Barta Kontho
নিবন্ধন নম্বর: ৪৬১বুধবার , ৩ আগস্ট ২০২২
  1. 1st Lead
  2. 2nd Lead
  3. অপরাধ
  4. আইটি বিশ্ব
  5. আইন ও আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. খেলাধুলা
  10. চাকুরি
  11. ছবি ঘর
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. ট্রাভেল
  15. নির্বাচন

মাদকের মালিক ইউপি সদস্য, পাচারকালে যুবক গ্রেপ্তার

Link Copied!

লালমনিরহাটের হাতীবান্ধায় ৪৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ সুদান চন্দ্র রায় (৩২) নামের এক যুবককে গ্রেপ্তার করেছে বিজিবি। এ সময় তার কাছ থেকে একটি আরটিআর টিভিএস এ্যাপাসি মোটরসাইকেল জব্দ করা হয়।

মঙ্গলবার (২ আগস্ট) দুপুরে আটক সুদানকে হাতীবান্ধা থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করেছেন বিজিবি। এ ঘটনায় গ্রেপ্তারকৃত সুদান, ইউপি সদস্য সুজন ও লিমনসহ তিনজনের নামে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে বিজিবি।

এর আগে সোমবার (১ আগস্ট) রাতে উপজেলার ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের জাওরানী বাজার এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করেন জাওরানী বিজিবি ক্যাম্পের টহলদল।

গ্রেপ্তারকৃত সুদান চন্দ্র রায় পার্শ্ববর্তী কালীগঞ্জ উপজেলার লতাবর এলাকার মৃত পেড্ডু বর্মনের ছেলে। এই মামলার অপর দুইজন অভিযুক্ত হলেন, হাতীবান্ধা উপজেলার ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড সদস্য সুজন ও কালীগঞ্জ উপজেলার লতাবর এলাকার রশীদ মিয়ার ছেলে লিমন(২৭)।

জানা গেছে, সোমবার রাতে উপজেলার ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের জাওরানী বাজার এলাকা থেকে ৪৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ সুদান চন্দ্রকে গ্রেপ্তার করেছে বিজিবি। কিন্তু তার সাথে থাকা অপর ব্যাক্তি লিমন পালিয়ে যায়।

এ সময় সুদান চন্দ্র উপস্থিত স্থানীয় লোকজন, বিজিবি ও ইউপি চেয়ারম্যানকে জানায়, ভেলাগুড়ি ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড সদস্য সুজন তাকে ওই ফেন্সিডিল গুলো দেয়। আমি ও পলাতক লিমনসহ মোটরসাইকেলযোগে ফেন্সিডিলগুলো চাপারহাট নিয়ে যাচ্ছিলাম।

এ দিকে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মাদক, চোরাচালান, গরু, নারী শিশু পাচারসহ সীমান্তে এমন কোনো অপরাধ নেই যে এই সুজন মেম্বর করে না। সীমান্তে তার ক্যাডার বাহিনী রয়েছে। তাদের মাধ্যমে এই মেম্বর সব ধরণের অপকর্ম করে থাকে।

এ বিষয়ে ভেলাগুড়ি ইউপির ৭ নং ওয়ার্ড সদস্য সুজন বলেন, সুদান যেটা বলেছে সেটা মিথ্যা। আমাকে এখানে শুধু শুধু জড়ানো হচ্ছে। আমার নামে আগে দুইটা মাদক মামলা ছিলো। তবে মেম্বার হওয়ার পর আমার নামে কোনো মামলা হয়নি।

এ বিষয়ে ভেলাগুড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম মন্ডল বলেন, গ্রেপ্তারকৃত সুদানের সাথে কথা বলে জানতে পারি উদ্ধারকৃত মাদকের মালিক সুজন মেম্বার। সে একজন মাদক কারবারি। এর আগেও তার নামে থানায় মাদক মামলাও রয়েছে। মাদকের সাথে জড়িতদের কোনো ছাড় দেয়া হবে না।

এ বিষয়ে হাতীবান্ধা থানার ওসি শাহা আলম বলেন, ৪৫ বোতল ফেন্সিডিলসহ গ্রেপ্তারকৃত সুদান চন্দ্রকে থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে বিজিবি। এছাড়া এ ঘটনায় আটককৃত সুদান, সুজন ও লিমনসহ তিনজনের নামে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন বিজিবি।

বুধবার (৪ আগস্ট) সকালে আটক সুদানকে লালমনিরহাট আদালতে তোলা হবে। আর পালাতক আসামিদের গ্রেপ্তার অভিযান অব্যাহত রয়েছে।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।