রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে নাজিম উদ্দিন চৌধুরী সভাপতি ও মিন্টু সাধারণ সম্পাদক

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন চৌধুরী সভাপতি ও এএসএম বজলুর রশিদ (মিন্টু) সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। গত রবিবার দিবাগত রাত ৩ টা ৪০ মিনিটে ভোট গণনাশেষে এ ফলাফল ঘোষণা করা হয়।
ঘোষিত ফলাফলে দেখা যায়, ঐক্য পরিষদ মনোনীত মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন চৌধুরী ২ হাজার ৬৮২ ভোট পেয়ে সভাপতি নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ মনোনীত মনতোষ বড়ুয়া  পেয়েছেন ১ হাজার ৩৯৬ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের এএসএম বজলুর রশিদ মিন্টু ২ হাজার ২৮০ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্যের মোহাম্মদ হাসান আলী চৌধুরী ১ হাজার ৮২৪ ভোট পান।
প্রধান নির্বাচন কমিশনার রতন কুমার রায় জানান, সভাপতি ও সম্পাদকীয় চারটি পদসহ ৯টি পদে জয়ী হয় ঐক্য পরিষদ। সাধারণ সম্পাদক, সিনিয়র সহ-সভাপতি, সহ-সভাপতি, এজিএস ও সম্পাদকীয় ছয়টি পদসহ ১২টি পদে জয়লাভ করে সমন্বয় পরিষদ। সম্পাদকীয় ১০টি ও নির্বাহী সদস্য পদ ১১টিসহ মোট ২১টি পদের বিপরীতে এবার প্রার্থী ছিলেন ৪২ জন। মোট ৫ হাজার ৩০৯ ভোটারের মধ্যে ৪ হাজার ১৪৫ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। সকাল ৯টা থেকে টানা বিকাল ৪টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলে। ফলাফলে জানা যায়, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে সমন্বয় পরিষদের মো. সেকান্দর চৌধুরী ২ হাজার ৫১৫ ভোট পেয়ে জয়ী হন। ঐক্য পরিষদের মো. আবদুল কাদের ১ হাজার ৫৫৭ ভোট পান। ২ হাজার ৭৩ ভোট পেয়ে সহ-সভাপতি পদে সমন্বয় পরিষদের আবদুল হক জয়লাভ করেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের মুহাম্মদ কামরুল হাসান নাজিম ২ হাজার ১৯ ভোট পান। সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ ইমরান ২ হাজার ১৭৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের মোহাম্মদ কাশেম কামাল পেয়েছেন ১ হাজার ৮৭১ ভোট। অর্থ সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মোশারফ হোছাইন ২ হাজার ৪১৭ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেন। ঐক্য পরিষদের কাজী মো. আশরাফুল হক আনসারী ১ হাজার ৬৯৬ ভোট পেয়ে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হন। পাঠাগার সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম ২ হাজার ২১৭ ভোট পেয়ে জয়ী হন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের আহমেদ কবির ১ হাজার ৮৫৬ ভোট পান। সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে ঐক্য পরিষদের মো. খোরশেদ আলম ২ হাজার ২৬২ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমন্বয় পরিষদের জান্নাতুল ফেরদৌস পেয়েছেন ১ হাজার ৮০০ ভোট। ক্রীড়া সম্পাদক পদে জয়লাভ করেন ঐক্যের মো. ওমর ফারুক (২ হাজার ১৯৯ ভোট)। সমন্বয় পরিষদের পিটু কুমার শীল ১ হাজার ৮৬৩ ভোট পান। তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে ঐক্য পরিষদের অলি আহমদ ২ হাজার ২১০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন সমন্বয় পরিষদের অভিজিত ঘোষ (১ হাজার ৮৬০ ভোট)।
এছাড়া নির্বাহী সদস্যের ১১টি পদের মধ্যে ৬টিতে সমন্বয় পরিষদ ও ৫টিতে ঐক্য পরিষদ জয়লাভ করেছে।

চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে নাজিম উদ্দিন চৌধুরী সভাপতি ও মিন্টু সাধারণ সম্পাদক

প্রকাশের সময় : ০৩:২৬:৩৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪
চট্টগ্রাম জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন চৌধুরী সভাপতি ও এএসএম বজলুর রশিদ (মিন্টু) সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন। গত রবিবার দিবাগত রাত ৩ টা ৪০ মিনিটে ভোট গণনাশেষে এ ফলাফল ঘোষণা করা হয়।
ঘোষিত ফলাফলে দেখা যায়, ঐক্য পরিষদ মনোনীত মোহাম্মদ নাজিম উদ্দিন চৌধুরী ২ হাজার ৬৮২ ভোট পেয়ে সভাপতি নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সম্মিলিত আইনজীবী সমন্বয় পরিষদ মনোনীত মনতোষ বড়ুয়া  পেয়েছেন ১ হাজার ৩৯৬ ভোট। সাধারণ সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের এএসএম বজলুর রশিদ মিন্টু ২ হাজার ২৮০ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্যের মোহাম্মদ হাসান আলী চৌধুরী ১ হাজার ৮২৪ ভোট পান।
প্রধান নির্বাচন কমিশনার রতন কুমার রায় জানান, সভাপতি ও সম্পাদকীয় চারটি পদসহ ৯টি পদে জয়ী হয় ঐক্য পরিষদ। সাধারণ সম্পাদক, সিনিয়র সহ-সভাপতি, সহ-সভাপতি, এজিএস ও সম্পাদকীয় ছয়টি পদসহ ১২টি পদে জয়লাভ করে সমন্বয় পরিষদ। সম্পাদকীয় ১০টি ও নির্বাহী সদস্য পদ ১১টিসহ মোট ২১টি পদের বিপরীতে এবার প্রার্থী ছিলেন ৪২ জন। মোট ৫ হাজার ৩০৯ ভোটারের মধ্যে ৪ হাজার ১৪৫ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। সকাল ৯টা থেকে টানা বিকাল ৪টা পর্যন্ত শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ চলে। ফলাফলে জানা যায়, সিনিয়র সহ-সভাপতি পদে সমন্বয় পরিষদের মো. সেকান্দর চৌধুরী ২ হাজার ৫১৫ ভোট পেয়ে জয়ী হন। ঐক্য পরিষদের মো. আবদুল কাদের ১ হাজার ৫৫৭ ভোট পান। ২ হাজার ৭৩ ভোট পেয়ে সহ-সভাপতি পদে সমন্বয় পরিষদের আবদুল হক জয়লাভ করেন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের মুহাম্মদ কামরুল হাসান নাজিম ২ হাজার ১৯ ভোট পান। সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ ইমরান ২ হাজার ১৭৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের মোহাম্মদ কাশেম কামাল পেয়েছেন ১ হাজার ৮৭১ ভোট। অর্থ সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মোশারফ হোছাইন ২ হাজার ৪১৭ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেন। ঐক্য পরিষদের কাজী মো. আশরাফুল হক আনসারী ১ হাজার ৬৯৬ ভোট পেয়ে নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হন। পাঠাগার সম্পাদক পদে সমন্বয় পরিষদের মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম ২ হাজার ২১৭ ভোট পেয়ে জয়ী হন। তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ঐক্য পরিষদের আহমেদ কবির ১ হাজার ৮৫৬ ভোট পান। সাংস্কৃতিক সম্পাদক পদে ঐক্য পরিষদের মো. খোরশেদ আলম ২ হাজার ২৬২ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমন্বয় পরিষদের জান্নাতুল ফেরদৌস পেয়েছেন ১ হাজার ৮০০ ভোট। ক্রীড়া সম্পাদক পদে জয়লাভ করেন ঐক্যের মো. ওমর ফারুক (২ হাজার ১৯৯ ভোট)। সমন্বয় পরিষদের পিটু কুমার শীল ১ হাজার ৮৬৩ ভোট পান। তথ্য ও প্রযুক্তি সম্পাদক পদে ঐক্য পরিষদের অলি আহমদ ২ হাজার ২১০ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন সমন্বয় পরিষদের অভিজিত ঘোষ (১ হাজার ৮৬০ ভোট)।
এছাড়া নির্বাহী সদস্যের ১১টি পদের মধ্যে ৬টিতে সমন্বয় পরিষদ ও ৫টিতে ঐক্য পরিষদ জয়লাভ করেছে।