শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪, ২৯ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

ভারতে সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরলেন ৬ তরুণী

ভারতে দুই বছর সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরলেন ৬ বাংলাদেশি তরুণী। তাদের বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ।

আজ  মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৩ টার সময় ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ পাচার হওয়া ৬ তরুণীকে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

ফেরত আসারা হলেন- বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার শ্রীফুলতলার আশরাব শেখের মেয়ে আসমা খাতুন (১৭), নড়াইলের কালিয়া উপজেলার ছোট কালিয়া গ্রামের অলিয়ার রহমানের মেয়ে রিপা খানম (১৮), যশোর সদর উপজেলার সাজোয়ালী গ্রামের রবিউল ইসলামের মেয়ে শারমিন আক্তার (১৭), ঢাকার তেঁজগাও থানার মধ্যকুনি পাড়ার টুকু মিয়ার মেয়ে রাশিদা বেগম (১৭), ঢাকার খিলগাঁও থানার নুরজাহান মেনশনের আলমগীর হোসেনের মেয়ে প্রিয়া আক্তার (১৯), খুলনার খালিশপুরের আবুল হোসেনের মেয়ে তানিয়া আক্তার মিম(২১)।

যশোর জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার মুহিত হোসেন জানান, দালালদের মাধ্যমে পাসপোর্ট-ভিসা ছাড়াই  ভালো কাজের আশায় তারা ভারতে পাড়ি জমাই। এ সময় অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় পুলিশ তাদের আটক করে জেলে পাঠায়। দুই বছর পর দুই দেশের সরকারের সহযোগিতায় বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে তারা দেশে ফেরার সুযোগ পান। ফেরত আসারা যদি পাচারকারীদের শনাক্ত করে, তবে আইনি সহায়তা দেয়া হবে বলে জানান এনজিও সংস্থার কর্মকর্তা।

এ ব্যাপারে বেনাপোল ইমিগ্রেশনের অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ জানান, ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার নামে একটি এনজিও সংস্থা তাদের গ্রহণ করেছে।

বার্তাকণ্ঠ/এন

ব্রায়ান লারার অপরাজিত ৪০০ রানের রেকর্ড, দু’দশক আজ

ভারতে সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরলেন ৬ তরুণী

প্রকাশের সময় : ০৫:২৬:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৫ অক্টোবর ২০২২

ভারতে দুই বছর সাজাভোগ শেষে দেশে ফিরলেন ৬ বাংলাদেশি তরুণী। তাদের বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেছে পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ।

আজ  মঙ্গলবার (২৫ অক্টোবর) বিকাল সাড়ে ৩ টার সময় ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ পাচার হওয়া ৬ তরুণীকে বেনাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে তুলে দেয়।

ফেরত আসারা হলেন- বাগেরহাটের রামপাল উপজেলার শ্রীফুলতলার আশরাব শেখের মেয়ে আসমা খাতুন (১৭), নড়াইলের কালিয়া উপজেলার ছোট কালিয়া গ্রামের অলিয়ার রহমানের মেয়ে রিপা খানম (১৮), যশোর সদর উপজেলার সাজোয়ালী গ্রামের রবিউল ইসলামের মেয়ে শারমিন আক্তার (১৭), ঢাকার তেঁজগাও থানার মধ্যকুনি পাড়ার টুকু মিয়ার মেয়ে রাশিদা বেগম (১৭), ঢাকার খিলগাঁও থানার নুরজাহান মেনশনের আলমগীর হোসেনের মেয়ে প্রিয়া আক্তার (১৯), খুলনার খালিশপুরের আবুল হোসেনের মেয়ে তানিয়া আক্তার মিম(২১)।

যশোর জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ারের সিনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার মুহিত হোসেন জানান, দালালদের মাধ্যমে পাসপোর্ট-ভিসা ছাড়াই  ভালো কাজের আশায় তারা ভারতে পাড়ি জমাই। এ সময় অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে ভারতীয় পুলিশ তাদের আটক করে জেলে পাঠায়। দুই বছর পর দুই দেশের সরকারের সহযোগিতায় বিশেষ ট্রাভেল পারমিটের মাধ্যমে তারা দেশে ফেরার সুযোগ পান। ফেরত আসারা যদি পাচারকারীদের শনাক্ত করে, তবে আইনি সহায়তা দেয়া হবে বলে জানান এনজিও সংস্থার কর্মকর্তা।

এ ব্যাপারে বেনাপোল ইমিগ্রেশনের অফিসার ইনচার্জ আবুল কালাম আজাদ জানান, ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষে জাস্টিস অ্যান্ড কেয়ার নামে একটি এনজিও সংস্থা তাদের গ্রহণ করেছে।

বার্তাকণ্ঠ/এন