বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ৫ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বর্ধিত মন্ত্রিসভায় নিয়োগ পাওয়া ৭ প্রতিমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ

বর্তমান সরকারের বর্ধিত মন্ত্রিসভায় নিয়োগ পাওয়া নতুন সাতজন সদস্য প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথগ্রহণ করেছেন। শুক্রবার (১ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বঙ্গবভনের দরবার হলে রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন মন্ত্রিসভার এই নতুন সদস্যদের শপথবাক্য পাঠ করান।

নতুন সাত প্রতিমন্ত্রী হয়েছেন, নওগাঁ-২ আসনের সংসদ সদস্য শহীদুজ্জামান সরকার, রাজশাহী-৫ আসনের আবদুল ওয়াদুদ, চট্টগ্রাম-১৪ আসনের নজরুল ইসলাম চৌধুরী এবং সংরক্ষিত নারী আসন থেকে সামসুন্নাহার চাঁপা, ওয়াসিকা আয়শা খান, নাহিদ ইজহার খান ও ডা. রোকেয়া সুলতানা।

এই সাতজনের মধ্যে প্রথমবার মন্ত্রিসভায় জায়গা পেয়েছেন দুই নারী নেত্রী। তারা হলেন আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক সামসুন্নাহার চাঁপা এবং স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা।

আজই দ্বাদশ জাতীয় সংসদের মন্ত্রিসভায় সাত প্রতিমন্ত্রীকে নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এর মাধ্যমে সরকার গঠনের এক মাস ২০ দিনের মাথায় মন্ত্রিসভার কলেবর বাড়ল।

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গত ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ের পর টানা চতুর্থ মেয়াদে সরকার গঠন করে দলটি। গত ১১ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ মন্ত্রিসভার নতুন ৩৭ জন সদস্য শপথগ্রহণ করেন। তাদের মধ্যে ২৫ জন মন্ত্রী ও ১১ জন প্রতিমন্ত্রী রয়েছেন।

মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের মধ্যে দায়িত্ব বণ্টন করা হলেও শ্রম ও কর্মসংস্থান এবং সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ে কোনো মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী না দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অধীনে রাখা হয়। এ ছাড়া শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের মতো বড় ও গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে শুধু মন্ত্রি দেওয়া হয়েছে। অনেকেই মনে করছেন, ফাঁকা থাকা মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি এ মন্ত্রণালয়গুলোতেও নতুন মুখ দেখা যেতে পারে।

২০১৮ সালের নির্বাচনের পর গঠিত সরকারের মন্ত্রিসভায় ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে মন্ত্রী থাকলেও নতুন মন্ত্রিসভায় সেটা এখনও ফাঁকা রাখা হয়েছে। এজন্য অনেকেই মনে করছেন, এখানেও নতুন কাউকে দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে।

বর্ধিত মন্ত্রিসভায় নিয়োগ পাওয়া ৭ প্রতিমন্ত্রীর শপথ গ্রহণ

প্রকাশের সময় : ০৯:০৯:৫৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ মার্চ ২০২৪

বর্তমান সরকারের বর্ধিত মন্ত্রিসভায় নিয়োগ পাওয়া নতুন সাতজন সদস্য প্রতিমন্ত্রী হিসেবে শপথগ্রহণ করেছেন। শুক্রবার (১ মার্চ) সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় বঙ্গবভনের দরবার হলে রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন মন্ত্রিসভার এই নতুন সদস্যদের শপথবাক্য পাঠ করান।

নতুন সাত প্রতিমন্ত্রী হয়েছেন, নওগাঁ-২ আসনের সংসদ সদস্য শহীদুজ্জামান সরকার, রাজশাহী-৫ আসনের আবদুল ওয়াদুদ, চট্টগ্রাম-১৪ আসনের নজরুল ইসলাম চৌধুরী এবং সংরক্ষিত নারী আসন থেকে সামসুন্নাহার চাঁপা, ওয়াসিকা আয়শা খান, নাহিদ ইজহার খান ও ডা. রোকেয়া সুলতানা।

এই সাতজনের মধ্যে প্রথমবার মন্ত্রিসভায় জায়গা পেয়েছেন দুই নারী নেত্রী। তারা হলেন আওয়ামী লীগের শিক্ষা ও মানবসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক সামসুন্নাহার চাঁপা এবং স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডা. রোকেয়া সুলতানা।

আজই দ্বাদশ জাতীয় সংসদের মন্ত্রিসভায় সাত প্রতিমন্ত্রীকে নিয়োগ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। এর মাধ্যমে সরকার গঠনের এক মাস ২০ দিনের মাথায় মন্ত্রিসভার কলেবর বাড়ল।

আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গত ৭ জানুয়ারি দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিজয়ের পর টানা চতুর্থ মেয়াদে সরকার গঠন করে দলটি। গত ১১ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাসহ মন্ত্রিসভার নতুন ৩৭ জন সদস্য শপথগ্রহণ করেন। তাদের মধ্যে ২৫ জন মন্ত্রী ও ১১ জন প্রতিমন্ত্রী রয়েছেন।

মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের মধ্যে দায়িত্ব বণ্টন করা হলেও শ্রম ও কর্মসংস্থান এবং সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ে কোনো মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রী না দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর অধীনে রাখা হয়। এ ছাড়া শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও অর্থ মন্ত্রণালয়ের মতো বড় ও গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয়ে শুধু মন্ত্রি দেওয়া হয়েছে। অনেকেই মনে করছেন, ফাঁকা থাকা মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি এ মন্ত্রণালয়গুলোতেও নতুন মুখ দেখা যেতে পারে।

২০১৮ সালের নির্বাচনের পর গঠিত সরকারের মন্ত্রিসভায় ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগে মন্ত্রী থাকলেও নতুন মন্ত্রিসভায় সেটা এখনও ফাঁকা রাখা হয়েছে। এজন্য অনেকেই মনে করছেন, এখানেও নতুন কাউকে দায়িত্ব দেওয়া হতে পারে।