রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন, ২০০ আসনে এগিয়ে ইমরানের সমর্থকরা

পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচনে ২৬৫ আসনের মধ্যে এখন পর্যন্ত ২০০ আসনের বেসরকারি ফল জানা গেছে। প্রাপ্ত ফলে দেখা যাচ্ছে, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা এগিয়ে রয়েছেন।

পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম জিওটিভির লাইভ আপডেট থেকে জানা গেছে, এ পর্যন্ত প্রাপ্ত ২০০ আসনের মধ্যে পিটিআই সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা পেয়েছেন ৮৬টি আসন। অন্যদিকে, সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) পেয়েছে ৫৯টি আসন, আর সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর ছেলে বিলাওয়াল ভুট্টো-জারদারির দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) পেয়েছে ৪৪টি আসন।

মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট-পাকিস্তান (এমকিউএম-পি) পেয়েছে সাতটি আসন। ইসতেহখাম-ই-পাকিস্তান পার্টি (আইপিপি) পেয়েছে দুটি আসন। পাকিস্তান মুসলিম লীগ (পিএমএল) পেয়েছে মাত্র একটি আসন। একটি আসন পেয়েছে ধর্মভিত্তিক আরেক দল জমিয়তে-উলামায়ে-ইসলাম (জেএফই-এফ)। অন্যান্য দল বাকি পাঁচটি আসন পেয়েছে।

জিওটিভি ২০০ আসনের ফল জানালেও পাকিস্তানের আরেক সংবাদমাধ্যম দ্য ডন জানিয়েছে ৯৩টি আসনের ফল। এর মধ্যে, পিটিআই সমর্থিতরা পেয়েছেন ৩৬টি আসন, পিএমএল-এন পেয়েছে ৩১টি আসন, আর পিপিপি পেয়েছে ১৮টি আসন। জেএফই-এফ পেয়েছে একটি আসন, বাকি সাতটি আসন পেয়েছে অন্যান্যরা।

পাকিস্তানে জাতীয় পরিষদে ২৬৬ আসনে সরাসরি ভোট হয়। নির্বাচনের আগে দুর্বৃত্তের গুলিতে এক প্রার্থী নিহত হওয়ায় একটি আসনে ভোট স্থগিত করা হয়েছিল আগেই। তাই গতকাল বৃহস্পতিবার ভোট হয়েছে ২৬৫ আসনে।

কোনো দল এককভাবে সরকার গঠন করতে চাইলে এবার ১৩৪টি আসনে জিততে হবে। তবে বিশ্লেষকেরা বলছেন, পাকিস্তানে এবার কোনো দল নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নাও পেতে পারে।

পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচন, ২০০ আসনে এগিয়ে ইমরানের সমর্থকরা

প্রকাশের সময় : ০৮:৩০:২৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

পাকিস্তানে সাধারণ নির্বাচনে ২৬৫ আসনের মধ্যে এখন পর্যন্ত ২০০ আসনের বেসরকারি ফল জানা গেছে। প্রাপ্ত ফলে দেখা যাচ্ছে, সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের দল পাকিস্তান তেহরিক-ই-ইনসাফ (পিটিআই) সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা এগিয়ে রয়েছেন।

পাকিস্তানি সংবাদমাধ্যম জিওটিভির লাইভ আপডেট থেকে জানা গেছে, এ পর্যন্ত প্রাপ্ত ২০০ আসনের মধ্যে পিটিআই সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থীরা পেয়েছেন ৮৬টি আসন। অন্যদিকে, সাবেক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের পাকিস্তান মুসলিম লীগ-নওয়াজ (পিএমএল-এন) পেয়েছে ৫৯টি আসন, আর সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেনজির ভুট্টোর ছেলে বিলাওয়াল ভুট্টো-জারদারির দল পাকিস্তান পিপলস পার্টি (পিপিপি) পেয়েছে ৪৪টি আসন।

মুত্তাহিদা কওমি মুভমেন্ট-পাকিস্তান (এমকিউএম-পি) পেয়েছে সাতটি আসন। ইসতেহখাম-ই-পাকিস্তান পার্টি (আইপিপি) পেয়েছে দুটি আসন। পাকিস্তান মুসলিম লীগ (পিএমএল) পেয়েছে মাত্র একটি আসন। একটি আসন পেয়েছে ধর্মভিত্তিক আরেক দল জমিয়তে-উলামায়ে-ইসলাম (জেএফই-এফ)। অন্যান্য দল বাকি পাঁচটি আসন পেয়েছে।

জিওটিভি ২০০ আসনের ফল জানালেও পাকিস্তানের আরেক সংবাদমাধ্যম দ্য ডন জানিয়েছে ৯৩টি আসনের ফল। এর মধ্যে, পিটিআই সমর্থিতরা পেয়েছেন ৩৬টি আসন, পিএমএল-এন পেয়েছে ৩১টি আসন, আর পিপিপি পেয়েছে ১৮টি আসন। জেএফই-এফ পেয়েছে একটি আসন, বাকি সাতটি আসন পেয়েছে অন্যান্যরা।

পাকিস্তানে জাতীয় পরিষদে ২৬৬ আসনে সরাসরি ভোট হয়। নির্বাচনের আগে দুর্বৃত্তের গুলিতে এক প্রার্থী নিহত হওয়ায় একটি আসনে ভোট স্থগিত করা হয়েছিল আগেই। তাই গতকাল বৃহস্পতিবার ভোট হয়েছে ২৬৫ আসনে।

কোনো দল এককভাবে সরকার গঠন করতে চাইলে এবার ১৩৪টি আসনে জিততে হবে। তবে বিশ্লেষকেরা বলছেন, পাকিস্তানে এবার কোনো দল নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা নাও পেতে পারে।