Barta Kontho
নিবন্ধন নম্বর: ৪৬১বুধবার , ১ জুন ২০২২
  1. 1st Lead
  2. 2nd Lead
  3. অপরাধ
  4. আইটি বিশ্ব
  5. আইন ও আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. খেলাধুলা
  10. চাকুরি
  11. ছবি ঘর
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. ট্রাভেল
  15. নির্বাচন

ইউক্রেনকে মিসাইল দিতে রাজি বাইডেন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
জুন ১, ২০২২ ১২:১৪ অপরাহ্ণ
Link Copied!

রুশ লক্ষ্যবস্তুতে নির্ভুলতার সঙ্গে আঘাত হানতে সক্ষম, ইউক্রেনকে এমন উন্নত প্রযুক্তির ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা সরবরাহ করতে সম্মত হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানায়, ৭০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলারের সামরিক সহায়তা প্যাকেজের অংশ হিসেবে ইউক্রেনে দূরপাল্লার মিসাইল ব্যবস্থা পাঠাবে ওয়াশিংটন। বুধবার (১ জুন) নতুন এ প্যাকেজ উন্মোচন করা হতে পারে।

মার্কিন প্রশাসনের সিনিয়র কর্মকর্তারা বলছেন, রাশিয়ার অভ্যন্তরে হামলার জন্য ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার না করার ‘আশ্বাস’ দিয়েছে কিয়েভ। এ আশ্বাসের পরই মূলত ইউক্রেনকে উচ্চ গতিশীল আর্টিলারি রকেট সিস্টেম সরবরাহ করছে যুক্তরাষ্ট্র, যা ৮০ কিলোমিটার (৫০ মাইল) দূরের লক্ষ্যবস্তুতে নির্ভুলভাবে আঘাত হানতে সক্ষম।

স্থানীয় সময় মঙ্গলবার (৩১ মে) মার্কিন সংবাদ মাধ্যম নিউইয়র্ক টাইমসে প্রকাশিত কলামে জো বাইডেন লেখেন, ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন কূটনীতির মাধ্যমেই শেষ হবে। কিন্তু ইউক্রেনকে আলোচনার টেবিলে সর্বোচ্চ সুবিধা দিতে যুক্তরাষ্ট্রকে অবশ্যই উল্লেখযোগ্য অস্ত্র ও গোলাবারুদ সরবরাহ করতে হবে।

বাইডেন আরও লেখেন, এ কারণেই আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি যে আমরা ইউক্রেনীয়দের আরও উন্নত ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা এবং যুদ্ধাস্ত্র সরবরাহ করব, যা যুদ্ধক্ষেত্রে ইউক্রেনের জন্য আরও বেশি সহায়ক হবে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারি রাশিয়ার বিশেষ সামরিক অভিযান শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ইউক্রেনকে কয়েক বিলিয়ন ডলারের সামরিক সহায়তা পাঠিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

তবে রাশিয়াকে মোকাবিলায় যুক্তরাষ্ট্র এবং অন্যান্য পশ্চিমা দেশগুলোর কাছ থেকে আরও বেশি সহায়তা চেয়ে আসছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কিসহ দেশটির শীর্ষ কর্মকর্তারা।

গেল এপ্রিলে সংবাদ সম্মেলনে জেলেনস্কি বলেন, আমরা বুলেটপ্রুফ ভেস্ট বা বিশেষ হেলমেট চাই না। আমাদের ক্ষেপণাস্ত্র দিন, যুদ্ধবিমান দিন। এফ-১৮ বা এফ-১০ মডেলের আধুনিক যুদ্ধবিমান দিতে না পারলেও আমাদের পুরোনো সোভিয়েত বিমান দিন; যা দিয়ে আমি আমার দেশকে রক্ষা করতে পারি।

যুক্তরাষ্ট্র ইউক্রেনের চাহিদা অনুযায়ী ‘এমএলআরএস’ বা ‘হিমার্স’-এর মতো দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থা সরবরাহ করবে কিনা তা এখন পর্যন্ত নিশ্চিত করেনি যুক্তরাষ্ট্র। তবে পেন্টাগনের মুখপাত্র জন কিরবি শুক্রবার (২৭ মে) সাংবাদিকদের বলেন, পরবর্তী প্যাকেজটি কেমন হবে তা নিয়ে আমরা এখনও কাজ করছি। এ বিষয়ে চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। যদিও আমরা ইউক্রেনের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ রাখছি।

ইউক্রেনকে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন এ সহায়তার ঘোষণায় এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেনি মস্কো। তবে ওয়াশিংটন এমন পদক্ষেপ নিলে রাশিয়া হামলা আরও জোরদার করতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।