শনিবার, ০৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২২ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বালিয়াকান্দিতে মারামারির ৪দিন পর  মৃত্যু।। অভিযুক্তের বাড়ীতে আগুন

রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে মারপিটের ৪দিন পর মারা গেল জামালপুর ইউনিয়নের আলোকদিয়ার আঃ করিম এর ছেলে হাসু (৪০)।
জানা গেছে, বুধবার   (৭ডিসেম্বর)বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের আলোকদিয়া গ্রামে সকাল আনুমানিক ৬টার দিকে আঃ করিম শেখের ছেলে হাসু শেখের মৃত্যু হয় এবং সকাল অনুমান ১১ টার দিকে প্রতিপক্ষের বাড়ীতে  আগুন লাগিয়ে দেয় বলে অভিযোগ করে।
 স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, গত ৩ ডিসেম্বর রাত আনুমানিক সাড়ে ১১ টার দিকে হাসুকে প্রতিবেশী বিশুর ছেলে নয়ন (২৫) বাড়ির পাশে কলাবাগানে নিয়ে মারপিঠ করে। এতে  হাসু গুরুত্বর আহত অবস্থায় গত ৪ ডিসেম্বর বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়। ৬ ডিসেম্বর মঙ্গলবার   সন্ধ্যা ৫ টার দিকে হাসু হাসপাতাল থেকে পালিয়ে বাড়িতে চলে যায়। ৭ ডিসেম্বর সকাল আনুমানিক ৬ টার দিকে  নিজ বাড়িতে মারা যায়। গোপন সূত্রে জানা যায় একই ইউনিয়নের ডাঙ্গাহাতিমোহন গ্রামের বিশু সরকারের স্ত্রী এলাকায় অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িত ছিলো। এই বিষয় নিয়েই হাসু ও নয়নের মধ‍্যে দ্বন্দ্বর সৃষ্টি হয়। এ থেকেই তাদের মধ‍্যে মারপিটের ঘটনা ঘটে। পূর্বের ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসুর মৃত‍্যূ হয় বলে ধারনা করা হচ্ছে। এ মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে বিশুর ছেলে নয়ন ও বিশু নিজে তাদের নিজ বসতঘরে আগুন লাগিয়ে দেয় বলে ধারণা করছে এলাকাবাসী। অনেকেই বলেন, চতুর বিশু ও তার ছেলে হত্যা মামলা হতে রেহাই পাওয়ার জন্য উক্ত ঘরে নিজেরাই আগুন লাগিয়েছে।

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

আশুলিয়ায় হেযবুত তওহীদ কর্মীদের উপর হামলা, নারীসহ আহত ১৩

বালিয়াকান্দিতে মারামারির ৪দিন পর  মৃত্যু।। অভিযুক্তের বাড়ীতে আগুন

প্রকাশের সময় : ০৬:১৩:৩১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৭ ডিসেম্বর ২০২২
রাজবাড়ীর বালিয়াকান্দিতে মারপিটের ৪দিন পর মারা গেল জামালপুর ইউনিয়নের আলোকদিয়ার আঃ করিম এর ছেলে হাসু (৪০)।
জানা গেছে, বুধবার   (৭ডিসেম্বর)বালিয়াকান্দি উপজেলার জামালপুর ইউনিয়নের আলোকদিয়া গ্রামে সকাল আনুমানিক ৬টার দিকে আঃ করিম শেখের ছেলে হাসু শেখের মৃত্যু হয় এবং সকাল অনুমান ১১ টার দিকে প্রতিপক্ষের বাড়ীতে  আগুন লাগিয়ে দেয় বলে অভিযোগ করে।
 স্থানীয় বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, গত ৩ ডিসেম্বর রাত আনুমানিক সাড়ে ১১ টার দিকে হাসুকে প্রতিবেশী বিশুর ছেলে নয়ন (২৫) বাড়ির পাশে কলাবাগানে নিয়ে মারপিঠ করে। এতে  হাসু গুরুত্বর আহত অবস্থায় গত ৪ ডিসেম্বর বালিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এ চিকিৎসার জন্য ভর্তি হয়। ৬ ডিসেম্বর মঙ্গলবার   সন্ধ্যা ৫ টার দিকে হাসু হাসপাতাল থেকে পালিয়ে বাড়িতে চলে যায়। ৭ ডিসেম্বর সকাল আনুমানিক ৬ টার দিকে  নিজ বাড়িতে মারা যায়। গোপন সূত্রে জানা যায় একই ইউনিয়নের ডাঙ্গাহাতিমোহন গ্রামের বিশু সরকারের স্ত্রী এলাকায় অনৈতিক কর্মকান্ডে জড়িত ছিলো। এই বিষয় নিয়েই হাসু ও নয়নের মধ‍্যে দ্বন্দ্বর সৃষ্টি হয়। এ থেকেই তাদের মধ‍্যে মারপিটের ঘটনা ঘটে। পূর্বের ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসুর মৃত‍্যূ হয় বলে ধারনা করা হচ্ছে। এ মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে বিশুর ছেলে নয়ন ও বিশু নিজে তাদের নিজ বসতঘরে আগুন লাগিয়ে দেয় বলে ধারণা করছে এলাকাবাসী। অনেকেই বলেন, চতুর বিশু ও তার ছেলে হত্যা মামলা হতে রেহাই পাওয়ার জন্য উক্ত ঘরে নিজেরাই আগুন লাগিয়েছে।