শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বিয়ের সাজসজ্জায় ল্যাকমের প্রসাধনীর নেপথ্যে রয়েছে ‘লক্ষ্মী’ ইতিহাস!

ছবিঃ সংগৃহীত

বিয়ের সাজসজ্জা একটু জমকালো না হলে চলে? তবে কোন প্রসাধনী ব্যবহার করবেন তা নিয়ে অনেকের মধ্যেই সংশয় থাকে। আর ত্বক যদি স্পর্শকাতর হয় তা হলে তো আর কথাই নেই! সাজসজ্জায় ল্যাকমের প্রসাধনী চল কিন্তু নতুন ন। বিগত সময়ে এই ব্র্যান্ড ভারতের প্রায় প্রতিটি ঘরেই আলাদা করে জায়গা করে নিয়েছে স্বমহিমায়। ৭০ বছরে পা দিল বহুল জনপ্রিয় এই ল্যাকমে।

প্রসাধনী শিল্প মহলে ল্যাকমে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে। এই আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের ৩০০টিরও বেশি প্রোডাক্ট চালু রয়েছে সারা দেশে। প্রায় ৭০টিরও বেশি দেশে ল্যাকমের ব্যবসা চলছে রমরমিয়ে। তবে এই সংস্থার শুরুর গল্প অনেকেরই অজানা। এই সংস্থার শুরু হয় খোদ প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধে। নেপথ্যে টাটা গ্রুপ। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী পণ্ডিত জহরলাল নেহরু তাঁর বন্ধু শিল্পপতি জেআরডি টাটাকে অনুরোধ করেন প্রসাধনী সামগ্রীর ব্র্যান্ড প্রতিষ্ঠার জন্য। শুরু হয় ল্যাকমের।

বর্তমানে ল্যাকমে ব্র্যান্ড হিন্দুস্তান ইউনিলিভারের অন্তর্ভুক্ত। ১৯৯৩ সালে ল্যাকমে অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু করে হিন্দুস্তান ইউনিলিভার। ১৯৯৬ সালে তাদের কাছে এই ব্র্যান্ডের অর্ধেক শেয়ার চলে যায়। ক্রমে আরও ২ বছর পরে ১৯৯৮ সালে হিন্দুস্তান ইউনিলিভারের কিনে নেয় ল্যাকমেকে।

এর নামকরণের পিছনেও রয়েছে এক অনন্য তাৎপর্য। আদতে ল্যাকমে একটি ফরাসি শব্দ তবে এর মিল রয়েছে ভারতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে। এই ভাষায় ল্যাকমের অর্থ সমৃদ্ধের দেবী। আর ভারতে সমৃদ্ধের দেবী হল লক্ষ্মী। অতএব প্রসাধন সামগ্রীর জগতে ভারতে লক্ষ্মী আসে ল্যাকমের হাত ধরে। প্রসঙ্গত সে সময় ফ্রান্সে ল্যাকমে নামে একটি অপেরা খুব জনপ্রিয় ছিল।

ত্বকের ধরনের উপর নির্ভর করে প্রসাধনী সামগ্রী নির্বাচন করুন। বিয়ের সাজসজ্জায় কোনও রকম আপস করতে না হয় যেন।

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

‘পাঠান’ দিয়ে ৩২ বছর পর কাশ্মীরের সিনেমা হল হাউসফুল

বিয়ের সাজসজ্জায় ল্যাকমের প্রসাধনীর নেপথ্যে রয়েছে ‘লক্ষ্মী’ ইতিহাস!

প্রকাশের সময় : ০৫:৪৪:৪৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর ২০২২

বিয়ের সাজসজ্জা একটু জমকালো না হলে চলে? তবে কোন প্রসাধনী ব্যবহার করবেন তা নিয়ে অনেকের মধ্যেই সংশয় থাকে। আর ত্বক যদি স্পর্শকাতর হয় তা হলে তো আর কথাই নেই! সাজসজ্জায় ল্যাকমের প্রসাধনী চল কিন্তু নতুন ন। বিগত সময়ে এই ব্র্যান্ড ভারতের প্রায় প্রতিটি ঘরেই আলাদা করে জায়গা করে নিয়েছে স্বমহিমায়। ৭০ বছরে পা দিল বহুল জনপ্রিয় এই ল্যাকমে।

প্রসাধনী শিল্প মহলে ল্যাকমে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে। এই আন্তর্জাতিক ব্র্যান্ডের ৩০০টিরও বেশি প্রোডাক্ট চালু রয়েছে সারা দেশে। প্রায় ৭০টিরও বেশি দেশে ল্যাকমের ব্যবসা চলছে রমরমিয়ে। তবে এই সংস্থার শুরুর গল্প অনেকেরই অজানা। এই সংস্থার শুরু হয় খোদ প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধে। নেপথ্যে টাটা গ্রুপ। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী পণ্ডিত জহরলাল নেহরু তাঁর বন্ধু শিল্পপতি জেআরডি টাটাকে অনুরোধ করেন প্রসাধনী সামগ্রীর ব্র্যান্ড প্রতিষ্ঠার জন্য। শুরু হয় ল্যাকমের।

বর্তমানে ল্যাকমে ব্র্যান্ড হিন্দুস্তান ইউনিলিভারের অন্তর্ভুক্ত। ১৯৯৩ সালে ল্যাকমে অধিগ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু করে হিন্দুস্তান ইউনিলিভার। ১৯৯৬ সালে তাদের কাছে এই ব্র্যান্ডের অর্ধেক শেয়ার চলে যায়। ক্রমে আরও ২ বছর পরে ১৯৯৮ সালে হিন্দুস্তান ইউনিলিভারের কিনে নেয় ল্যাকমেকে।

এর নামকরণের পিছনেও রয়েছে এক অনন্য তাৎপর্য। আদতে ল্যাকমে একটি ফরাসি শব্দ তবে এর মিল রয়েছে ভারতীয় সংস্কৃতির সঙ্গে। এই ভাষায় ল্যাকমের অর্থ সমৃদ্ধের দেবী। আর ভারতে সমৃদ্ধের দেবী হল লক্ষ্মী। অতএব প্রসাধন সামগ্রীর জগতে ভারতে লক্ষ্মী আসে ল্যাকমের হাত ধরে। প্রসঙ্গত সে সময় ফ্রান্সে ল্যাকমে নামে একটি অপেরা খুব জনপ্রিয় ছিল।

ত্বকের ধরনের উপর নির্ভর করে প্রসাধনী সামগ্রী নির্বাচন করুন। বিয়ের সাজসজ্জায় কোনও রকম আপস করতে না হয় যেন।