রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৩ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঝিকরগাছা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষের অশ্লীল মন্তব্য, ফেসবুকে নিন্দার ঝড়

যশোর জেলার ঝিকরগাছা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষের ফেসবুকে করা অশ্লীল মন্তব্য নিয়ে চারিদিকে বইছে নিন্দার ঝড়। সবার একই প্রশ্ন, একজন ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সবার জন্য উন্মুক্ত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিভাবে এধরণের অশ্লীল মন্তব্য করতে পারেন? ঘটনার বিবরণে জানা যায়, সম্প্রতি পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের দুজন রাজনীতিক মসুলমানদের প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তি করায় সারা পৃথিবীর মত বাংলাদেশেও নিন্দা এবং প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। বিভিন্ন শ্রেনি পেশার মানুষ তাদের জায়গা থেকে এর নিন্দা জানান। সবচেয়ে বেশি ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। এরই ধারাবাহিকতায় নাহিদ হাসান নামে একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী তার নিজের আইডিতে উক্ত ঘটনার নিন্দা জানিয়ে একটি পোস্ট করেন। সেই পোস্টে ঝিকরগাছা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ শাহানুর কবির এই পোস্ট না করে নাহিদকে হাসানকে চেপে যেতে বলেন। তখন নাহিদ হাসান হাদীস কোরআনের ব্যাখ্যা দিলে অধ্যক্ষ শাহানুর কবির অত্যান্ত অশ্লীল ভাষায় (যেটি প্রকাশ যোগ্য নয়) গালি দেন। সেই মন্তব্য সহ একটি স্ক্রিনশট নাহিদ হাসান তার আইডিতে শেয়ার করলে চারিদিকে নিন্দার ঝড় ওঠে। নাহিদ হাসানের সেই স্ক্রিনশট অনেকেই নিজের আইডিতে শেয়ার করে ইসলাম বিদ্বেষী এই অধ্যক্ষের শাস্তি দাবি করেন।
সবার একটাই প্রশ্ন, ডিগ্রি পর্যায়ের প্রতিষ্ঠান মহিলা কলেজের একজন অধ্যক্ষ কিভাবে এধরণের ভাষায় মন্তব্য করতে পারেন? অনেকে তার মস্তিষ্কের সুস্থতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন।

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

জাপার চেয়ারম্যান হিসেবে জি এম কাদেরের দায়িত্ব পালনে বাধা নেই

ঝিকরগাছা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষের অশ্লীল মন্তব্য, ফেসবুকে নিন্দার ঝড়

প্রকাশের সময় : ১০:৪০:০৮ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ জুন ২০২২
যশোর জেলার ঝিকরগাছা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষের ফেসবুকে করা অশ্লীল মন্তব্য নিয়ে চারিদিকে বইছে নিন্দার ঝড়। সবার একই প্রশ্ন, একজন ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সবার জন্য উন্মুক্ত সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কিভাবে এধরণের অশ্লীল মন্তব্য করতে পারেন? ঘটনার বিবরণে জানা যায়, সম্প্রতি পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের দুজন রাজনীতিক মসুলমানদের প্রিয় নবী হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) কে নিয়ে কটুক্তি করায় সারা পৃথিবীর মত বাংলাদেশেও নিন্দা এবং প্রতিবাদের ঝড় ওঠে। বিভিন্ন শ্রেনি পেশার মানুষ তাদের জায়গা থেকে এর নিন্দা জানান। সবচেয়ে বেশি ঝড় ওঠে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে। এরই ধারাবাহিকতায় নাহিদ হাসান নামে একজন ফেসবুক ব্যবহারকারী তার নিজের আইডিতে উক্ত ঘটনার নিন্দা জানিয়ে একটি পোস্ট করেন। সেই পোস্টে ঝিকরগাছা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ শাহানুর কবির এই পোস্ট না করে নাহিদকে হাসানকে চেপে যেতে বলেন। তখন নাহিদ হাসান হাদীস কোরআনের ব্যাখ্যা দিলে অধ্যক্ষ শাহানুর কবির অত্যান্ত অশ্লীল ভাষায় (যেটি প্রকাশ যোগ্য নয়) গালি দেন। সেই মন্তব্য সহ একটি স্ক্রিনশট নাহিদ হাসান তার আইডিতে শেয়ার করলে চারিদিকে নিন্দার ঝড় ওঠে। নাহিদ হাসানের সেই স্ক্রিনশট অনেকেই নিজের আইডিতে শেয়ার করে ইসলাম বিদ্বেষী এই অধ্যক্ষের শাস্তি দাবি করেন।
সবার একটাই প্রশ্ন, ডিগ্রি পর্যায়ের প্রতিষ্ঠান মহিলা কলেজের একজন অধ্যক্ষ কিভাবে এধরণের ভাষায় মন্তব্য করতে পারেন? অনেকে তার মস্তিষ্কের সুস্থতা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন।