শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

অসংখ্য বিতর্কিত প্রশ্ন ছুড়লেন বুবলী

ছবিঃ সংগৃহীত

নিজের ফেসবুক পেজে প্রায় ৪২ মিনিটের একটি ভিডিও শেয়ার করে অসংখ্য বিতর্কিত প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন ঢালিউডের জনপ্রিয় মুখ শবনম বুবলী। রোববার (৪ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৬টার দিকে ফেসবুকে এ ভিডিও শেয়ার করেন তিনি।

ভিডিওর শুরুতে তাকে নিয়ে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত নানা খবর নিয়ে আপত্তি তোলেন তিনি। তিনি যা করেননি তা নিয়ে তাকে দোষী করায় বেশ দুঃখও প্রকাশ করেন তিনি।

ভিডিওতে তিনি জানান, কিছু বিষয় তার দর্শকের সঙ্গে পরিষ্কার করে তোলার জন্যই তার এ ভিডিও শেয়ার। এর মাধ্যমে তিনি কারো প্রতি কোনো অভিযোগ করতে চাচ্ছেন না বলেও জানান।

এরপরই একে একে দর্শকের কাছে ত্রিভুজ প্রেমের গল্পের নানাদিক তুলে ধরেন অভিনেত্রী। প্রথমেই প্রশ্ন তোলেন শাকিব-অপুর সংসার ভাঙাতে তাকে কেন দায়ী করা হয়?

সংবাদমাধ্যম থেকে শুরু করে অনেক দর্শকই তাকে নেতিবাচকভাবে দেখায় বিষয়টি নিয়ে তিনি নিজেই হতবাক হন।

কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ২০১৬ সালে ঢালিউডে পা রাখেন তিনি। শাকিবরে সঙ্গে তার সখ্য প্রথমেই গড়ে ওঠেনি। একসঙ্গে কাজ করতে করতে সখ্য গড়ে ওঠে তাদের।

২০১৭ সালে যখন তাদের সম্পর্ক গভীর হয়, তখন পর্যন্ত তিনি জানতেন না শাকিব খান বিবাহিত। শুধু তিনি কেন, কেউ জানত না শাকিব-অপুর কথা। তবে কেন সংসার ভাঙার ক্ষেত্রে বুবলীকে দায়ী করা হয়, তিনি এখনও এ বিষয়টি বুঝে উঠতে পারেননি।

চুপ থাকা মানেই সম্মতির লক্ষণ নয়। বুবলী বলেন, শাকিব অপুর সম্পর্ক আগেই ভাঙা ছিল। তারা এক বছরের সেপারেশনে ছিল, সেই সময় বুবলী শাকিবের জীবনে আসেন।

ঢালিউডের এই অভিনেত্রী বলেন, শাকিব যে বিবাহিত তা কেউ জানত না। আর বুবলীর কাছে সিঙ্গেল হিসেবেই পরিচিত ছিল শাকিব।

এরপর যখন শাকিব-অপুর বিষয়টি জনসম্মুখে আসে তখন শাকিব খোলাখুলি কথাই বলেন বুবলীর সঙ্গে।

বিবাহিত জীবনে মোটেও সুখী ছিলেন না শাকিব খান। এরপরই শাকিব-অপুর সম্পর্কের বিষয়ে বুবলী আরও অনেক প্রশ্ন তোলেন ভিডিওতে।

বুবলী বলেন, অপু নিজেই বলেছেন, চারবার তিনি সন্তান জন্ম দিতে গিয়েও পারেননি কেন? কেন শাকিব তাকে বলেছিল, সংসার চাও না বাচ্চা চাও? শাকিবের পরিবারের কাছে জয় সেফ না কেন?

যে সম্পর্ক গভীর সেখানে এমন প্রশ্নগুলো আসার কথা নয় বলেও জানান এই অভিনেত্রী। বুবলী এ-ও বলেন, এসব ঘটনা যখন ঘটে তখন তার সঙ্গে শাকিবের পরিচয়ই ছিল না। তবে কেন তাকে তাদের সম্পর্ক ভাঙার ক্ষেত্রে দায়ী করা হয়?

দর্শকের উদ্দেশে বুবলী এমনও প্রশ্ন করেন, যদি কোনো ব্যক্তি তার আগের বিবাহিত সম্পর্কে সুখী না হয় বা সম্পর্ক ভেঙে যায় এবং পরবর্তী সময়ে সে নতুন কারো সঙ্গে সুখী হতে চায়, এতে নতুন মানুষটির দোষ কোথায়?

অনেকে মনে করেন, বিয়ে করে শাকিবের কাছ থেকে অনেক অর্থসাহায্য নেন বুবলী। সে ধারণাও মিথ্যে বলে পরিষ্কার ব্যাখ্যা দেন দর্শকের কাছে।

নিজের জন্মদিনে নাকফুল উপহার পাওয়া, বিবাহিত জীবনে তাজমহলে ঘুরতে যাওয়া এমন ছবি পোস্ট করলেও তাকে অনেক প্রশ্নের জবাব দিতে হয়, ঘটনার সত্যতা দিতে হয় কেন, হতাশা প্রকাশ করেন বুবলী।

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

বাংলাদেশ ও ভারত হচ্ছে অকৃত্রিম বন্ধু: ভারতীয় হাই কমিশনার

অসংখ্য বিতর্কিত প্রশ্ন ছুড়লেন বুবলী

প্রকাশের সময় : ০৫:৫৫:০৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২২

নিজের ফেসবুক পেজে প্রায় ৪২ মিনিটের একটি ভিডিও শেয়ার করে অসংখ্য বিতর্কিত প্রশ্ন ছুড়ে দিয়েছেন ঢালিউডের জনপ্রিয় মুখ শবনম বুবলী। রোববার (৪ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৬টার দিকে ফেসবুকে এ ভিডিও শেয়ার করেন তিনি।

ভিডিওর শুরুতে তাকে নিয়ে সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত নানা খবর নিয়ে আপত্তি তোলেন তিনি। তিনি যা করেননি তা নিয়ে তাকে দোষী করায় বেশ দুঃখও প্রকাশ করেন তিনি।

ভিডিওতে তিনি জানান, কিছু বিষয় তার দর্শকের সঙ্গে পরিষ্কার করে তোলার জন্যই তার এ ভিডিও শেয়ার। এর মাধ্যমে তিনি কারো প্রতি কোনো অভিযোগ করতে চাচ্ছেন না বলেও জানান।

এরপরই একে একে দর্শকের কাছে ত্রিভুজ প্রেমের গল্পের নানাদিক তুলে ধরেন অভিনেত্রী। প্রথমেই প্রশ্ন তোলেন শাকিব-অপুর সংসার ভাঙাতে তাকে কেন দায়ী করা হয়?

সংবাদমাধ্যম থেকে শুরু করে অনেক দর্শকই তাকে নেতিবাচকভাবে দেখায় বিষয়টি নিয়ে তিনি নিজেই হতবাক হন।

কারণ হিসেবে তিনি বলেন, ২০১৬ সালে ঢালিউডে পা রাখেন তিনি। শাকিবরে সঙ্গে তার সখ্য প্রথমেই গড়ে ওঠেনি। একসঙ্গে কাজ করতে করতে সখ্য গড়ে ওঠে তাদের।

২০১৭ সালে যখন তাদের সম্পর্ক গভীর হয়, তখন পর্যন্ত তিনি জানতেন না শাকিব খান বিবাহিত। শুধু তিনি কেন, কেউ জানত না শাকিব-অপুর কথা। তবে কেন সংসার ভাঙার ক্ষেত্রে বুবলীকে দায়ী করা হয়, তিনি এখনও এ বিষয়টি বুঝে উঠতে পারেননি।

চুপ থাকা মানেই সম্মতির লক্ষণ নয়। বুবলী বলেন, শাকিব অপুর সম্পর্ক আগেই ভাঙা ছিল। তারা এক বছরের সেপারেশনে ছিল, সেই সময় বুবলী শাকিবের জীবনে আসেন।

ঢালিউডের এই অভিনেত্রী বলেন, শাকিব যে বিবাহিত তা কেউ জানত না। আর বুবলীর কাছে সিঙ্গেল হিসেবেই পরিচিত ছিল শাকিব।

এরপর যখন শাকিব-অপুর বিষয়টি জনসম্মুখে আসে তখন শাকিব খোলাখুলি কথাই বলেন বুবলীর সঙ্গে।

বিবাহিত জীবনে মোটেও সুখী ছিলেন না শাকিব খান। এরপরই শাকিব-অপুর সম্পর্কের বিষয়ে বুবলী আরও অনেক প্রশ্ন তোলেন ভিডিওতে।

বুবলী বলেন, অপু নিজেই বলেছেন, চারবার তিনি সন্তান জন্ম দিতে গিয়েও পারেননি কেন? কেন শাকিব তাকে বলেছিল, সংসার চাও না বাচ্চা চাও? শাকিবের পরিবারের কাছে জয় সেফ না কেন?

যে সম্পর্ক গভীর সেখানে এমন প্রশ্নগুলো আসার কথা নয় বলেও জানান এই অভিনেত্রী। বুবলী এ-ও বলেন, এসব ঘটনা যখন ঘটে তখন তার সঙ্গে শাকিবের পরিচয়ই ছিল না। তবে কেন তাকে তাদের সম্পর্ক ভাঙার ক্ষেত্রে দায়ী করা হয়?

দর্শকের উদ্দেশে বুবলী এমনও প্রশ্ন করেন, যদি কোনো ব্যক্তি তার আগের বিবাহিত সম্পর্কে সুখী না হয় বা সম্পর্ক ভেঙে যায় এবং পরবর্তী সময়ে সে নতুন কারো সঙ্গে সুখী হতে চায়, এতে নতুন মানুষটির দোষ কোথায়?

অনেকে মনে করেন, বিয়ে করে শাকিবের কাছ থেকে অনেক অর্থসাহায্য নেন বুবলী। সে ধারণাও মিথ্যে বলে পরিষ্কার ব্যাখ্যা দেন দর্শকের কাছে।

নিজের জন্মদিনে নাকফুল উপহার পাওয়া, বিবাহিত জীবনে তাজমহলে ঘুরতে যাওয়া এমন ছবি পোস্ট করলেও তাকে অনেক প্রশ্নের জবাব দিতে হয়, ঘটনার সত্যতা দিতে হয় কেন, হতাশা প্রকাশ করেন বুবলী।