বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দুঃসময়ে পাকিস্তানের পাশে দাঁড়াল চীন

রাজনৈতিক অস্থিরতা আর অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে পাকিস্তানের পাশে দাঁড়িয়েছে চীন। সংকট উত্তরণে দেশটিকে ২ বিলিয়ন ডলারের ঋণ দিয়েছে দেশটি। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) পাকিস্তানের অর্থ মন্ত্রণালয়ের একাধিক সূত্র জিও নিউজকে এ তথ্য জানিয়েছে।

সূত্রের বরাতে সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, আগামী মার্চ মাসে এ অর্থ ছাড় করা হবে। ৭ দশমিক এক শতাংশ সুদের বিনিময়ে পাকিস্তানকে এ ঋণ দিয়েছে দেশটি।

সূত্র জানিয়েছে, পাকিস্তান গত বছরে সৌদি আরব, চীন ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের ২৬ দশমিক ৫ বিলিয়ন রুপি ঋণ পরিশোধ করেছে। দেশগুলোর স্টেট ব্যাংক অব পাকিস্তানে ৯ বিলিয়ন ডলার জমার বিপরীতে এ অর্থ পরিশোধ করা হয়।

নতুন করে পাওয়া এ ঋণ পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংক স্টেট ব্যাংক অব পাকিস্তানের (এসবিপি) বৈদেশিক রিজার্ভ বাড়াতে সাহায্য করবে। গত মাসে দেশটির তত্ত্বাবধায়ক প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার-উল-হক কাকার চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কিয়াংয়ের কাছে এ ঋণ চেয়ে চিঠি লিখেছিলেন বলে জানিয়েছে জিও নিউজ। সংকটকালীন পাশে দাঁড়ানোয় চীন সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কাকার।

এর আগে গত ২২ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) কাছে চিঠি দেওয়ার কথা জানান পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ওই সময়ে পিটিআই সিনেটর আলি জাফর বলেন, আইএমএফ, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ যে কোনো আন্তর্জাতিক সংস্থার মূলনীতি হলো কোনো দেশে কাজ করার বা তাদের ঋণ দেওয়ার জন্য তাদের পূর্বশর্ত হলো সুশাসন থাকা। আর সুশাসন নিশ্চিতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শর্ত হলো গণতন্ত্র।

তিনি বলেন, গত ৮ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে রাতের অন্ধকারে জনগণের ম্যান্ডেট চুরি হয়েছে। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু না হলে যে কোনো সংস্থার উচিত তাদের ঋণ না দেওয়া। কেননা এ ঋণ জনগণের জন্য পরবর্তীতে বোঝা হয়ে দাঁড়াবে।

পিটিআইয়ের এ সিনেটর বলেন, তার দল নির্বাচনের বিষয়ে সুষ্ঠু তদন্ত চায়। আইএমএফের কাছে পাঠানো চিঠিতে এ শর্তটি সামনে রাখা হবে।

দুঃসময়ে পাকিস্তানের পাশে দাঁড়াল চীন

প্রকাশের সময় : ০৯:৪৮:৫৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪

রাজনৈতিক অস্থিরতা আর অর্থনৈতিক সংকটের মধ্যে পাকিস্তানের পাশে দাঁড়িয়েছে চীন। সংকট উত্তরণে দেশটিকে ২ বিলিয়ন ডলারের ঋণ দিয়েছে দেশটি। বুধবার (২৮ ফেব্রুয়ারি) পাকিস্তানের অর্থ মন্ত্রণালয়ের একাধিক সূত্র জিও নিউজকে এ তথ্য জানিয়েছে।

সূত্রের বরাতে সংবাদমাধ্যমটি জানিয়েছে, আগামী মার্চ মাসে এ অর্থ ছাড় করা হবে। ৭ দশমিক এক শতাংশ সুদের বিনিময়ে পাকিস্তানকে এ ঋণ দিয়েছে দেশটি।

সূত্র জানিয়েছে, পাকিস্তান গত বছরে সৌদি আরব, চীন ও সংযুক্ত আরব আমিরাতের ২৬ দশমিক ৫ বিলিয়ন রুপি ঋণ পরিশোধ করেছে। দেশগুলোর স্টেট ব্যাংক অব পাকিস্তানে ৯ বিলিয়ন ডলার জমার বিপরীতে এ অর্থ পরিশোধ করা হয়।

নতুন করে পাওয়া এ ঋণ পাকিস্তানের কেন্দ্রীয় ব্যাংক স্টেট ব্যাংক অব পাকিস্তানের (এসবিপি) বৈদেশিক রিজার্ভ বাড়াতে সাহায্য করবে। গত মাসে দেশটির তত্ত্বাবধায়ক প্রধানমন্ত্রী আনোয়ার-উল-হক কাকার চীনের প্রধানমন্ত্রী লি কিয়াংয়ের কাছে এ ঋণ চেয়ে চিঠি লিখেছিলেন বলে জানিয়েছে জিও নিউজ। সংকটকালীন পাশে দাঁড়ানোয় চীন সরকারকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন কাকার।

এর আগে গত ২২ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) কাছে চিঠি দেওয়ার কথা জানান পাকিস্তানের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ওই সময়ে পিটিআই সিনেটর আলি জাফর বলেন, আইএমএফ, ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ যে কোনো আন্তর্জাতিক সংস্থার মূলনীতি হলো কোনো দেশে কাজ করার বা তাদের ঋণ দেওয়ার জন্য তাদের পূর্বশর্ত হলো সুশাসন থাকা। আর সুশাসন নিশ্চিতের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শর্ত হলো গণতন্ত্র।

তিনি বলেন, গত ৮ ফেব্রুয়ারির নির্বাচনে রাতের অন্ধকারে জনগণের ম্যান্ডেট চুরি হয়েছে। নির্বাচন অবাধ ও সুষ্ঠু না হলে যে কোনো সংস্থার উচিত তাদের ঋণ না দেওয়া। কেননা এ ঋণ জনগণের জন্য পরবর্তীতে বোঝা হয়ে দাঁড়াবে।

পিটিআইয়ের এ সিনেটর বলেন, তার দল নির্বাচনের বিষয়ে সুষ্ঠু তদন্ত চায়। আইএমএফের কাছে পাঠানো চিঠিতে এ শর্তটি সামনে রাখা হবে।