মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

শরণখোলায় ৪০ কেজি হরিণ ও শূকরের মাংস জব্দ, আটক ১

শরণখোলা রেঞ্জের চরখালী এলাকার বন থেকে শিকারী ইয়াসিন হাওলাদারকে আটক করা হয়।

পূর্ব সুন্দরবন থেকে ইয়াসিন হাওলাদার নামে এক হরিণ শিকারীকে আটক করেছে বনরক্ষীরা। তার কাছ থেকে ২০ কেজি হরিণ ও ২০ কেজি শূকরের মাংস উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া বিপুল পরিমান নাইলনের দড়ির ফাঁদ ও হরিণ শিকারের অন্যান্য সরঞ্জাম জব্দ করা হয়।

সোমবার (১ এপ্রিল) রাতে শরণখোলা রেঞ্জের চরখালী এলাকার বন থেকে ওই শিকারীকে আটকের পর মঙ্গলবার (২এপ্রিল) সন্ধ্যায় রেঞ্জ অফিসে আনা হয়। শিকারী দলের আরো চার সদস্য পালিয়ে যাওয়ায় তাদের আটক করতে পারেনি বনরক্ষীরা।

শরণখোলা রেঞ্জের সহকারী বনসংরক্ষক (এসিএফ) শেখ মাহাবুব হাসান জানান, পাথরঘাটার চরদুয়ানি এলাকার একটি চোরা শিকারী দল চরখালীর গহীন বনে হরিণ শিকালে লিপ্ত হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চরখালী টহল ফাঁড়ির বনরক্ষীরা জানতে পেরে অভিযান চালিয়ে চরদুয়ানি এলাকার আলম হাওলাদারের ছেলে ইয়াসিনকে আটক করেন।

এসিএফ জানান, বনরক্ষীদের টের পেয়ে শিকারী দলের আরো চার সদস্য পালিয়ে যায়। তাদের নাম ঠিকানা পাওয়া গেছে। আটক শিকারীর নৌকা তল্লাশি করে ২০ কেজি হরিণ ও ২০ কেজি শূকরের মাংস এবং এক বস্তা ফাঁদ পাওয়া। শিকারীদের বিরুদ্ধে বন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পলাতক শিকারীদের আটকের চেষ্টা চলছে।

প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কাতারের আমিরের বৈঠক আজ

শরণখোলায় ৪০ কেজি হরিণ ও শূকরের মাংস জব্দ, আটক ১

প্রকাশের সময় : ০৯:৩৮:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২ এপ্রিল ২০২৪

পূর্ব সুন্দরবন থেকে ইয়াসিন হাওলাদার নামে এক হরিণ শিকারীকে আটক করেছে বনরক্ষীরা। তার কাছ থেকে ২০ কেজি হরিণ ও ২০ কেজি শূকরের মাংস উদ্ধার করা হয়েছে। এছাড়া বিপুল পরিমান নাইলনের দড়ির ফাঁদ ও হরিণ শিকারের অন্যান্য সরঞ্জাম জব্দ করা হয়।

সোমবার (১ এপ্রিল) রাতে শরণখোলা রেঞ্জের চরখালী এলাকার বন থেকে ওই শিকারীকে আটকের পর মঙ্গলবার (২এপ্রিল) সন্ধ্যায় রেঞ্জ অফিসে আনা হয়। শিকারী দলের আরো চার সদস্য পালিয়ে যাওয়ায় তাদের আটক করতে পারেনি বনরক্ষীরা।

শরণখোলা রেঞ্জের সহকারী বনসংরক্ষক (এসিএফ) শেখ মাহাবুব হাসান জানান, পাথরঘাটার চরদুয়ানি এলাকার একটি চোরা শিকারী দল চরখালীর গহীন বনে হরিণ শিকালে লিপ্ত হয়। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চরখালী টহল ফাঁড়ির বনরক্ষীরা জানতে পেরে অভিযান চালিয়ে চরদুয়ানি এলাকার আলম হাওলাদারের ছেলে ইয়াসিনকে আটক করেন।

এসিএফ জানান, বনরক্ষীদের টের পেয়ে শিকারী দলের আরো চার সদস্য পালিয়ে যায়। তাদের নাম ঠিকানা পাওয়া গেছে। আটক শিকারীর নৌকা তল্লাশি করে ২০ কেজি হরিণ ও ২০ কেজি শূকরের মাংস এবং এক বস্তা ফাঁদ পাওয়া। শিকারীদের বিরুদ্ধে বন আইনে মামলা দায়ের করা হয়েছে। পলাতক শিকারীদের আটকের চেষ্টা চলছে।