিন কথা বলতেন।

আফজাল বারী বলেন, মেরুদণ্ড সোজা করে হাঁটবার মতো সাংবাদিক যখন খুবই কম তখন সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ ছিলেন আমাদের অনুপ্রেরনার উৎস। আজ যখন সাংবাদিকদের অধিকার ও মর্যাদা হরনের চেষ্টা চলছে তখন মাহফুজ উল্লাহর প্রয়োজনীয়তা উপলব্ধি হচ্ছে।

মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা বলেন, মাহফুজ উল্লাহ সত্যকে সত্য বলতে কখনো সে দ্বিধা করেনি। ছাত্র জীবন থেকেই অত্যন্ত সমাজ সচেতন। আজকের এই কঠিন সময়, যখন গণতন্ত্রবিহীন রাষ্ট্র, অধিকারবিহীন রাষ্ট্র, যখন এখানে রাজনীতির চিহ্নমাত্র নেই তখন মাহফুজ উল্লাহ সত্য কথা নির্ভীকভাবে বলার মাধ্যমে আমাদের জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করেছেন। হতাশ না হয়ে অনুপ্রেরণা দিতেন তিনি।

সভাপতির বক্তব্যে মুহম্মদ ওয়ালিদ সিদ্দিকী তালুকদার বলেন, মাহফুজ উল্লাহ সাহসী সাংবাদিক ছিলেন। তাঁর পরিবেশ সাংবাদিকতা আমাদের পরিবেশ সম্পর্কে বুঝতে সহায়তা করেছে। সৎ সাংবাদিকতা, সাহসের সঙ্গে কথা বলা তাঁর গুনের অংশ। লেখা ও কাজের মধ্য তিনি বেঁচে থাকবেন।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।