Barta Kontho
নিবন্ধন নম্বর: ৪৬১বৃহস্পতিবার , ১২ মে ২০২২
  1. 1st Lead
  2. 2nd Lead
  3. অপরাধ
  4. আইটি বিশ্ব
  5. আইন ও আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. খেলাধুলা
  10. চাকুরি
  11. ছবি ঘর
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. ট্রাভেল
  15. নির্বাচন

ভক্তদের নিজের প্রস্রাব খাওয়াতেন ভণ্ড বাবা

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
মে ১২, ২০২২ ১:৫০ অপরাহ্ণ
Link Copied!

মানসিক প্রশান্তি অথবা ব্যক্তিগত বা পারিবারিক বা পেশাগত যেকোনো সমস্যার জন্য অনেকেই কথিত সিদ্ধ পুরুষ বা সাধুদের শরণাপন্ন হন। বেশিরভাগ সাধু বা বাবা প্রতারক হয়ে থাকেন। এবার থাইল্যান্ডে এমনই এক ভণ্ড সাধু পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয়েছেন। তিনি তার ভক্তদের নিজের প্রস্রাব খাওয়াতেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

হরহামেশাই ভণ্ড সাধুদের নানা প্রতারণার কথা সামনে আসে। তবে থাইল্যান্ডে গ্রেপ্তারকৃত ৭৫ বছর বয়সী থাইয়ে নানরা যেকোনো ভণ্ডামি ছাড়িয়ে গেছেন। তিনি নিজেকে সব ধর্মের সেরা গুরু বলে পরিচয় দিতেন। দেশের অনেকেই এই আশ্রম সম্পর্কে ইতিবাচক কথা জানেন। এ আশ্রমের ভক্ত সংখ্যাও অনেক বেশি। কিন্তু আসলে এখানে যা হত তা জানার পর সবাই চমকে গিয়েছেন।

আশ্রমের এক ব্যক্তি গোপনে পুলিশকে ওই ভণ্ড সাধুর সব অপকর্মের কথা জানান। তার পরেই সেখানে হানা দিয়ে অবাক হয়ে যায় পুলিশ।

পুলিশ জানায়, ওই ভণ্ড সাধু সবাইকে নিজের প্রস্রাব খাওয়াতেন। এমনকি অনেককে নিজের থুতু ও মল খেতেও বাধ্য করতেন। সে নিজেকে সিদ্ধ পুরুষ বলে দাবি করেন। তার দাবি, তার মল, মূত্র, থুতুতে সব রোগ সেরে যায়। অনেক মানুষকে না জানিয়েও নিজের প্রস্রাব খাইয়েছেন ওই ভণ্ড সাধু।

পুলিশ আরো জানায়, আশ্রম থেতে তারা ১১টি মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। তাদেরকে খুন করে আশ্রমেই পুঁতে রেখেছিলেন থাইয়ে নানরা।

আশ্রমে যাতায়াত করতেন এমন এক নারী জানান, থাইয়ে নানরা তার প্রস্রাব খাওয়ার জন্য জোর করতেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক যুবক জানান, তার মা ওই সাধু ভক্ত ছিলেন। তার মা ওই আশ্রমে বাবার কাছে গেলে, মাকে আটকে রাখা হতো। তার মাকে নির্যাতন করা হতো।

সম্প্রতি পুলিশ থাইয়ে নানরা ও তার দলের অন্যান্য সদস্যদের গ্রেপ্তার করেছে। একইসাথে আশ্রম থেকে বন্দি থাকা অনেক মানুষকে উদ্ধার করা করেছে।

সূত্র: মিরর ইউকে, নিউজ ১৮

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।