শনিবার, ০১ এপ্রিল ২০২৩, ১৮ চৈত্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঝগড়া মিটাতে গিয়ে নাতির লাঠির আঘাতে দাদার মৃত্যু, গ্রেপ্তার ১

জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে দুই সহোদরের ঝগড়া মিটাতে গিয়ে নাতির লাঠির আঘাতে  দাদা (রিয়াজ উদ্দিন) এর মৃত্যু হয়েছে।
নিহত রিয়াজ উদ্দিন (৫৮) ক্ষেতলাল পৌর এলাকার পাইকপাড়া গ্রামের ফয়েজ উদ্দিনের ছেলে।
বৃহস্পতিবার  (২জুন) রাত ৩টার চিকিৎসাধীন অবস্থায় শজিমেক হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।
ঘটনা সূত্রে জানা গেছে, গত ৩০মে  ক্ষেতলাল পৌর এলাকার পাইকপাড়া গ্রামের নেজাম উদ্দিনের ছেলে সাজু (৪০) ও বাবু (৩৮)  দুই ভাইয়ের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনা কে কেন্দ্র করে পারিবারিক ঝগড়ার সৃষ্টি হলে চাচা রিয়াজ উদ্দিন মিটানোর জন্য এগিয়ে যায়। এমন সময় (রিয়াজ উদ্দিনের  ভাতিজা) বাবুর ছেলে দেলোয়ার হোসেন দিপু(১৯)  ক্ষিপ্ত হয়ে  দাদা রিয়াজ উদ্দিনের   মাথায়  লাঠি দিয়ে আঘাত করলে সে গুরুত্বর আহত হয়।
পরে প্রতিবেশিরা আহত  রিয়াজ উদ্দিনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য জয়পুরহাট আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করান। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত বৃহস্পতিবার রাতে তার মৃত্যু হয়। এবিষয়ে নিহতের স্ত্রী রাশেদা বেগম (৫৪) চার জনকে আসামী করে ক্ষেতলাল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। আসামীরা হলেন, একই গ্রামের নেজাম উদ্দিনের ছেলে বাবু ও তার স্ত্রী দেলোয়ারা এবং বাবুর দুই ছেলে দেলোয়ার হোসেন দিপু ও তপু।
ক্ষেতলাল থানার ওসি রওশন ইয়াজদানী বলেন, এ বিষয়ে নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। আসামীদের মধ্যে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাঁকী  পলাতক তিন আসামীকেও গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।
জনপ্রিয়

ঝগড়া মিটাতে গিয়ে নাতির লাঠির আঘাতে দাদার মৃত্যু, গ্রেপ্তার ১

প্রকাশের সময় : ০৬:৩১:৩২ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ জুন ২০২২
জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে দুই সহোদরের ঝগড়া মিটাতে গিয়ে নাতির লাঠির আঘাতে  দাদা (রিয়াজ উদ্দিন) এর মৃত্যু হয়েছে।
নিহত রিয়াজ উদ্দিন (৫৮) ক্ষেতলাল পৌর এলাকার পাইকপাড়া গ্রামের ফয়েজ উদ্দিনের ছেলে।
বৃহস্পতিবার  (২জুন) রাত ৩টার চিকিৎসাধীন অবস্থায় শজিমেক হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়।
ঘটনা সূত্রে জানা গেছে, গত ৩০মে  ক্ষেতলাল পৌর এলাকার পাইকপাড়া গ্রামের নেজাম উদ্দিনের ছেলে সাজু (৪০) ও বাবু (৩৮)  দুই ভাইয়ের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনা কে কেন্দ্র করে পারিবারিক ঝগড়ার সৃষ্টি হলে চাচা রিয়াজ উদ্দিন মিটানোর জন্য এগিয়ে যায়। এমন সময় (রিয়াজ উদ্দিনের  ভাতিজা) বাবুর ছেলে দেলোয়ার হোসেন দিপু(১৯)  ক্ষিপ্ত হয়ে  দাদা রিয়াজ উদ্দিনের   মাথায়  লাঠি দিয়ে আঘাত করলে সে গুরুত্বর আহত হয়।
পরে প্রতিবেশিরা আহত  রিয়াজ উদ্দিনকে উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য জয়পুরহাট আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি করান। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে বগুড়া শজিমেক হাসপাতালে স্থানান্তর করে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত বৃহস্পতিবার রাতে তার মৃত্যু হয়। এবিষয়ে নিহতের স্ত্রী রাশেদা বেগম (৫৪) চার জনকে আসামী করে ক্ষেতলাল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেছে। আসামীরা হলেন, একই গ্রামের নেজাম উদ্দিনের ছেলে বাবু ও তার স্ত্রী দেলোয়ারা এবং বাবুর দুই ছেলে দেলোয়ার হোসেন দিপু ও তপু।
ক্ষেতলাল থানার ওসি রওশন ইয়াজদানী বলেন, এ বিষয়ে নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। নিহতের লাশ ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। আসামীদের মধ্যে একজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। বাঁকী  পলাতক তিন আসামীকেও গ্রেপ্তারের জন্য অভিযান অব্যাহত রয়েছে।