সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

তেঁতুলিয়ায় সার বিক্রয়ে অনিয়ম, বিএডিসি ডিলারকে ১ বছরের কারাদণ্ড

তেঁতুলিয়ায় গম বীজ বিক্রয়ে অনিয়মের দায়ে বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের শিলাইকুঠি বাজারে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি)’র লাইসেন্স প্রাপ্ত বীজ ডিলার ও মেসার্স রিপন এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী নজিমুল হক (৩৫)-কে মোবাইল কোর্টে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর দুইটি পৃথক ধারায় উভয় ক্ষেত্রে ৬ মাস করে মোট ১ বছরের কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর ২০২২ ) দুপুরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে শিলাইকুঠি বাজারে বিএডিসি এর লাইসেন্স প্রাপ্ত ডিলার মেসার্স রিপন এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী নজিমুল হকের বিক্রয় কেন্দ্র পরিদর্শনকালে প্রমাণিত হয় যে, উক্ত ডিলার নজিমুল হক গত ১৫ নভেম্বর, ২০২২ তারিখে ৬০ নম্বর ডেলিভারী স্লিপের মাধ্যমে বিএডিসি গোডাউন, পঞ্চগড় হতে বারি-৩০ জাতের গম বীজের ২২৫টি বস্তায় ২৫০০ কেজি গম বীজ সংগ্রহ করেন যা; স্থানীয় কৃষকগণের মধ্যে নির্ধারিত মূল্যে ডিলারের নির্ধারিত বিক্রয় কেন্দ্র বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের শিলাইকুঠি বাজার হতে বিক্রয়যোগ্য। তাকে গত ১৫ নভেম্বর, ২০২২ তারিখে উক্ত ৬০ নম্বর ডেলিভারী স্লিপের বিপরীতে উপজেলা কৃষি অফিস, তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়- এ দাখিলকৃত এরাইভাল রিপোর্ট প্রদর্শন করতে বলা হলে তিনি তা প্রদর্শন করতে ব্যর্থ হন। উপরন্তু, ২২৫ বস্তা গম বীজ স্থানীয় কৃষকের নিকট বিক্রয়ের প্রমাণস্বরূপ বিক্রয় রশিদ, স্টক রেজিস্টার বা সংগ্রহ রেজিস্টার ইত্যাদিও প্রদর্শন করতে পারেননি।

অপরদিকে, রিপন এন্টার প্রাইজের বিক্রয় কেন্দ্র থেকে জব্দকৃত টালি খাতা যাচাই এবং উল্লিখিত ডিলার নজিমুল হকের মৌখিক স্বীকারোক্তি মোতাবেক প্রমাণ হয় যে, ৬০ নম্বর ডেলিভারী স্লিপের মাধ্যমে সংগ্রহকৃত ২২৫ বস্তাসহ ভজনপুর ইউনিয়নের ডিলারের নামে বরাদ্দকৃত অতিরিক্ত ২২৫ বস্তা হিসেবে মোট ৪৫০ বস্তা গম বীজ বিএডিসির অনুমোদনবিহীন ৫ জন ব্যবসায়ীর নিকট তিনি(আসামি) বিক্রয় করেন যার মাধ্যমে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর ৪৫ ধারা অনুযায়ী ‘প্রতিশ্রুত পণ্য বা সেবা যথাযথভাবে বিক্রয় বা সরবরাহ না করিবার’অপরাধ করেছেন। একই সাথে নজিমুল হক বিএডিসির একজন নিবন্ধনকৃত ডিলার হিসেবে সেবার মূল্য তালিকা অর্থাৎ কৃষকের নিকট গমের বীজের বিক্রয়ের নির্ধারিত মূল্য তালিকা বিক্রয় কেন্দ্রের দৃশ্যমান স্থানে লটকিয়ে প্রদর্শন করেননি যা; উল্লিখিত আইনের ৩৯ ধারা মোতাবেক অপরাধ। ফলে, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর ৩৯ এবং ৪৫ ধারা লংঘনের অপরাধে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি)’র লাইসেন্স প্রাপ্ত বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের শিলাইকুঠি বাজারের ডিলার এবং মেসার্স রিপন এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী আসামী নজিমুল হক-কে আটক করা হয়।

গম বীজ বিক্রয়ে এ সকল অনিয়ম ও অপরাধ স্বেচ্ছায় এবং সজ্ঞানে উপস্থিত সাক্ষীগণের সম্মুখে স্বীকার করায় শিলাইকুঠি বাজারের উক্ত বীজ ডিলার মেসার্স রিপন এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী আসামী মো: নজিমুল হক-কে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর ৩৯ ধারা এবং ৪৫ ধারাদ্বয় লঙ্ঘনের দায়ে ৩৯ ধারায় ০৬ (ছয়) মাস এবং ৪৫ ধারায় ০৬ (ছয়) মাসের কারাদন্ড প্রদান করা হয়। প্রদত্ত দন্ডসমূহ একসাথে ভোগ করবেন মর্মে আদেশ প্রদান করে নজিমুল হক-কে পঞ্চগড় জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সোহাগ চন্দ্র সাহা এ দণ্ডাদেশ প্রদান করেন। এ সময় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান তারেক হোসেন ও তেঁতুলিয়া মডেল থানার এসআই মাহফুজ সঙ্গীয় ফোর্সসহ স্থানীয় প্রায় ৩০০ কৃষক উপস্থিত ছিলেন।

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

ঠাকুরগাঁওয়ে কুয়াশায় ঢাকা চারপাশ, কমেছে তাপমাত্রা

তেঁতুলিয়ায় সার বিক্রয়ে অনিয়ম, বিএডিসি ডিলারকে ১ বছরের কারাদণ্ড

প্রকাশের সময় : ১০:১২:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২২

তেঁতুলিয়ায় গম বীজ বিক্রয়ে অনিয়মের দায়ে বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের শিলাইকুঠি বাজারে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি)’র লাইসেন্স প্রাপ্ত বীজ ডিলার ও মেসার্স রিপন এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী নজিমুল হক (৩৫)-কে মোবাইল কোর্টে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন ২০০৯ এর দুইটি পৃথক ধারায় উভয় ক্ষেত্রে ৬ মাস করে মোট ১ বছরের কারাদন্ড প্রদান করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৬ ডিসেম্বর ২০২২ ) দুপুরে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের মোবাইল কোর্ট পরিচালনাকালে শিলাইকুঠি বাজারে বিএডিসি এর লাইসেন্স প্রাপ্ত ডিলার মেসার্স রিপন এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী নজিমুল হকের বিক্রয় কেন্দ্র পরিদর্শনকালে প্রমাণিত হয় যে, উক্ত ডিলার নজিমুল হক গত ১৫ নভেম্বর, ২০২২ তারিখে ৬০ নম্বর ডেলিভারী স্লিপের মাধ্যমে বিএডিসি গোডাউন, পঞ্চগড় হতে বারি-৩০ জাতের গম বীজের ২২৫টি বস্তায় ২৫০০ কেজি গম বীজ সংগ্রহ করেন যা; স্থানীয় কৃষকগণের মধ্যে নির্ধারিত মূল্যে ডিলারের নির্ধারিত বিক্রয় কেন্দ্র বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের শিলাইকুঠি বাজার হতে বিক্রয়যোগ্য। তাকে গত ১৫ নভেম্বর, ২০২২ তারিখে উক্ত ৬০ নম্বর ডেলিভারী স্লিপের বিপরীতে উপজেলা কৃষি অফিস, তেঁতুলিয়া, পঞ্চগড়- এ দাখিলকৃত এরাইভাল রিপোর্ট প্রদর্শন করতে বলা হলে তিনি তা প্রদর্শন করতে ব্যর্থ হন। উপরন্তু, ২২৫ বস্তা গম বীজ স্থানীয় কৃষকের নিকট বিক্রয়ের প্রমাণস্বরূপ বিক্রয় রশিদ, স্টক রেজিস্টার বা সংগ্রহ রেজিস্টার ইত্যাদিও প্রদর্শন করতে পারেননি।

অপরদিকে, রিপন এন্টার প্রাইজের বিক্রয় কেন্দ্র থেকে জব্দকৃত টালি খাতা যাচাই এবং উল্লিখিত ডিলার নজিমুল হকের মৌখিক স্বীকারোক্তি মোতাবেক প্রমাণ হয় যে, ৬০ নম্বর ডেলিভারী স্লিপের মাধ্যমে সংগ্রহকৃত ২২৫ বস্তাসহ ভজনপুর ইউনিয়নের ডিলারের নামে বরাদ্দকৃত অতিরিক্ত ২২৫ বস্তা হিসেবে মোট ৪৫০ বস্তা গম বীজ বিএডিসির অনুমোদনবিহীন ৫ জন ব্যবসায়ীর নিকট তিনি(আসামি) বিক্রয় করেন যার মাধ্যমে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর ৪৫ ধারা অনুযায়ী ‘প্রতিশ্রুত পণ্য বা সেবা যথাযথভাবে বিক্রয় বা সরবরাহ না করিবার’অপরাধ করেছেন। একই সাথে নজিমুল হক বিএডিসির একজন নিবন্ধনকৃত ডিলার হিসেবে সেবার মূল্য তালিকা অর্থাৎ কৃষকের নিকট গমের বীজের বিক্রয়ের নির্ধারিত মূল্য তালিকা বিক্রয় কেন্দ্রের দৃশ্যমান স্থানে লটকিয়ে প্রদর্শন করেননি যা; উল্লিখিত আইনের ৩৯ ধারা মোতাবেক অপরাধ। ফলে, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর ৩৯ এবং ৪৫ ধারা লংঘনের অপরাধে বাংলাদেশ কৃষি উন্নয়ন কর্পোরেশন (বিএডিসি)’র লাইসেন্স প্রাপ্ত বুড়াবুড়ি ইউনিয়নের শিলাইকুঠি বাজারের ডিলার এবং মেসার্স রিপন এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী আসামী নজিমুল হক-কে আটক করা হয়।

গম বীজ বিক্রয়ে এ সকল অনিয়ম ও অপরাধ স্বেচ্ছায় এবং সজ্ঞানে উপস্থিত সাক্ষীগণের সম্মুখে স্বীকার করায় শিলাইকুঠি বাজারের উক্ত বীজ ডিলার মেসার্স রিপন এন্টার প্রাইজের স্বত্বাধিকারী আসামী মো: নজিমুল হক-কে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ আইন, ২০০৯ এর ৩৯ ধারা এবং ৪৫ ধারাদ্বয় লঙ্ঘনের দায়ে ৩৯ ধারায় ০৬ (ছয়) মাস এবং ৪৫ ধারায় ০৬ (ছয়) মাসের কারাদন্ড প্রদান করা হয়। প্রদত্ত দন্ডসমূহ একসাথে ভোগ করবেন মর্মে আদেশ প্রদান করে নজিমুল হক-কে পঞ্চগড় জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) ও বিজ্ঞ এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট সোহাগ চন্দ্র সাহা এ দণ্ডাদেশ প্রদান করেন। এ সময় উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা জাহাঙ্গীর আলম, স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান তারেক হোসেন ও তেঁতুলিয়া মডেল থানার এসআই মাহফুজ সঙ্গীয় ফোর্সসহ স্থানীয় প্রায় ৩০০ কৃষক উপস্থিত ছিলেন।