বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

খুলনায় স্বর্ণ ছিনতাইয়ের ঘটনায় এসআই সহ ৩ পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তার

খুলনায় স্বর্ণ ছিনতাইয়ের ঘটনায় এসআই, এএসআইসহ তিন পুলিশ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একই সাথে ভারতে সোনা পাচারকারী ব্যক্তিকেও গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের লবণচরা থানা পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলো, খুলনার খালিশপুর এলাকার স্বর্ণ পাচারকারী বাসুদেব দে, লবণচরা থানার এসআই মোস্তফা জামান, এএসআই আহসান হাবীব ও কনস্টেবল মুরাদ। তারা তিনজনই লবণচরা থানায় কর্মরত ছিলেন। তাদের বিরুদ্ধে লবণচরা থানার এসআই মোকলুসুর রহমান বাদী হয়ে মামলা করেছেন। মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওই থানার ওসি হাফিজুর রহমান।
মামলা সূত্রে জানা যায়, বাসুদেব দে একজন পেশাদার স্বর্ণ পাচারকারী। শুক্রবার দুপুরে তিনি ছয়টি স্বর্ণের বার ভারতে পাচারের জন্য টুঙ্গীপাড়া পরিবহনযোগে সাতক্ষীরায় যাচ্ছিলেন। ওই পরিবহনটি খুলনার সাচিবুনিয়া মোড়ে থামিয়ে তল্লাশি চালায় অভিযুক্ত তিন পুলিশ সদস্য। এক পর্যায়ে পরিবহন থেকে বাসুদেব দে নেমে পালাবার চেষ্টা করেন। তখন তিন পুলিশ সদস্য তাকে আটক করে ছয়টি স্বর্ণের বারের মধ্যে তিনটি ছিনিয়ে নেন। বাকি তিনটি তাকে দিয়ে দেয় এবং মোটরসাইকেলে তাকে বিভিন্ন স্থানে ঘুরিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। ছিনতাইকৃত তিনটি স্বর্ণ বারের মূল্য প্রায় ৩০ লাখ টাকা।
মামলায় আরও জানা যায়, পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট অভিযোগ করেন বসুদেব। এরপর শুক্রবার সন্ধ্যায় ওই তিন পুলিশ সদস্যকে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। তখন অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয়া হয়।
লবণচরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, স্বর্ণ পাচারকারীকে বিশেষ ক্ষমতা আইনে ও অভিযুক্ত তিন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে পেনাল কোডের ৩৯২ ধারায় মামলার পর গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। শনিবার তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

মৌলভীবাজারে প্রতিপক্ষের হামলার শিকার শিশু মিনহাজ বাদ পড়েনি 

খুলনায় স্বর্ণ ছিনতাইয়ের ঘটনায় এসআই সহ ৩ পুলিশ সদস্য গ্রেপ্তার

প্রকাশের সময় : ০৭:১০:০১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ জানুয়ারী ২০২৪

খুলনায় স্বর্ণ ছিনতাইয়ের ঘটনায় এসআই, এএসআইসহ তিন পুলিশ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। একই সাথে ভারতে সোনা পাচারকারী ব্যক্তিকেও গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। শুক্রবার রাতে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের লবণচরা থানা পুলিশ তাদের গ্রেপ্তার করে।
গ্রেপ্তারকৃতরা হলো, খুলনার খালিশপুর এলাকার স্বর্ণ পাচারকারী বাসুদেব দে, লবণচরা থানার এসআই মোস্তফা জামান, এএসআই আহসান হাবীব ও কনস্টেবল মুরাদ। তারা তিনজনই লবণচরা থানায় কর্মরত ছিলেন। তাদের বিরুদ্ধে লবণচরা থানার এসআই মোকলুসুর রহমান বাদী হয়ে মামলা করেছেন। মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ওই থানার ওসি হাফিজুর রহমান।
মামলা সূত্রে জানা যায়, বাসুদেব দে একজন পেশাদার স্বর্ণ পাচারকারী। শুক্রবার দুপুরে তিনি ছয়টি স্বর্ণের বার ভারতে পাচারের জন্য টুঙ্গীপাড়া পরিবহনযোগে সাতক্ষীরায় যাচ্ছিলেন। ওই পরিবহনটি খুলনার সাচিবুনিয়া মোড়ে থামিয়ে তল্লাশি চালায় অভিযুক্ত তিন পুলিশ সদস্য। এক পর্যায়ে পরিবহন থেকে বাসুদেব দে নেমে পালাবার চেষ্টা করেন। তখন তিন পুলিশ সদস্য তাকে আটক করে ছয়টি স্বর্ণের বারের মধ্যে তিনটি ছিনিয়ে নেন। বাকি তিনটি তাকে দিয়ে দেয় এবং মোটরসাইকেলে তাকে বিভিন্ন স্থানে ঘুরিয়ে ছেড়ে দেয়া হয়। ছিনতাইকৃত তিনটি স্বর্ণ বারের মূল্য প্রায় ৩০ লাখ টাকা।
মামলায় আরও জানা যায়, পরবর্তীতে বিষয়টি নিয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট অভিযোগ করেন বসুদেব। এরপর শুক্রবার সন্ধ্যায় ওই তিন পুলিশ সদস্যকে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেন। তখন অভিযুক্ত তিনজনকে গ্রেপ্তারের নির্দেশ দেয়া হয়।
লবণচরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাফিজুর রহমান বলেন, স্বর্ণ পাচারকারীকে বিশেষ ক্ষমতা আইনে ও অভিযুক্ত তিন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে পেনাল কোডের ৩৯২ ধারায় মামলার পর গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছে। শনিবার তাদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।