রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মেসি-সুয়ারেজ যুগলবন্দিতে বড় জয় মায়ামির

লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেজ বার্সেলোনার হয়ে অনেক ম্যাচেই দলকে জিতিয়েছেন। স্পেন ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে এসেও এই যুগলবন্দি ধরা দিলেন চিরচেনা রূপে। তাতে মেজর লিগ সকারের (এমএলএস) ম্যাচে নগর প্রতিদ্বন্দ্বী অরল্যান্ডো সিটির বিপক্ষে ৫-০ গোলের জয় পেল ইন্টার মায়ামি। মেসি-সুয়ারেজ দুজনই জোড়া গোল করেছেন। অন্য গোলটি করেছেন রবার্ট টেলর।

শনিবার (২ মার্চ) এমএলএসের ইস্টার্ন কনফারেন্সের ম্যাচের শুরু থেকেই গোছানো ফুটবল খেলতে থাকে মায়ামি। তাতে গেল মৌসুমে দ্বিতীয় স্থানে থাকা দল অরল্যান্ডোকে খুঁজেই পাওয়া যায়নি। ম্যাচের চতুর্থ মিনিটেই এগিয়ে যায় মায়ামি। ডান প্রান্ত থেকে জুলিয়ান গ্রেসেলের বাড়ানো বল দুর্দান্ত ফিনিশিংয়ে জালে জড়ান সুয়ারেজ।

গোল পেয়ে দারুণ আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেলতে থাকে মায়ামি। তাতে ম্যাচের একাদশ মিনিটে আবারও এগিয়ে যায় তারা। এবারও দৃশ্যপটে সুয়ারেজ। দ্বিতীয় গোলটিও ছিল অনবদ্য। বক্সের বেশ বাইরে থেকে আক্রমণটা তৈরি করে গ্রেসেলের সঙ্গে ওয়ান-টু খেলে ফিনিশিংয়ে জাদু দেখান এই ফরোয়ার্ড।

প্রথমার্ধে দুই গোল দিয়েই ক্ষ্যান্ত হয়নি মায়ামি। আরও একটি গোল করে তবেই বিরতিতে যায় তারা। এই গোলেও সুয়ারেজের সহায়তা আছে। তাতে জাল খুঁজে নেন টেলর। ৩-০তে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ডেভিড বেকহ্যামের মালিকানাধীন দলটি।

দ্বিতীয়ার্ধে নেমেও নিজেদের চেনা রূপেই ধরা দেয় মায়ামি। তাতে ৫ মিনিটের ব্যবধানে জোড়া গোলে করেন মেসি। এই দুই গোলেও রয়েছে সুয়ারাজের অবদান। ৫৭তম নিনিটে নিজের প্রথম ও দলের চতুর্থ গোলটি করেন বিশ্বকাপজয়ী তারকা। অরল্যান্ডের কফিনে মেসি শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন ৬২তম মিনিটে।

ম্যাচ শেষে সুয়ারেজকে নিয়ে মেসি বলেছেন, ‘সে গোল করতে পেরেছে, আমি তার জন্য খুব খুশি। তবে আমরা শান্ত ছিলাম। আমরা জানি লুইস (সুয়ারেজ) কেমন এবং সে কী করতে পারে। যখন আপনি তার কাছ থেকে কম প্রত্যাশা করবেন, তখন সে আজকের মতো খেলে সব বুঝিয়ে দেবে।’

গেল মৌসুমে ভালো করতে পারেনি মায়ামি। তবে চলতি মৌসুমে দারুণ ছন্দে আছে দলটি।এতা ধরে রাখতে চান তাদের অধিনায়ক মেসি। ম্যাচ শেষে নিজেদের পারফরম্যান্স নিয়ে মেসি বলেছেন, ‘আমরা ভালো করছি এবং খেলাটা উপভোগ করছি। আজকের ম্যাচটি জেতা গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

এই ম্যাচ শেষে এমএলএসের ইস্টার্ন কনফারেন্সের পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে মায়ামি। ৩ ম্যাচে দুই জয় এবং এক ড্রয়ে তাদের পয়েন্ট ৭। ২ ম্যাচে ১ জয় ও ড্রতে ৪ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে কলম্বাস। সমান ম্যাচে ১ হার ও ১ ড্র নিয়ে ১২তম স্থানে আছে অরল্যান্ড সিটি।

মেসি-সুয়ারেজ যুগলবন্দিতে বড় জয় মায়ামির

প্রকাশের সময় : ০৩:১৩:১৭ অপরাহ্ন, রবিবার, ৩ মার্চ ২০২৪

লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেজ বার্সেলোনার হয়ে অনেক ম্যাচেই দলকে জিতিয়েছেন। স্পেন ছেড়ে যুক্তরাষ্ট্রে এসেও এই যুগলবন্দি ধরা দিলেন চিরচেনা রূপে। তাতে মেজর লিগ সকারের (এমএলএস) ম্যাচে নগর প্রতিদ্বন্দ্বী অরল্যান্ডো সিটির বিপক্ষে ৫-০ গোলের জয় পেল ইন্টার মায়ামি। মেসি-সুয়ারেজ দুজনই জোড়া গোল করেছেন। অন্য গোলটি করেছেন রবার্ট টেলর।

শনিবার (২ মার্চ) এমএলএসের ইস্টার্ন কনফারেন্সের ম্যাচের শুরু থেকেই গোছানো ফুটবল খেলতে থাকে মায়ামি। তাতে গেল মৌসুমে দ্বিতীয় স্থানে থাকা দল অরল্যান্ডোকে খুঁজেই পাওয়া যায়নি। ম্যাচের চতুর্থ মিনিটেই এগিয়ে যায় মায়ামি। ডান প্রান্ত থেকে জুলিয়ান গ্রেসেলের বাড়ানো বল দুর্দান্ত ফিনিশিংয়ে জালে জড়ান সুয়ারেজ।

গোল পেয়ে দারুণ আত্মবিশ্বাস নিয়ে খেলতে থাকে মায়ামি। তাতে ম্যাচের একাদশ মিনিটে আবারও এগিয়ে যায় তারা। এবারও দৃশ্যপটে সুয়ারেজ। দ্বিতীয় গোলটিও ছিল অনবদ্য। বক্সের বেশ বাইরে থেকে আক্রমণটা তৈরি করে গ্রেসেলের সঙ্গে ওয়ান-টু খেলে ফিনিশিংয়ে জাদু দেখান এই ফরোয়ার্ড।

প্রথমার্ধে দুই গোল দিয়েই ক্ষ্যান্ত হয়নি মায়ামি। আরও একটি গোল করে তবেই বিরতিতে যায় তারা। এই গোলেও সুয়ারেজের সহায়তা আছে। তাতে জাল খুঁজে নেন টেলর। ৩-০তে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ডেভিড বেকহ্যামের মালিকানাধীন দলটি।

দ্বিতীয়ার্ধে নেমেও নিজেদের চেনা রূপেই ধরা দেয় মায়ামি। তাতে ৫ মিনিটের ব্যবধানে জোড়া গোলে করেন মেসি। এই দুই গোলেও রয়েছে সুয়ারাজের অবদান। ৫৭তম নিনিটে নিজের প্রথম ও দলের চতুর্থ গোলটি করেন বিশ্বকাপজয়ী তারকা। অরল্যান্ডের কফিনে মেসি শেষ পেরেকটি ঠুকে দেন ৬২তম মিনিটে।

ম্যাচ শেষে সুয়ারেজকে নিয়ে মেসি বলেছেন, ‘সে গোল করতে পেরেছে, আমি তার জন্য খুব খুশি। তবে আমরা শান্ত ছিলাম। আমরা জানি লুইস (সুয়ারেজ) কেমন এবং সে কী করতে পারে। যখন আপনি তার কাছ থেকে কম প্রত্যাশা করবেন, তখন সে আজকের মতো খেলে সব বুঝিয়ে দেবে।’

গেল মৌসুমে ভালো করতে পারেনি মায়ামি। তবে চলতি মৌসুমে দারুণ ছন্দে আছে দলটি।এতা ধরে রাখতে চান তাদের অধিনায়ক মেসি। ম্যাচ শেষে নিজেদের পারফরম্যান্স নিয়ে মেসি বলেছেন, ‘আমরা ভালো করছি এবং খেলাটা উপভোগ করছি। আজকের ম্যাচটি জেতা গুরুত্বপূর্ণ ছিল।’

এই ম্যাচ শেষে এমএলএসের ইস্টার্ন কনফারেন্সের পয়েন্ট তালিকায় শীর্ষে মায়ামি। ৩ ম্যাচে দুই জয় এবং এক ড্রয়ে তাদের পয়েন্ট ৭। ২ ম্যাচে ১ জয় ও ড্রতে ৪ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে আছে কলম্বাস। সমান ম্যাচে ১ হার ও ১ ড্র নিয়ে ১২তম স্থানে আছে অরল্যান্ড সিটি।