মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ধর্ষণের প্রমাণ লুকাতে শহরের সব পত্রিকা চুরি!

পুলিশপ্রধানের বাসায় আয়োজিত এক পার্টিতে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরী। জন্মদিন উদযাপনের উদ্দেশ্যে আয়োজিত পার্টিতে সবাই মদ ও মাদক গ্রহণ করেছেন বলে পুলিশের প্রতিবেদনে উঠে আসে। সে সময় ভুক্তভোগী কিশোরী মাত্রাতিরিক্ত মদপান করে বেহুঁশ হয়ে গেলে তাকে ধর্ষণ করে খোদ পুলিশপ্রধানের ছেলে।

আমেরিকার কলোরাডো অঙ্গরাজ্যের আউয়ারে কাউন্টিতে এই ঘটনা ঘটেছে। আর এ ঘটনার খবর প্রকাশিত হয় আউয়ারে কাউন্টি প্লেইনডিলার নামক সাপ্তাহিক একটি পত্রিকায়। সেই সংবাদ যাতে মানুষের কাছে না পৌঁছায় তাই পত্রিকাটির সব কপি চুরি করে সংশ্লিষ্ট দুর্বৃত্তরা। আদালতের নথি অনুযায়ী, গত বছরের মে মাসে আউয়ারে কাউন্টি পুলিশপ্রধানের বাসায় এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ পার্টি চলার সময় পুলিশপ্রধান ঘুমাচ্ছিলেন।

এ সময় পুলিশপ্রধানের অভিযুক্ত ছেলের দুই বন্ধুদের বিরুদ্ধেও ধর্ষণের অভিযোগ করেন ওই কিশোরী। আদালতের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঘটনার সময় অভিযুক্তদের বয়স ছিল ১৭, ১৮ ও ১৯ বছর। অন্যদিকে ভুক্তভোগী কিশোরীর বয়স ছিল ১৭ বছর।

পত্রিকাটির মালিক ও প্রকাশক মাইক উইগিন্স এ ঘটনার শেষ দেখে ছাড়বেন বলে মাইক্রো ব্লগিং সাইট এক্সে দেওয়া একটি পোস্টে বলেন, ‘আপনি যদি আমাদের চুপ করিয়ে দিতে বা ভয় দেখাবেন বলে আশা করেন, তাহলে আপনি চরম ব্যর্থ হয়েছেন। কে এই অপকর্ম করেছে, আমরা খুঁজে বের করব। এ খবর নিয়ে আরও কপি ছাপা হবে।’

এদিকে তাক থেকে সব পত্রিকা চুরি হয়ে যাওয়ায় পত্রিকা কর্তৃপক্ষ খবরটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করে। এমনকি তারা তাদের ওয়েবসাইট থেকে পেওয়াল তুলে নেয়, যাতে সবাই বিনামূল্যে খবরটি পড়তে পারেন।

অবশ্য পত্রিকাটির কপি চুরি যাওয়ার পরদিনই অজ্ঞাত কেউ চুরি যাওয়া অনেক কপি ফেরত দিয়ে যান। এ ছাড়া পত্রিকাটির শুভাকাঙ্ক্ষীরা প্রায় ২ হাজার ডলার অনুদান দিয়েছেন।

ধর্ষণের প্রমাণ লুকাতে শহরের সব পত্রিকা চুরি!

প্রকাশের সময় : ০৯:৫২:১১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২৪

পুলিশপ্রধানের বাসায় আয়োজিত এক পার্টিতে ধর্ষণের শিকার হয়েছেন ১৭ বছর বয়সী এক কিশোরী। জন্মদিন উদযাপনের উদ্দেশ্যে আয়োজিত পার্টিতে সবাই মদ ও মাদক গ্রহণ করেছেন বলে পুলিশের প্রতিবেদনে উঠে আসে। সে সময় ভুক্তভোগী কিশোরী মাত্রাতিরিক্ত মদপান করে বেহুঁশ হয়ে গেলে তাকে ধর্ষণ করে খোদ পুলিশপ্রধানের ছেলে।

আমেরিকার কলোরাডো অঙ্গরাজ্যের আউয়ারে কাউন্টিতে এই ঘটনা ঘটেছে। আর এ ঘটনার খবর প্রকাশিত হয় আউয়ারে কাউন্টি প্লেইনডিলার নামক সাপ্তাহিক একটি পত্রিকায়। সেই সংবাদ যাতে মানুষের কাছে না পৌঁছায় তাই পত্রিকাটির সব কপি চুরি করে সংশ্লিষ্ট দুর্বৃত্তরা। আদালতের নথি অনুযায়ী, গত বছরের মে মাসে আউয়ারে কাউন্টি পুলিশপ্রধানের বাসায় এ ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। এ পার্টি চলার সময় পুলিশপ্রধান ঘুমাচ্ছিলেন।

এ সময় পুলিশপ্রধানের অভিযুক্ত ছেলের দুই বন্ধুদের বিরুদ্ধেও ধর্ষণের অভিযোগ করেন ওই কিশোরী। আদালতের প্রতিবেদন অনুযায়ী, ঘটনার সময় অভিযুক্তদের বয়স ছিল ১৭, ১৮ ও ১৯ বছর। অন্যদিকে ভুক্তভোগী কিশোরীর বয়স ছিল ১৭ বছর।

পত্রিকাটির মালিক ও প্রকাশক মাইক উইগিন্স এ ঘটনার শেষ দেখে ছাড়বেন বলে মাইক্রো ব্লগিং সাইট এক্সে দেওয়া একটি পোস্টে বলেন, ‘আপনি যদি আমাদের চুপ করিয়ে দিতে বা ভয় দেখাবেন বলে আশা করেন, তাহলে আপনি চরম ব্যর্থ হয়েছেন। কে এই অপকর্ম করেছে, আমরা খুঁজে বের করব। এ খবর নিয়ে আরও কপি ছাপা হবে।’

এদিকে তাক থেকে সব পত্রিকা চুরি হয়ে যাওয়ায় পত্রিকা কর্তৃপক্ষ খবরটি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পোস্ট করে। এমনকি তারা তাদের ওয়েবসাইট থেকে পেওয়াল তুলে নেয়, যাতে সবাই বিনামূল্যে খবরটি পড়তে পারেন।

অবশ্য পত্রিকাটির কপি চুরি যাওয়ার পরদিনই অজ্ঞাত কেউ চুরি যাওয়া অনেক কপি ফেরত দিয়ে যান। এ ছাড়া পত্রিকাটির শুভাকাঙ্ক্ষীরা প্রায় ২ হাজার ডলার অনুদান দিয়েছেন।