মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গলায় ফাঁস দিয়ে শাবনুরের আত্মহত্যা!

চট্টগ্রামের রাউজানে গলায় ফাঁস দিয়ে শাবনুর আকতার (২০) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন। শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে উপজেলার উরকিরচর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মিরাপাড়া গ্রামের জান মিয়া সওদাগরের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
শাবনুর আকতার ওই গ্রামের প্রবাসী মোহাম্মদ শফিউল আজমের স্ত্রী এবং উপজেলার বাগোয়ান ইউনিয়নের পাচঁখাইন গ্রামের আনোয়ার হোসেনের মেয়ে।
স্থানীয় উরকিরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ আব্দুল জব্বার সোহেল বলেন, ‘নিহত গৃহবধূর শাশুড়ি বৃদ্ধ। তিনি প্রবাসী শফিউল আজমের স্ত্রীকে নিয়ে নিজ ঘরে বসবাস করতেন। শুক্রবার রাতে কোন সাড়াশব্দ না পাওয়ায় পরিবারের সদস্যরা আমাকে ফোন করে বললে ইউপি সদস্য আরমান হোসেন ও গ্রাম পুলিশকে পাঠিয়ে ঘরের দরজা ভেঙে দেখেন রুমে সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলে আছে শাবনুর আকতার।
পরে বিষয়টি পুলিশকে জানাই। রাত ১টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য আরমান হোসেন জানান, গত এক বছর আগে একই উপজেলার বাগোয়ান ইউনিয়ন পাচঁখাইন গ্রামের শাবনুর আকতারের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন উরকিরচর ইউনিয়নের মিরাপাড়া গ্রামের জান মিয়া সওদাগরের বাড়ির মৃত নুরুল হকের ছেলে কাতার প্রবাসী মোহাম্মদ শফিউল আজম।
কি কারণে আত্মহত্যা করেছে তা জানতে চাইলে তিনি জানান, স্বামী- স্ত্রীর মধ্যে মোবাইলে কথা কাটাকাটি কারণে ওই গৃহবধূ আত্মহত্যা করতে পারে।
ঘটনার বিষয়ে রাউজান নোয়াপাড়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) টুটন মজুমদার বলেন, আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, ওই গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গলায় ফাঁস দিয়ে শাবনুরের আত্মহত্যা!

প্রকাশের সময় : ০৫:০০:১৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ৭ এপ্রিল ২০২৪
চট্টগ্রামের রাউজানে গলায় ফাঁস দিয়ে শাবনুর আকতার (২০) নামে এক গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছেন। শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে উপজেলার উরকিরচর ইউনিয়নের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের মিরাপাড়া গ্রামের জান মিয়া সওদাগরের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।
শাবনুর আকতার ওই গ্রামের প্রবাসী মোহাম্মদ শফিউল আজমের স্ত্রী এবং উপজেলার বাগোয়ান ইউনিয়নের পাচঁখাইন গ্রামের আনোয়ার হোসেনের মেয়ে।
স্থানীয় উরকিরচর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ আব্দুল জব্বার সোহেল বলেন, ‘নিহত গৃহবধূর শাশুড়ি বৃদ্ধ। তিনি প্রবাসী শফিউল আজমের স্ত্রীকে নিয়ে নিজ ঘরে বসবাস করতেন। শুক্রবার রাতে কোন সাড়াশব্দ না পাওয়ায় পরিবারের সদস্যরা আমাকে ফোন করে বললে ইউপি সদস্য আরমান হোসেন ও গ্রাম পুলিশকে পাঠিয়ে ঘরের দরজা ভেঙে দেখেন রুমে সিলিং ফ্যানের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে ঝুলে আছে শাবনুর আকতার।
পরে বিষয়টি পুলিশকে জানাই। রাত ১টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ঝুলন্ত অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করে।
স্থানীয় ইউপি সদস্য আরমান হোসেন জানান, গত এক বছর আগে একই উপজেলার বাগোয়ান ইউনিয়ন পাচঁখাইন গ্রামের শাবনুর আকতারের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন উরকিরচর ইউনিয়নের মিরাপাড়া গ্রামের জান মিয়া সওদাগরের বাড়ির মৃত নুরুল হকের ছেলে কাতার প্রবাসী মোহাম্মদ শফিউল আজম।
কি কারণে আত্মহত্যা করেছে তা জানতে চাইলে তিনি জানান, স্বামী- স্ত্রীর মধ্যে মোবাইলে কথা কাটাকাটি কারণে ওই গৃহবধূ আত্মহত্যা করতে পারে।
ঘটনার বিষয়ে রাউজান নোয়াপাড়া পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ উপপরিদর্শক (এসআই) টুটন মজুমদার বলেন, আমরা প্রাথমিকভাবে ধারণা করছি, ওই গৃহবধূ আত্মহত্যা করেছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। এখন পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি, অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।