শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ১৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ইউক্রেনে নতুন ভয়ংকর মাত্রায় যুদ্ধের হুশিয়ারি রাশিয়ার

সামরিক জোট ন্যাটো যদি ইউক্রেনে যুদ্ধ ট্যাংক এবং দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থার মতো ভারি অস্ত্র দেয় তাহলে চলমান যুদ্ধ ‘অত্যন্ত বিপজ্জনক ভাবে’ বৃদ্ধি পাবে বলে হুশিয়ারি দিয়েছে রাশিয়া। বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এই হুশিয়ারি দেয় ক্রেমলিন। খবর আলজাজিরার।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনীয় ভূখণ্ড দখলে রাশিয়ার আক্রমণ জোরদার হওয়ায় ইউক্রেনের প্রধান দাতা ও মিত্র দেশগুলো কিয়েভকে আরও শক্তিশালী সামরিক সরঞ্জাম পাঠানোর কথা বিবেচনার মধ্যেই বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনের হুশিয়ারিমূলক এই বিবৃতিটি সামনে এলো।

অবশ্য অন্য দেশগুলোর মধ্যে বিশেষ করে জার্মানি কিয়েভকে ট্যাংক সরবরাহ করার জন্য ক্রমবর্ধমান চাপের সম্মুখীন হয়েছে এবং ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি পশ্চিমাদের কাছ থেকে যথেষ্ট ভারী অস্ত্র না পাওয়ার বিষয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন।

মূলত যুক্তরাজ্য গত সপ্তাহে ইউক্রেনে চ্যালেঞ্জার দুটি ট্যাংক পাঠানোর কথা ঘোষণা করায় বার্লিন তার লিওপার্ড দুটি ট্যাংক সরবরাহ করার জন্য বা অন্তত পোল্যান্ডের মতো অন্যদের জন্য তাদের নিজস্ব স্টক থেকে জার্মান তৈরি সরঞ্জাম সরবরাহ করার জন্য ক্রমবর্ধমান চাপের সম্মুখীন হয়েছে।

অন্যদিকে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী এবং রুশ ভূখণ্ডে আঘাত হানতে সক্ষম ভারি অস্ত্র ইউক্রেনকে না দিতে পশ্চিমা দেশগুলোকে বরাবরই চাপ দিয়ে আসছে ক্রেমলিন।

বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সাংবাদিকদের বলেন, ‘সম্ভবত, এটি অত্যন্ত বিপজ্জনক। এর অর্থ হলো- সংঘাতকে সম্পূর্ণ নতুন স্তরে নিয়ে যাওয়া যা অবশ্যই বৈশ্বিক এবং সমগ্র-ইউরোপীয় নিরাপত্তার দৃষ্টিকোণ থেকে ভালো হবে না।’

এদিকে শুক্রবার ইউক্রেনকে সামরিকভাবে সহায়তা করার বিষয়ে একটি নতুন দফা আলোচনার জন্য জার্মানির রামস্টেইনের বিমানঘাঁটিতে মিত্রদের জড়ো করছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রতিরক্ষা প্রধান লয়েড অস্টিন এই সমন্বয় বৈঠকের আয়োজন করছেন।

তিনি বলছেন, ‘দীর্ঘ পথ চলার জন্য ইউক্রেনের আত্মরক্ষার কাজকে সহায়তা করতে আমরা আমাদের ঐক্যবদ্ধ প্রতিশ্রুতি পুনর্নবীকরণ করব’। তবে নির্দিষ্ট নতুন কোনও সরঞ্জামের উল্লেখ তিনি করেননি।

দীর্ঘ ২৪ বছর পর একই মঞ্চে লতিফ সিদ্দিকী ও কাদের সিদ্দিকী

রাহুল-আথিয়া সাত পাকে বাঁধা পড়লেন

খালেদা জিয়া মুচলেকা দিয়েছেন, আ: লীগের সাংসদের এমন দাবি ভিত্তিহীন: মির্জা ফখরুল

ইউক্রেনে নতুন ভয়ংকর মাত্রায় যুদ্ধের হুশিয়ারি রাশিয়ার

প্রকাশের সময় : ০৯:৩৬:৪০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২০ জানুয়ারী ২০২৩

সামরিক জোট ন্যাটো যদি ইউক্রেনে যুদ্ধ ট্যাংক এবং দূরপাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবস্থার মতো ভারি অস্ত্র দেয় তাহলে চলমান যুদ্ধ ‘অত্যন্ত বিপজ্জনক ভাবে’ বৃদ্ধি পাবে বলে হুশিয়ারি দিয়েছে রাশিয়া। বৃহস্পতিবার এক বিবৃতিতে এই হুশিয়ারি দেয় ক্রেমলিন। খবর আলজাজিরার।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ইউক্রেনীয় ভূখণ্ড দখলে রাশিয়ার আক্রমণ জোরদার হওয়ায় ইউক্রেনের প্রধান দাতা ও মিত্র দেশগুলো কিয়েভকে আরও শক্তিশালী সামরিক সরঞ্জাম পাঠানোর কথা বিবেচনার মধ্যেই বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনের হুশিয়ারিমূলক এই বিবৃতিটি সামনে এলো।

অবশ্য অন্য দেশগুলোর মধ্যে বিশেষ করে জার্মানি কিয়েভকে ট্যাংক সরবরাহ করার জন্য ক্রমবর্ধমান চাপের সম্মুখীন হয়েছে এবং ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি পশ্চিমাদের কাছ থেকে যথেষ্ট ভারী অস্ত্র না পাওয়ার বিষয়ে হতাশা প্রকাশ করেছেন।

মূলত যুক্তরাজ্য গত সপ্তাহে ইউক্রেনে চ্যালেঞ্জার দুটি ট্যাংক পাঠানোর কথা ঘোষণা করায় বার্লিন তার লিওপার্ড দুটি ট্যাংক সরবরাহ করার জন্য বা অন্তত পোল্যান্ডের মতো অন্যদের জন্য তাদের নিজস্ব স্টক থেকে জার্মান তৈরি সরঞ্জাম সরবরাহ করার জন্য ক্রমবর্ধমান চাপের সম্মুখীন হয়েছে।

অন্যদিকে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী এবং রুশ ভূখণ্ডে আঘাত হানতে সক্ষম ভারি অস্ত্র ইউক্রেনকে না দিতে পশ্চিমা দেশগুলোকে বরাবরই চাপ দিয়ে আসছে ক্রেমলিন।

বৃহস্পতিবার ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ সাংবাদিকদের বলেন, ‘সম্ভবত, এটি অত্যন্ত বিপজ্জনক। এর অর্থ হলো- সংঘাতকে সম্পূর্ণ নতুন স্তরে নিয়ে যাওয়া যা অবশ্যই বৈশ্বিক এবং সমগ্র-ইউরোপীয় নিরাপত্তার দৃষ্টিকোণ থেকে ভালো হবে না।’

এদিকে শুক্রবার ইউক্রেনকে সামরিকভাবে সহায়তা করার বিষয়ে একটি নতুন দফা আলোচনার জন্য জার্মানির রামস্টেইনের বিমানঘাঁটিতে মিত্রদের জড়ো করছে যুক্তরাষ্ট্র। মার্কিন প্রতিরক্ষা প্রধান লয়েড অস্টিন এই সমন্বয় বৈঠকের আয়োজন করছেন।

তিনি বলছেন, ‘দীর্ঘ পথ চলার জন্য ইউক্রেনের আত্মরক্ষার কাজকে সহায়তা করতে আমরা আমাদের ঐক্যবদ্ধ প্রতিশ্রুতি পুনর্নবীকরণ করব’। তবে নির্দিষ্ট নতুন কোনও সরঞ্জামের উল্লেখ তিনি করেননি।