শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

রাশিয়ার ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে গেল যুক্তরাষ্ট্রের দুটি যুদ্ধবিমান

বাল্টিক সাগরের ওপর দিয়ে উড়ে যাওয়া মার্কিন বিমানবাহিনীর কৌশলগত বোমারু বিমানের ‘রাষ্ট্রীয় সীমান্ত লঙ্ঘন প্রতিরোধে’ মস্কোর এসইউ-২৭ যুদ্ধবিমান বাধা প্রদান করেছে।  মঙ্গলবার রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এই তথ্য জানিয়েছে। খবর এএফপির।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সীমান্ত থেকে বিদেশি সামরিক বিমানগুলোকে ধাওয়া দেওয়ার পর মস্কোর যুদ্ধবিমান তার বিমানঘাঁটিতে ফিরে আসে।’ বিবৃতিতে বলা হয়, এ ক্ষেত্রে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী সীমান্ত লঙ্ঘন প্রতিরোধ করেছে।

এতে আরও বলা হয়, এ সময় ‘রাশিয়ার যুদ্ধবিমানটি আকাশসীমা ব্যবহারের আন্তর্জাতিক আইন কঠোরভাবে মেনে তার অভিযান পরিচালনা করে।’

অন্যদিকে পেন্টাগন মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল প্যাট রাইডার নিশ্চিত করেন যে, মার্কিন যুদ্ধবিমান রাশিয়ার যুদ্ধবিমানের ধাওয়ার শিকার হয়েছে।

তিনি আরও জানান, বি-১ বোমারু বিমানগুলো ‘ইউরোপে একটি দীর্ঘ পরিকল্পিত মহড়ায়’ অংশ নিচ্ছিল। এটি হচ্ছে একই ধরনের ধারাবাহিক ঘটনার সর্বশেষ ঘটনা।

মাত্র এক সপ্তাহ আগে রাশিয়া বলেছিল যে, তাদের আকাশসীমা ‘লঙ্ঘনের’ চেষ্টা করা দুটি বিমানকে তারা বাধা দিয়েছিল। এগুলোর একটি জার্মানির এবং আরেকটি ফ্রান্সের বিমান ছিল।

রাশিয়ার ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে গেল যুক্তরাষ্ট্রের দুটি যুদ্ধবিমান

প্রকাশের সময় : ০২:০৬:২৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৪ মে ২০২৩

বাল্টিক সাগরের ওপর দিয়ে উড়ে যাওয়া মার্কিন বিমানবাহিনীর কৌশলগত বোমারু বিমানের ‘রাষ্ট্রীয় সীমান্ত লঙ্ঘন প্রতিরোধে’ মস্কোর এসইউ-২৭ যুদ্ধবিমান বাধা প্রদান করেছে।  মঙ্গলবার রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় এই তথ্য জানিয়েছে। খবর এএফপির।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় বলেছে, ‘রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় সীমান্ত থেকে বিদেশি সামরিক বিমানগুলোকে ধাওয়া দেওয়ার পর মস্কোর যুদ্ধবিমান তার বিমানঘাঁটিতে ফিরে আসে।’ বিবৃতিতে বলা হয়, এ ক্ষেত্রে রাশিয়ার সামরিক বাহিনী সীমান্ত লঙ্ঘন প্রতিরোধ করেছে।

এতে আরও বলা হয়, এ সময় ‘রাশিয়ার যুদ্ধবিমানটি আকাশসীমা ব্যবহারের আন্তর্জাতিক আইন কঠোরভাবে মেনে তার অভিযান পরিচালনা করে।’

অন্যদিকে পেন্টাগন মুখপাত্র ব্রিগেডিয়ার জেনারেল প্যাট রাইডার নিশ্চিত করেন যে, মার্কিন যুদ্ধবিমান রাশিয়ার যুদ্ধবিমানের ধাওয়ার শিকার হয়েছে।

তিনি আরও জানান, বি-১ বোমারু বিমানগুলো ‘ইউরোপে একটি দীর্ঘ পরিকল্পিত মহড়ায়’ অংশ নিচ্ছিল। এটি হচ্ছে একই ধরনের ধারাবাহিক ঘটনার সর্বশেষ ঘটনা।

মাত্র এক সপ্তাহ আগে রাশিয়া বলেছিল যে, তাদের আকাশসীমা ‘লঙ্ঘনের’ চেষ্টা করা দুটি বিমানকে তারা বাধা দিয়েছিল। এগুলোর একটি জার্মানির এবং আরেকটি ফ্রান্সের বিমান ছিল।