Barta Kontho
নিবন্ধন নম্বর: ৪৬১রবিবার , ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২
  1. 1st Lead
  2. 2nd Lead
  3. অপরাধ
  4. আইটি বিশ্ব
  5. আইন ও আদালত
  6. আন্তর্জাতিক
  7. আবহাওয়া
  8. ইসলাম
  9. খেলাধুলা
  10. চাকুরি
  11. ছবি ঘর
  12. জাতীয়
  13. জেলার খবর
  14. ট্রাভেল
  15. নির্বাচন

একশ্রেণীর দখলদাররা নদী দখল ও দূষণ করছে: কামরুল ইসলাম

।। দেলোয়ার হোসেন ।‌ । ঢাকা ব্যুরো ।।
সেপ্টেম্বর ১১, ২০২২ ১০:১২ পূর্বাহ্ণ
Link Copied!

আওয়ামীলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক খাদ্য মন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি বলেছেন, একশ্রেণীর দখলদাররা সরকারের উপর ভরসা করে নদী দখল ও দূষণ করছে । যারা নদীর দখল করে তাদের আমরা ঘৃনা করব এবং বুড়িগঙ্গা নদীকে দখল ও দূষণমুক্ত করার জন্য সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রত্যয় গ্রহণ করতে হবে । তিনি আরো বলেন বুড়িগঙ্গাকে দখলমুক্ত করে ওয়াটার বাস চালু করা হলে ঢাকা শহরের যানজট অনেক অংশ কমে যাবে
বুড়িগঙ্গা নদীকে দূষণ ও দখল মুক্ত করতে ও নদীর পরিবেশ রক্ষায় শনিবার বুড়িগঙ্গা নদী মোর্চা ও বুড়িগঙ্গা নদী কার্নিভাল যৌথভাবে নদী উৎসব এর আয়োজন করে । এ ওয়াটার কিপার্স বাংলাদেশ ও কনসার্টিয়াম এর উদ্যোগে নদী উৎসব আয়োজন করা হয় । সকালে বুড়িগঙ্গা নদীর তীর কামরাঙ্গীরচর মুসলিমবাগ টাওয়ার মাঠ গুদারাঘাট এলাকায় এই নদী উৎসবের আয়োজন করা হয় । আয়োজকরা বলেন, নদী দখল, দূষণ প্রতিরোধ ও নদীর পরিবেশ রক্ষায় প্রতিবাদ করার জন্য সকল শ্রেণী ও পেশার মানুষের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টির লক্ষ্যে এই উৎসবের আয়োজন করা হয় । প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে নদী উৎসবের উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য সাবেক খাদ্য মন্ত্রী অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম এমপি , অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সাবেক উপদেষ্টা ও বিশিষ্ট মানবাধিকার নেত্রী এডভোকেট সুলতানা কামাল । এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আন্তর্জাতিক সেবা সংস্থা usid এর বাংলাদেশের ডিরেক্টর মিস ক্রিস্টিন , জন ম্যাকরে ও বিআইডব্লিউটিএ এর চিফ ইঞ্জিনিয়ার ড্রেজিং রকিবুল ইসলাম তালুকদার ।
আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন , একসময় স্বচ্ছ জলরাশি ও মনোরম পরিবেশের জন্য দেশ-বিদেশি পর্যটক ও ব্যবসায়ীরা ঢাকায় ভিড় জমাতেন। ধীরে ধীরে আরবীয়, পর্তুগিজ, ফরাসি, ওলন্দাজ, গ্রিক, আর্মেনীয় ও ব্রিটিশদের প্রিয় স্থান হয়ে পড়ে বুড়িগঙ্গার তীরে গড়ে ওঠা ঢাকা। ব্রিটিশ আমলে বুড়িগঙ্গার বুকে প্রচুর স্টিমার-লঞ্চ দেখা যেত। ঢাকা থেকে মালামাল ভর্তি নৌকা যেত দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে। একসময় বুড়িগঙ্গা নদীতে প্রচুর মাছ পাওয়া যেত, পানিতে কোনো দুর্গন্ধ ছিল না। নদীর পানির রং ছিল স্বচ্ছ, নদীতে স্নান করত স্থানীয়রা। জোয়ারের সময় নদীর উত্তাল ঢেউ ছিল মনোমুগ্ধকর। কিন্তু যতই ঢাকা শহরের উন্নয়ন ও পরিবর্তন হয়েছে, ততই যেন বুড়িগঙ্গার অবস্থা খারাপ হয়েছে। মানববর্জ্য, নদী তীরের কারখানার শিল্পবর্জ্য, বর্জ্য, নৌবর্জ্য, পোশাক শিল্পের বর্জ্য, পলিথিন, প্লাস্টিক বর্জ্য, নদী তীরের জাহাজ নির্মাণের বর্জ্য, গৃহস্থালি বর্জ্য ও বিভিন্ন স্যুয়ারেজ লাইনের ময়লা-আবর্জনার দূষণে বুড়িগঙ্গা নদীর অবস্থা মৃতপ্রায়। বুড়িগঙ্গার এহেন অবস্থা নিয়ে নদী দূষণমুক্ত ও দখলমুক্ত করতে কাজ করে যাচ্ছেন কয়েকটি পরিবেশ সংগঠন। তারই অংশ হিসেবে আয়োজন করা হয়া বুড়িগঙ্গা নদী কার্নিভালের। বুড়িগঙ্গা নদী কার্নিভাল ,পরবর্তী আয়োজন ছিলো শতাধিক নৌকা নিয়ে বর্ণালী নৌর্যালির। নৌর্যালিটি কামরাঙ্গীরচরস্থ গুদারাঘাট থেকে বাবু বাজার ব্রিজ হয়ে খোলামোড়া গিয়ে গুদারাঘাটে ফিরে। আলোচনা সভায় বিআইডব্লিউটিএয়ের ড্রেজিং প্রকৌশলী জানান, বুড়িগঙ্গা নিয়ে সরকারের গৃহীত কর্মসূচি রাকিবুল ইসলাম তালুকদার প্রধান প্রকৌশলী, নদী ড্রেজিং প্রকল্প, বিআইডব্লিউটিএ স্থানীয় প্রতিনিধি ও সহায়ক এনজিওরা জানান নদী দখলমুক্ত রাখতে সব ধরনের সহযোগিতা করতে চান। স্থানীয়রা আয়োজনকে সমর্থন জানিয়ে বলেন, বুড়িগঙ্গাকে আগের বুড়িগঙ্গা অবস্থায় ফেরত চাই যেখানে গোসল করবে, বাচ্চারা নদীর পাড়ে খেলাধুলা করবেপৃথিবীর বড় বড় শহরের মধ্যে অথবা পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া নদীকে দখল ও দূষণমুক্ত করে বিনোদনের কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলা হয়েছে এবং হচ্ছে। বুড়িগঙ্গা নদীকে ঘিরে এমনটি করা হলে নদী যেমন বাঁচবে, তেমনি নগরবাসীর বিনোদনের চাহিদাও পূরণ হবে বলে মনে করেন ‌পরিবেশবিদরা।

বিনা অনুমতিতে এই সাইটের সংবাদ, আলোকচিত্র অডিও ও ভিডিও ব্যবহার করা বেআইনি।