বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

মেটা-এক্স-টিকটক প্রধানদের তুলোধুনা

সামাজিক মাধ্যমে শিশুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে না পারায় মেটা, টিকটক ও এক্সের মতো বড় বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের (সিইউও) তুলোধুনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটররা। বুধবার (৩১ জানুয়ারি) মার্কিন কংগ্রেস ভবনে এক শুনানিতে তাদের একহাত নেন তারা। খবর আলজাজিরার।

মার্কিন বাবা-মা এবং আইনপ্রণেতাদের অভিযোগ, সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারী শিশু এবং কিশোর-কিশোরীদের যৌন নিপীড়ক ও আত্মহত্যা প্রতিরোধের মতো বিষয়ে যথেষ্ট কাজ করছে না প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো। এ নিয়ে তাদের ক্ষোভের মাঝে বুধবার সিনেটের বিচার বিভাগীয় কমিটির সামনে সাক্ষ্য দিয়েছেন সামাজিক মাধ্যম প্রতিষ্ঠানের নির্বাহীরা।

কমিটির চেয়ারম্যান ডিক ডারবিন বলেন, আমাদের বাচ্চারা অনলাইনে যেসব বিপদের সম্মুখীন হয় তার জন্য তারা দায়ী। তাদের ডিজাইন পছন্দক্রম, আস্থা ও নিরাপত্তায় পর্যাপ্ত বিনিয়োগের ব্যর্থতা, মৌলিক নিরাপত্তাকে পাশ কাটিয়ে মুনাফার ক্রমাগত চেষ্টা আমাদের সন্তান ও নাতি-নাতনিদের ঝুঁকির মধ্যে ফেলেছে।

রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম বলেছেন, ‘জনাব, জাকারবার্গ, আপনিসহ আমাদের সামনে যেসব কোম্পানি রয়েছে, আমি জানি আপনি এমনটা বলতে চান না, কিন্তু আপনাদের হাতে রক্ত লেগে আছে। আপনাদের এমন একটি পণ্য আছে যা মানুষ হত্যা করছে।’ ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামের প্যারেন্ট কোম্পানি মেটার সিইও মার্ক জাকারবার্গের উদ্দেশে তিনি এমন কথা বলেছেন।

এ সময় জকারবার্গ, এক্স-এর সিইও লিন্ডা ইয়াকারিনো, স্ন্যাপচ্যাটের সিইও ইভান স্পিগেল, টিকটকের সিইও শউ জি চিউ ও ডিসকর্ডের সিইও জেসন সিট্রনের কমিটির সামনে নিজ নিজ বয়ান পেশ করেন।

মৌলভীবাজারে প্রতিপক্ষের হামলার শিকার শিশু মিনহাজ বাদ পড়েনি 

মেটা-এক্স-টিকটক প্রধানদের তুলোধুনা

প্রকাশের সময় : ০৯:৪৩:২৯ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

সামাজিক মাধ্যমে শিশুদের সুরক্ষা নিশ্চিত করতে না পারায় মেটা, টিকটক ও এক্সের মতো বড় বড় প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের (সিইউও) তুলোধুনা করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটররা। বুধবার (৩১ জানুয়ারি) মার্কিন কংগ্রেস ভবনে এক শুনানিতে তাদের একহাত নেন তারা। খবর আলজাজিরার।

মার্কিন বাবা-মা এবং আইনপ্রণেতাদের অভিযোগ, সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারী শিশু এবং কিশোর-কিশোরীদের যৌন নিপীড়ক ও আত্মহত্যা প্রতিরোধের মতো বিষয়ে যথেষ্ট কাজ করছে না প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানগুলো। এ নিয়ে তাদের ক্ষোভের মাঝে বুধবার সিনেটের বিচার বিভাগীয় কমিটির সামনে সাক্ষ্য দিয়েছেন সামাজিক মাধ্যম প্রতিষ্ঠানের নির্বাহীরা।

কমিটির চেয়ারম্যান ডিক ডারবিন বলেন, আমাদের বাচ্চারা অনলাইনে যেসব বিপদের সম্মুখীন হয় তার জন্য তারা দায়ী। তাদের ডিজাইন পছন্দক্রম, আস্থা ও নিরাপত্তায় পর্যাপ্ত বিনিয়োগের ব্যর্থতা, মৌলিক নিরাপত্তাকে পাশ কাটিয়ে মুনাফার ক্রমাগত চেষ্টা আমাদের সন্তান ও নাতি-নাতনিদের ঝুঁকির মধ্যে ফেলেছে।

রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম বলেছেন, ‘জনাব, জাকারবার্গ, আপনিসহ আমাদের সামনে যেসব কোম্পানি রয়েছে, আমি জানি আপনি এমনটা বলতে চান না, কিন্তু আপনাদের হাতে রক্ত লেগে আছে। আপনাদের এমন একটি পণ্য আছে যা মানুষ হত্যা করছে।’ ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামের প্যারেন্ট কোম্পানি মেটার সিইও মার্ক জাকারবার্গের উদ্দেশে তিনি এমন কথা বলেছেন।

এ সময় জকারবার্গ, এক্স-এর সিইও লিন্ডা ইয়াকারিনো, স্ন্যাপচ্যাটের সিইও ইভান স্পিগেল, টিকটকের সিইও শউ জি চিউ ও ডিসকর্ডের সিইও জেসন সিট্রনের কমিটির সামনে নিজ নিজ বয়ান পেশ করেন।