মঙ্গলবার, ২১ মে ২০২৪, ৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে ফিলিস্তিনিদের সংঘর্ষ

গাজায় অব্যাহতভাবে হামলা চালিয়ে আসছে ইসরায়েলি সেনারা। দেশটির সেনাদের হামলার কারণে একের পর এক বসতি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হচ্ছে। এবার ইসরায়েলি সেনাদের সঙ্গে পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনিদের সংঘর্ষ হয়েছে। শুক্রবার ( ২৬ জানুয়ারি) আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ সেনাদের সাথে ইসরায়েলি বাহিনীর সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। গত রাতে পশ্চিম তীরের তুবাস শহরে এ সংঘর্ষ ঘটে। সংঘর্ষে ইসরায়েলি স্নাইপার ও গানশটের ব্যবহার করা হয়েছে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম ওয়াফা জানিয়েছে, গতকাল বিকেলে অপহরণ করা এক শিশুকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেমের পশ্চিমাঞ্চল থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

এদিকে গাজায় ইসরায়েলি বাহিনী গাজায় গণহত্যা চালিয়েছে বলে আন্তর্জাতিক আদালতে অভিযোগ করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। দেশটির অভিযোগের ভিত্তিতে গাজায় জরুরি পদক্ষেপের আদেশ দেওয়া হবে কিনা তা নিয়ে আজ রায় ঘোষণা করা হবে।

আদালতের এ রায়ের সিদ্ধান্তে আসার জন্য দুই সপ্তাহ আগে উভয়পক্ষের শুনানি করেছে। যেখানে ইসরায়েল এ অভিযোগ তীব্রভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে। ইসরায়েলর বিরুদ্ধে আদালতের এ রায় যদিও বাস্তবিকভাবে প্রয়োগযোগ্য হবে না, তবে এ রায়ের রাজনৈতিক গুরুত্ব রয়েছে।

প্রতিবদেনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকা আন্তর্জাতিক আদালতের কাছে ৯টি আরজি জানিয়েছে। গাজায় সব ধরনের সামরিক কার্যক্রম বন্ধের পাশাপাশি গাজায় মানবিক সহায়তা সরবরাহের পথ স্বাভাবিক রাখতে ইসরায়েলকে নির্দেশ দেওয়ারও অনুরোধ জানানো হয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী নালেডি পান্ডর নেদারল্যান্ডসের দ্য হেগে অবস্থিত আইসিজেতে আজ উপস্থিত থাকবেন। ইসরায়েল গাজায় গণহত্যা চালিয়েছে কি না, সে প্রশ্নের সুরাহা আজ করবেন না আইসিজে। শুধু জরুরি পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হবে।

ইসরায়েল প্রায়ই আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনাল ও জাতিসংঘের তদন্ত বর্জন করে থাকে। তাদের দাবি, এগুলো পক্ষপাতদুষ্ট।

পশ্চিম তীরে ইসরায়েলি বাহিনীর সঙ্গে ফিলিস্তিনিদের সংঘর্ষ

প্রকাশের সময় : ০৩:৪৭:০৯ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২৪

গাজায় অব্যাহতভাবে হামলা চালিয়ে আসছে ইসরায়েলি সেনারা। দেশটির সেনাদের হামলার কারণে একের পর এক বসতি ধ্বংসস্তূপে পরিণত হচ্ছে। এবার ইসরায়েলি সেনাদের সঙ্গে পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনিদের সংঘর্ষ হয়েছে। শুক্রবার ( ২৬ জানুয়ারি) আলজাজিরার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ সেনাদের সাথে ইসরায়েলি বাহিনীর সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। গত রাতে পশ্চিম তীরের তুবাস শহরে এ সংঘর্ষ ঘটে। সংঘর্ষে ইসরায়েলি স্নাইপার ও গানশটের ব্যবহার করা হয়েছে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

ফিলিস্তিনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম ওয়াফা জানিয়েছে, গতকাল বিকেলে অপহরণ করা এক শিশুকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। অধিকৃত পূর্ব জেরুজালেমের পশ্চিমাঞ্চল থেকে তাকে উদ্ধার করা হয়।

এদিকে গাজায় ইসরায়েলি বাহিনী গাজায় গণহত্যা চালিয়েছে বলে আন্তর্জাতিক আদালতে অভিযোগ করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা। দেশটির অভিযোগের ভিত্তিতে গাজায় জরুরি পদক্ষেপের আদেশ দেওয়া হবে কিনা তা নিয়ে আজ রায় ঘোষণা করা হবে।

আদালতের এ রায়ের সিদ্ধান্তে আসার জন্য দুই সপ্তাহ আগে উভয়পক্ষের শুনানি করেছে। যেখানে ইসরায়েল এ অভিযোগ তীব্রভাবে প্রত্যাখ্যান করেছে। ইসরায়েলর বিরুদ্ধে আদালতের এ রায় যদিও বাস্তবিকভাবে প্রয়োগযোগ্য হবে না, তবে এ রায়ের রাজনৈতিক গুরুত্ব রয়েছে।

প্রতিবদেনে বলা হয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকা আন্তর্জাতিক আদালতের কাছে ৯টি আরজি জানিয়েছে। গাজায় সব ধরনের সামরিক কার্যক্রম বন্ধের পাশাপাশি গাজায় মানবিক সহায়তা সরবরাহের পথ স্বাভাবিক রাখতে ইসরায়েলকে নির্দেশ দেওয়ারও অনুরোধ জানানো হয়েছে।

দক্ষিণ আফ্রিকা সরকারের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী নালেডি পান্ডর নেদারল্যান্ডসের দ্য হেগে অবস্থিত আইসিজেতে আজ উপস্থিত থাকবেন। ইসরায়েল গাজায় গণহত্যা চালিয়েছে কি না, সে প্রশ্নের সুরাহা আজ করবেন না আইসিজে। শুধু জরুরি পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত ঘোষণা করা হবে।

ইসরায়েল প্রায়ই আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনাল ও জাতিসংঘের তদন্ত বর্জন করে থাকে। তাদের দাবি, এগুলো পক্ষপাতদুষ্ট।