সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

গণসমাবেশে অংশ নিতে বিএনপির নেতাকর্মীদের ভীড়ে রাতেই গোলাপবাগ মাঠ ভরপুর

ঢাকার গোলাপবাগ মাঠে গণসমাবেশ করার অনুমতি পেয়েই সেখানে জড়ো হতে শুরু করেছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। শুক্রবার বিকাল থেকে মিছিল নিয়ে জড়ো হতে শুরু করেন দলটির বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মী। সময় যত বাড়ছে নেতাকর্মীদের সমাগমও বেড়ে চলেছে।

সমাবেশের মাঠে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহবায়ক আমান উল্যাহ আমান, সদস্য সচিব আমিনুল হক, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনুসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ মাঠে রয়েছেন।

এদিকে গোলাপবাগ মাঠের পশ্চিম পাশে সমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজ শুরু করেছেন শ্রমিকরা। মাঠে ৪টি ফটক রয়েছে। এ ফটক দিয়েই প্রবেশ ও বের হওয়া যাবে।

ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী ছাড়াও বিভিন্ন জেলার নেতাকর্মীরা সমাবেশস্থলে এসে পৌছেঁছেন। ঢাকা বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে এবং আটক নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে তারা বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছেন।

তবে সমাবেশে আসার পথে হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন অনেক নেতাকর্মী। ঢাকার বাইরে থেকে আসা অনেকে আটক হয়েছেন বলেও অভিযোগ করেছেন।

চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন যুগান্তরকে বলেন, সড়কে বিভিন্ন প্রতিকূলতা পেরিয়ে সমাবেশস্থলে এসেছি।

ঝিনাইদহ মহেশপুর থানা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা রতন বলেন, ২৬টি মিথ্যা মামলায় আমাকে ৫/৬ বার জেল খাটতে হয়েছে। দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। সম্মেলন সফল করতে এক সপ্তাহ আগে ঢাকায় এসেছি। আসার সময় বহু হয়রানির শিকার হয়েছি।

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

ঢাকায় পৌঁছেছেন বেলজিয়ামের রানি

গণসমাবেশে অংশ নিতে বিএনপির নেতাকর্মীদের ভীড়ে রাতেই গোলাপবাগ মাঠ ভরপুর

প্রকাশের সময় : ১১:৪১:২৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর ২০২২

ঢাকার গোলাপবাগ মাঠে গণসমাবেশ করার অনুমতি পেয়েই সেখানে জড়ো হতে শুরু করেছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। শুক্রবার বিকাল থেকে মিছিল নিয়ে জড়ো হতে শুরু করেন দলটির বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মী। সময় যত বাড়ছে নেতাকর্মীদের সমাগমও বেড়ে চলেছে।

সমাবেশের মাঠে ঢাকা মহানগর উত্তর বিএনপির আহবায়ক আমান উল্যাহ আমান, সদস্য সচিব আমিনুল হক, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির সদস্য সচিব রফিকুল আলম মজনুসহ দলীয় নেতৃবৃন্দ মাঠে রয়েছেন।

এদিকে গোলাপবাগ মাঠের পশ্চিম পাশে সমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজ শুরু করেছেন শ্রমিকরা। মাঠে ৪টি ফটক রয়েছে। এ ফটক দিয়েই প্রবেশ ও বের হওয়া যাবে।

ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মী ছাড়াও বিভিন্ন জেলার নেতাকর্মীরা সমাবেশস্থলে এসে পৌছেঁছেন। ঢাকা বিভাগীয় সমাবেশ সফল করতে এবং আটক নেতাকর্মীদের মুক্তির দাবিতে তারা বিভিন্ন স্লোগান দিচ্ছেন।

তবে সমাবেশে আসার পথে হয়রানির শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন অনেক নেতাকর্মী। ঢাকার বাইরে থেকে আসা অনেকে আটক হয়েছেন বলেও অভিযোগ করেছেন।

চাঁদপুরের কচুয়া উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন যুগান্তরকে বলেন, সড়কে বিভিন্ন প্রতিকূলতা পেরিয়ে সমাবেশস্থলে এসেছি।

ঝিনাইদহ মহেশপুর থানা শ্রমিক দলের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হুদা রতন বলেন, ২৬টি মিথ্যা মামলায় আমাকে ৫/৬ বার জেল খাটতে হয়েছে। দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। সম্মেলন সফল করতে এক সপ্তাহ আগে ঢাকায় এসেছি। আসার সময় বহু হয়রানির শিকার হয়েছি।