মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভারত থেকে এলো আরও ৩০০ টন আলু 

১২ ট্রাকে ৩০০ টন আলু 

বেনাপোল প্রতিনিধি

উর্ধ্বগতির মূল্য নিয়ন্ত্রণে যশোরের বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে আরও একটি চালানে ৩০০ টন আলু আমদানি করা হয়েছে। চাল, ডাল, গম, ডিম, পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচের পাশাপাশি আলু আমদানির অনুমতি দিয়েছে সরকার।

ভারতের পেট্রাপোল বন্দর হয়ে গতকাল মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) রাত সাড়ে ১১ টায় ১২ ট্রাকে ৩০০  টন আলু আমদানির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেনাপোল বন্দরের চেকপোস্ট কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা আজিজ খান।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ও শনিবার দুটি চালানে ১৬ ট্রাকে ৪০০ মেট্রিক টন আলু আমদানি হয়।

আলুর আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ইন্টিগ্রেটেড ফুড অ্যান্ড বেভারেজ। রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান ভারতের পেপসিকো ইন্ডিয়া হোল্ডিংস।আলুর চালানটি খালাস নিতে বেনাপোল কাস্টমস হাউসে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করেছেন ট্রান্সমেরিন সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

এদিকে ট্রান্সমেরিন লজিস্টিক লিমিটেড সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের প্রতিনিধি মাসুম বিল্লা জানান, গতকাল রাতে ভারত থেকে আমদানি করা ৩০০ টন আলু। যার প্রতি টনে খরচ পড়ছে ১৯৪ মার্কিন ডলার। আলুর চালানটি খালাস নিতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কাস্টমসে দাখিল করা হয়েছে।

বেনাপোল উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্রের উপ-সহকারী কর্মকর্তা হেমন্ত কুমার সরকার বলেন, ভারত থেকে আমদানি করা ৩০০ টন আলু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র (আমদানিকারক) জমা দিলে আলুর মান পরীক্ষা শেষে খালাসের অনুমতি দেওয়া হবে।

বেনাপোল বন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) রেজাউল করিম জানান, ভারত থেকে গতকাল রাতে ১২ ট্রাক ভর্তি আলুর চালান বন্দরে প্রবেশ করেছে। আরও এক ট্রাক প্রবেশের অপেক্ষায় রয়েছে।আমদানিকারক প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করলে দ্রুত ছাড়করণের জন্য সহযোগিতা করা হবে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ও শনিবার দুই চালানে ভারত থেকে ৪০০ টন আলু আমদানি হয়। যা ইতোমধ্যে বন্দর থেকে ছাড়করণ করা হয়েছে।

ভারত থেকে এলো আরও ৩০০ টন আলু 

প্রকাশের সময় : ০৯:৫৯:১৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ২০ মার্চ ২০২৪

বেনাপোল প্রতিনিধি

উর্ধ্বগতির মূল্য নিয়ন্ত্রণে যশোরের বেনাপোল বন্দর দিয়ে ভারত থেকে আরও একটি চালানে ৩০০ টন আলু আমদানি করা হয়েছে। চাল, ডাল, গম, ডিম, পেঁয়াজ ও কাঁচা মরিচের পাশাপাশি আলু আমদানির অনুমতি দিয়েছে সরকার।

ভারতের পেট্রাপোল বন্দর হয়ে গতকাল মঙ্গলবার (১৯ মার্চ) রাত সাড়ে ১১ টায় ১২ ট্রাকে ৩০০  টন আলু আমদানির বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন বেনাপোল বন্দরের চেকপোস্ট কার্গো শাখার রাজস্ব কর্মকর্তা আজিজ খান।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ও শনিবার দুটি চালানে ১৬ ট্রাকে ৪০০ মেট্রিক টন আলু আমদানি হয়।

আলুর আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান ইন্টিগ্রেটেড ফুড অ্যান্ড বেভারেজ। রফতানিকারক প্রতিষ্ঠান ভারতের পেপসিকো ইন্ডিয়া হোল্ডিংস।আলুর চালানটি খালাস নিতে বেনাপোল কাস্টমস হাউসে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করেছেন ট্রান্সমেরিন সিঅ্যান্ডএফ এজেন্ট নামের একটি প্রতিষ্ঠান।

এদিকে ট্রান্সমেরিন লজিস্টিক লিমিটেড সিঅ্যান্ডএফ এজেন্টের প্রতিনিধি মাসুম বিল্লা জানান, গতকাল রাতে ভারত থেকে আমদানি করা ৩০০ টন আলু। যার প্রতি টনে খরচ পড়ছে ১৯৪ মার্কিন ডলার। আলুর চালানটি খালাস নিতে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র কাস্টমসে দাখিল করা হয়েছে।

বেনাপোল উদ্ভিদ সংগনিরোধ কেন্দ্রের উপ-সহকারী কর্মকর্তা হেমন্ত কুমার সরকার বলেন, ভারত থেকে আমদানি করা ৩০০ টন আলু প্রয়োজনীয় কাগজপত্র (আমদানিকারক) জমা দিলে আলুর মান পরীক্ষা শেষে খালাসের অনুমতি দেওয়া হবে।

বেনাপোল বন্দরের পরিচালক (ট্রাফিক) রেজাউল করিম জানান, ভারত থেকে গতকাল রাতে ১২ ট্রাক ভর্তি আলুর চালান বন্দরে প্রবেশ করেছে। আরও এক ট্রাক প্রবেশের অপেক্ষায় রয়েছে।আমদানিকারক প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করলে দ্রুত ছাড়করণের জন্য সহযোগিতা করা হবে।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার ও শনিবার দুই চালানে ভারত থেকে ৪০০ টন আলু আমদানি হয়। যা ইতোমধ্যে বন্দর থেকে ছাড়করণ করা হয়েছে।