মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

৯দিন পার হয়ে গেলেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ স্কুলছাত্রীর

নিখোঁজ শারিকা ইসলাম

মাদারীপুরের রাজৈরে স্কুলে যাওয়ার পথে নিখোঁজের ৯দিন পার হয়ে গেলেও এখনো সন্ধান মেলেনি স্কুলছাত্রী শারিকা ইসলামের।

শারিকা উপজেলার হোসেনপুর ইউনিয়নের তাঁতীকান্দা গ্রামের সৌদি প্রবাসী শহিদুল ইসলামের একমাত্র মেয়ে। সে টেকেরহাট শহিদ সরদার সাজাহান বালিকা উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী।

এ বিষয়ে গত ২৪ মার্চ রাজৈর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তার চাচাতো ভাই জয় মাতুব্বর।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শারিকার বাবা সৌদি আরব থাকার কারণে পড়ালেখার সুবিধার্থে মাকে নিয়ে উপজেলার টেকেরহাট ঘোষালকান্দির বাড়িতে বসবাস করতো শারিকা। গত ২৪ মার্চ সকাল আনুমানিক ৯টা ৩৫ মিনিটে স্কুলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর আর বাড়ি ফিরে না আসলে খোঁজাখুজি শুরু করেন স্বজনরা। খোঁজ না পেয়ে রাজৈর থানায় একটি জিডি করেন তার চাচাতো ভাই জয় মাতুব্বর। পরে র্যাবের সহযোগিতা নিয়েও তার সন্ধান পাচ্ছেন না স্বজনরা।

জয় মাতুব্বর জানান, শারিকা স্কুলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। পরে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও কোনো সন্ধান না পেয়ে থানায় জিডি করেছি। কিন্তু ৯দিন পার হয়ে গেলেও এখনো কোনো খোঁজ পাচ্ছি না। এদিকে কাকী (শারিকার মা) এক মাস আগে স্ট্রোক করেছে। সে এখনো গুরুতর অসুস্থ।

এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজৈর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোস্তফা কামাল বলেন, আমরা জানতে পেরেছি মেয়েটি ফ্রি-ফায়ার গেম খেলতো। এই সুবাদে একটা ছেলের সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিল বলে জানতে পেরেছি। ধারণা করা হচ্ছে ওই ছেলের সঙ্গে পালিয়েছে। কিন্তু ওই ছেলের কোনো নাম-ঠিকানা পাওয়া যায়নি। তবে কয়েকটি নম্বর ট্রাকিং করেছি। আমাদের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

৯দিন পার হয়ে গেলেও সন্ধান মেলেনি নিখোঁজ স্কুলছাত্রীর

প্রকাশের সময় : ০১:৪০:৩৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল ২০২৪

মাদারীপুরের রাজৈরে স্কুলে যাওয়ার পথে নিখোঁজের ৯দিন পার হয়ে গেলেও এখনো সন্ধান মেলেনি স্কুলছাত্রী শারিকা ইসলামের।

শারিকা উপজেলার হোসেনপুর ইউনিয়নের তাঁতীকান্দা গ্রামের সৌদি প্রবাসী শহিদুল ইসলামের একমাত্র মেয়ে। সে টেকেরহাট শহিদ সরদার সাজাহান বালিকা উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণির ছাত্রী।

এ বিষয়ে গত ২৪ মার্চ রাজৈর থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তার চাচাতো ভাই জয় মাতুব্বর।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, শারিকার বাবা সৌদি আরব থাকার কারণে পড়ালেখার সুবিধার্থে মাকে নিয়ে উপজেলার টেকেরহাট ঘোষালকান্দির বাড়িতে বসবাস করতো শারিকা। গত ২৪ মার্চ সকাল আনুমানিক ৯টা ৩৫ মিনিটে স্কুলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়। এরপর আর বাড়ি ফিরে না আসলে খোঁজাখুজি শুরু করেন স্বজনরা। খোঁজ না পেয়ে রাজৈর থানায় একটি জিডি করেন তার চাচাতো ভাই জয় মাতুব্বর। পরে র্যাবের সহযোগিতা নিয়েও তার সন্ধান পাচ্ছেন না স্বজনরা।

জয় মাতুব্বর জানান, শারিকা স্কুলে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেনি। পরে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও কোনো সন্ধান না পেয়ে থানায় জিডি করেছি। কিন্তু ৯দিন পার হয়ে গেলেও এখনো কোনো খোঁজ পাচ্ছি না। এদিকে কাকী (শারিকার মা) এক মাস আগে স্ট্রোক করেছে। সে এখনো গুরুতর অসুস্থ।

এ ব্যাপারে তদন্তকারী কর্মকর্তা রাজৈর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোস্তফা কামাল বলেন, আমরা জানতে পেরেছি মেয়েটি ফ্রি-ফায়ার গেম খেলতো। এই সুবাদে একটা ছেলের সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিল বলে জানতে পেরেছি। ধারণা করা হচ্ছে ওই ছেলের সঙ্গে পালিয়েছে। কিন্তু ওই ছেলের কোনো নাম-ঠিকানা পাওয়া যায়নি। তবে কয়েকটি নম্বর ট্রাকিং করেছি। আমাদের চেষ্টা অব্যাহত আছে।