সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিশ্বকাপে  দ্বিতীয়বারের মতো গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় জার্মানির

কাতার বিশ্বকাপে  প্রথম ম্যাচেই জাপানের কাছে হেরে গেছিল জার্মানরা। পরের ম্যাচে সাবেক চ্যাম্পিয়ন স্পেনের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করে আশা বাঁচিয়ে রেখেছিল তারা। 

তবে শেষ ম্যাচের পরিসংখ্যানে জয় তো লাগতই, সেই সঙ্গে স্পেন-জাপানের গ্রুপের আরেক ম্যাচের ফলাফলের দিকে চেয়ে থাকা লাগত। হলোও ঠিক তেমনই এক ম্যাচ। কোস্টারিকার বিপক্ষে ৪-২ গোলে জিতেও কোনোই লাভ হলো না জার্মানির। এশিয়ান জায়ান্ট জাপানের কাছে ২-১ গোলে হেরে গেছে স্পেন। যার ফলে ‘ই’ গ্রুপ থেকে জিতেও টানা দ্বিতীয়বার গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিতে হলো চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের।

শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) দোহার আল বাইত স্টেডিয়ামে ম্যাচের ১০ম মিনিটে এক গোল দিয়ে এগিয়ে গিয়েছিলো জার্মান। এই ১ গোল নিয়েই গিয়েছিলো বিরতিতে। দ্বিতীয়ার্ধ শুরু হওয়ার একটু পরই গোল হজম করে বসে জার্মানরা।

ম্যাচের ৫৮তম মিনিটে দুর্দান্ত গোলটি করেন ইয়েলৎসিন তাজেদা। ওয়াটসনের হেড ম্যানুয়েল ন্যুয়ার ঝাঁপিয়ে পড়ে রক্ষা করেন। কিন্তু বল ধরে রাখতে পারেননি। ফিরতি বলে শট করে গোল করেন তাজেদা।

৬৭ মিনিটে জামাল মুসিয়ালার একটি শট সাইড বারে লেগে ফিরে আসলে নিশ্চিত গোল বঞ্চিত হয় জার্মানি। ম্যাচের ৭০তম মিনিটে আবারও গোল। এবার গোল করেন কোস্টারিকার হুয়ান পাবলো ভার্গাস। বাতাসে ভেসে আসা বলে আলতো করে হেড করেন ভার্গাস। ম্যানুয়েল ন্যুয়ার টেরই পাননি। তার পায়ে লেগে বল চলে যায় জার্মানির জালে।

তিন মিনিট পর আবারও গোল। এবার গোল করে জার্মানি। গোলদাতা বদলি খেলোয়াড় কাই হাভার্টজ। থমাস মুলারের পরিবর্তে মাঠে নামা হাভার্টজই গোল করেন। ফুলক্রুগের পাস থেকে বল পেয়ে গোলটি করেন তিনি।

৮৫তম মিনিটে আবারও গোল। এবারও গোল করেন কাই হাভার্টজ। গুনাব্রিরর অসাধারণ এক শট থেকে বল চলে যান বক্সের বাম প্রান্তে। দৌড়ে এতে বাম পায়ের এক টোকায় বলটি কোস্টারিকার জালে জড়িয়ে দেন তিনি।

৮৯তম মিনিটে আবারও গোল জার্মানির। এবার গোল করেন নিকলাস ফুলক্রুগ। লেরয় সানের পাস থেকে গোলটি করেন তিনি। কিন্তু লাইন্সম্যান ফ্ল্যাগ তুলে দাঁড়ালে গোল বাতিল হয়ে যায়। কিন্তু গোলদাতা ফুলক্রুগ অফসাইড ছিলেন না বলে দাবি করেন। যার ফলে, ভিএআর চেক করা হয়। ভিএআর দেখে গোল দেওয়া হয় জার্মানির পক্ষে।

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

ঠাকুরগাঁওয়ে কুয়াশায় ঢাকা চারপাশ, কমেছে তাপমাত্রা

বিশ্বকাপে  দ্বিতীয়বারের মতো গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় জার্মানির

প্রকাশের সময় : ০৯:৫৪:০৫ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২ ডিসেম্বর ২০২২

কাতার বিশ্বকাপে  প্রথম ম্যাচেই জাপানের কাছে হেরে গেছিল জার্মানরা। পরের ম্যাচে সাবেক চ্যাম্পিয়ন স্পেনের বিপক্ষে ১-১ গোলে ড্র করে আশা বাঁচিয়ে রেখেছিল তারা। 

তবে শেষ ম্যাচের পরিসংখ্যানে জয় তো লাগতই, সেই সঙ্গে স্পেন-জাপানের গ্রুপের আরেক ম্যাচের ফলাফলের দিকে চেয়ে থাকা লাগত। হলোও ঠিক তেমনই এক ম্যাচ। কোস্টারিকার বিপক্ষে ৪-২ গোলে জিতেও কোনোই লাভ হলো না জার্মানির। এশিয়ান জায়ান্ট জাপানের কাছে ২-১ গোলে হেরে গেছে স্পেন। যার ফলে ‘ই’ গ্রুপ থেকে জিতেও টানা দ্বিতীয়বার গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নিতে হলো চারবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের।

শুক্রবার (২ ডিসেম্বর) দোহার আল বাইত স্টেডিয়ামে ম্যাচের ১০ম মিনিটে এক গোল দিয়ে এগিয়ে গিয়েছিলো জার্মান। এই ১ গোল নিয়েই গিয়েছিলো বিরতিতে। দ্বিতীয়ার্ধ শুরু হওয়ার একটু পরই গোল হজম করে বসে জার্মানরা।

ম্যাচের ৫৮তম মিনিটে দুর্দান্ত গোলটি করেন ইয়েলৎসিন তাজেদা। ওয়াটসনের হেড ম্যানুয়েল ন্যুয়ার ঝাঁপিয়ে পড়ে রক্ষা করেন। কিন্তু বল ধরে রাখতে পারেননি। ফিরতি বলে শট করে গোল করেন তাজেদা।

৬৭ মিনিটে জামাল মুসিয়ালার একটি শট সাইড বারে লেগে ফিরে আসলে নিশ্চিত গোল বঞ্চিত হয় জার্মানি। ম্যাচের ৭০তম মিনিটে আবারও গোল। এবার গোল করেন কোস্টারিকার হুয়ান পাবলো ভার্গাস। বাতাসে ভেসে আসা বলে আলতো করে হেড করেন ভার্গাস। ম্যানুয়েল ন্যুয়ার টেরই পাননি। তার পায়ে লেগে বল চলে যায় জার্মানির জালে।

তিন মিনিট পর আবারও গোল। এবার গোল করে জার্মানি। গোলদাতা বদলি খেলোয়াড় কাই হাভার্টজ। থমাস মুলারের পরিবর্তে মাঠে নামা হাভার্টজই গোল করেন। ফুলক্রুগের পাস থেকে বল পেয়ে গোলটি করেন তিনি।

৮৫তম মিনিটে আবারও গোল। এবারও গোল করেন কাই হাভার্টজ। গুনাব্রিরর অসাধারণ এক শট থেকে বল চলে যান বক্সের বাম প্রান্তে। দৌড়ে এতে বাম পায়ের এক টোকায় বলটি কোস্টারিকার জালে জড়িয়ে দেন তিনি।

৮৯তম মিনিটে আবারও গোল জার্মানির। এবার গোল করেন নিকলাস ফুলক্রুগ। লেরয় সানের পাস থেকে গোলটি করেন তিনি। কিন্তু লাইন্সম্যান ফ্ল্যাগ তুলে দাঁড়ালে গোল বাতিল হয়ে যায়। কিন্তু গোলদাতা ফুলক্রুগ অফসাইড ছিলেন না বলে দাবি করেন। যার ফলে, ভিএআর চেক করা হয়। ভিএআর দেখে গোল দেওয়া হয় জার্মানির পক্ষে।