বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

সকালে কেন সবচেয়ে বেশি হার্ট অ্যাটাক হয়?

যে কোনও বয়সেই হার্ট অ্যাটাক হতে পারে। কিন্তু, সকালের দিকে হার্ট অ্যাটাক-এর ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি থাকে।

ইদানীং ব্যাপক হারে বেড়েছে হার্ট অ্যাটাক। কেকে থেকে সিদ্ধার্থ শুক্লার মত লেবেব্রিটি বলি হয়েছেন হার্ট অ্যাটাকের। শুধু বয়স্ক নয়, তরুণ প্রজন্মর মধ্যেও এখন লক্ষণীও ভাবে বেড়েছে হার্ট ফেলিওর। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা(হু)-র মতে, বর্তমানে বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর প্রধান কারণ মূলত হৃদরোগ।

কেন ইদানীং বাড়ছে হার্ট অ্যাটাক? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অস্বাস্থ্যকর খাওয়াদাওয়া, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, লাগামছাড়া এক্সারসাইজ, মানসিক উদ্বেগ-ই প্রধাণত হার্টের সমস্যার সৃষ্টি করছে। ডায়াবিটিস, উচ্চ রক্তচাপ এবং নিয়মিত ধূমপান এবং মদ্যপানের ফলে কম বয়সেই হার্ট অ্যাটাক হতে পারে। যে কোনও বয়সেই হার্ট অ্যাটাক হতে পারে। কিন্তু, সকালের দিকে হার্ট অ্যাটাক-এর ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি থাকে।

কেন সকালে হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা বেশি? গবেষণায় দেখা গিয়েছে, শরীরের হরমোনের নিঃসরণের ওঠা-নামা হার্ট অ্যাটাকের অন্যতম কারণ। ভোরের দিকে শরীরে সবচেয়ে বেশি সাইটোকিনিন হরমোন নিঃসরণ হয়। ফলে হার্ট দুর্বল থাকলে ‘অ্যারিথমিয়া’ নামক অবস্থার সৃষ্টি হয়ে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বেড়ে যাতে পারে।

‘ওরেগন হেলথ অ্যান্ড সায়েন্স ইউনিভার্সিটি’-র গবেষকরা জানাচ্ছেন, দিনের বেলায় শরীর নানা কাজে অ্যাক্টিভ থাকে। সারাদিন কাআজ করতে করতে শরীরের সব এনার্জি ব্যয় হয়ে যায়। রাতে শরীর ভিতর থেকে ক্লান্ত হয়ে পড়ে। ফলে ঘুম পায়। শরীর যখন ভিতর থেকে বিশ্রাম নেয়, তখন ব্লাড প্রেশার ও হার্ট বিট সবচেয়ে বেশি থাকে।

সকালে রক্তের ‘পিএআই-১’ কোষগুলি অধিক সক্রিয় থাকে। এই সক্রিয়তার কারণে রক্তজমাট বেঁধে যায়। হার্ট অ্যাটাকের অন্যতম প্রধান কারণ এটি।

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ভোর ৪টে থেকে সকাল ১০টার মধ্যে কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হওয়ার আশঙ্কা সবচেয়ে বেশি। এই সময়টাতে অ্যাড্রিনালিন গ্রন্থি থেকে অ্যাড্রিনালিন ক্ষরণ বেড়ে যাওয়ার ফলে করোনারি ধমনীতে চাপ সৃষ্টি হয়। ফলে হার্ট অ্যাটের ঝুঁকি বাড়ে।

হৃদরোগ চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি এড়াতে দিনে ৭-৮ ঘণ্টার পর্যাপ্ত ঘুম জরুরি। স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে, নিয়মিত ওয়ার্ক-আউট করতে হবে। অ্যাক্টিভ থাকতে হবে।

মৌলভীবাজারে প্রতিপক্ষের হামলার শিকার শিশু মিনহাজ বাদ পড়েনি 

সকালে কেন সবচেয়ে বেশি হার্ট অ্যাটাক হয়?

প্রকাশের সময় : ১০:০৭:৪৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২৪

যে কোনও বয়সেই হার্ট অ্যাটাক হতে পারে। কিন্তু, সকালের দিকে হার্ট অ্যাটাক-এর ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি থাকে।

ইদানীং ব্যাপক হারে বেড়েছে হার্ট অ্যাটাক। কেকে থেকে সিদ্ধার্থ শুক্লার মত লেবেব্রিটি বলি হয়েছেন হার্ট অ্যাটাকের। শুধু বয়স্ক নয়, তরুণ প্রজন্মর মধ্যেও এখন লক্ষণীও ভাবে বেড়েছে হার্ট ফেলিওর। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা(হু)-র মতে, বর্তমানে বিশ্বব্যাপী মৃত্যুর প্রধান কারণ মূলত হৃদরোগ।

কেন ইদানীং বাড়ছে হার্ট অ্যাটাক? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, অস্বাস্থ্যকর খাওয়াদাওয়া, অনিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন, লাগামছাড়া এক্সারসাইজ, মানসিক উদ্বেগ-ই প্রধাণত হার্টের সমস্যার সৃষ্টি করছে। ডায়াবিটিস, উচ্চ রক্তচাপ এবং নিয়মিত ধূমপান এবং মদ্যপানের ফলে কম বয়সেই হার্ট অ্যাটাক হতে পারে। যে কোনও বয়সেই হার্ট অ্যাটাক হতে পারে। কিন্তু, সকালের দিকে হার্ট অ্যাটাক-এর ঝুঁকি সবচেয়ে বেশি থাকে।

কেন সকালে হার্ট অ্যাটাকের আশঙ্কা বেশি? গবেষণায় দেখা গিয়েছে, শরীরের হরমোনের নিঃসরণের ওঠা-নামা হার্ট অ্যাটাকের অন্যতম কারণ। ভোরের দিকে শরীরে সবচেয়ে বেশি সাইটোকিনিন হরমোন নিঃসরণ হয়। ফলে হার্ট দুর্বল থাকলে ‘অ্যারিথমিয়া’ নামক অবস্থার সৃষ্টি হয়ে হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি বেড়ে যাতে পারে।

‘ওরেগন হেলথ অ্যান্ড সায়েন্স ইউনিভার্সিটি’-র গবেষকরা জানাচ্ছেন, দিনের বেলায় শরীর নানা কাজে অ্যাক্টিভ থাকে। সারাদিন কাআজ করতে করতে শরীরের সব এনার্জি ব্যয় হয়ে যায়। রাতে শরীর ভিতর থেকে ক্লান্ত হয়ে পড়ে। ফলে ঘুম পায়। শরীর যখন ভিতর থেকে বিশ্রাম নেয়, তখন ব্লাড প্রেশার ও হার্ট বিট সবচেয়ে বেশি থাকে।

সকালে রক্তের ‘পিএআই-১’ কোষগুলি অধিক সক্রিয় থাকে। এই সক্রিয়তার কারণে রক্তজমাট বেঁধে যায়। হার্ট অ্যাটাকের অন্যতম প্রধান কারণ এটি।

গবেষণায় দেখা গিয়েছে, ভোর ৪টে থেকে সকাল ১০টার মধ্যে কার্ডিয়াক অ্যারেস্ট হওয়ার আশঙ্কা সবচেয়ে বেশি। এই সময়টাতে অ্যাড্রিনালিন গ্রন্থি থেকে অ্যাড্রিনালিন ক্ষরণ বেড়ে যাওয়ার ফলে করোনারি ধমনীতে চাপ সৃষ্টি হয়। ফলে হার্ট অ্যাটের ঝুঁকি বাড়ে।

হৃদরোগ চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, হার্ট অ্যাটাকের ঝুঁকি এড়াতে দিনে ৭-৮ ঘণ্টার পর্যাপ্ত ঘুম জরুরি। স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে, নিয়মিত ওয়ার্ক-আউট করতে হবে। অ্যাক্টিভ থাকতে হবে।