বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত নিন, উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন

অতীতে যে পরিমাণ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে এ বার তার চেয়েও বেশি প্রস্তুত থাকতে হবে— এমনই মন্তব্য করলেন উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন।

গত কাল, বুধবার কিম জানিয়েছেন, দেশের চারপাশের ভূরাজনৈতিক পরিস্থিতি অস্থিতিশীল। এই অবস্থায় যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হওয়ার বার্তা দিয়েছেন তিনি। দেশে সব চেয়ে বড় সামরিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কিম জং টু বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শনের সময়ে এই মন্তব্য করেন তিনি। প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি দ্রুত কোনও সংঘর্ষের ইঙ্গিত দিলেন উত্তর কোরিয়ার শাসক। বর্তমান সময়ে এক দিকে রাশিয়া-ইউক্রেন ও ইজ়রায়েল-হামাস সংঘর্ষে উত্তপ্ত বিশ্ব। এই পরিস্থিতিতে কিমের মন্তব্য হুমকি নাকি আগাম সতর্কতা সেই নিয়েই শুরু হয়েছে জল্পনা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মীদের কিম জানিয়েছেন, যদি শত্রুবাহিনী উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়, সে ক্ষেত্রে কোনও রকম দ্বিধা না রেখেই শত্রুদের গুঁড়িয়ে দেওয়ার বার্তাও দিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার শাসক। সে জন্য যে কোনও পদক্ষেপ করার কথা জানিয়েছেন কিম।

আজ কিমের মন্তব্য তুলে ধরেছে সরকারি সংবাদমাধ্যম। কিম বলেছেন, “আন্তর্জাতিক পরিস্থিতি জটিল… দেশের চারদিকে সামরিক ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি অনিশ্চিত ও অস্থিতিশীল।”

প্রসঙ্গত গত মঙ্গলবারই সফল ভাবে হাইপারসোনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করেছে উত্তর কোরিয়া। এই অস্ত্র তাঁদের দ্রুত ও আরও শক্তিশালী ভাবে প্রত্যাঘাতের ক্ষেত্র প্রস্তুত করে দিয়েছে বলেও জানান কিম।

যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত নিন, উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন

প্রকাশের সময় : ১১:৩২:৩৮ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ১২ এপ্রিল ২০২৪

অতীতে যে পরিমাণ প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে এ বার তার চেয়েও বেশি প্রস্তুত থাকতে হবে— এমনই মন্তব্য করলেন উত্তর কোরিয়ার শাসক কিম জং উন।

গত কাল, বুধবার কিম জানিয়েছেন, দেশের চারপাশের ভূরাজনৈতিক পরিস্থিতি অস্থিতিশীল। এই অবস্থায় যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত হওয়ার বার্তা দিয়েছেন তিনি। দেশে সব চেয়ে বড় সামরিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান কিম জং টু বিশ্ববিদ্যালয় পরিদর্শনের সময়ে এই মন্তব্য করেন তিনি। প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি দ্রুত কোনও সংঘর্ষের ইঙ্গিত দিলেন উত্তর কোরিয়ার শাসক। বর্তমান সময়ে এক দিকে রাশিয়া-ইউক্রেন ও ইজ়রায়েল-হামাস সংঘর্ষে উত্তপ্ত বিশ্ব। এই পরিস্থিতিতে কিমের মন্তব্য হুমকি নাকি আগাম সতর্কতা সেই নিয়েই শুরু হয়েছে জল্পনা।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মীদের কিম জানিয়েছেন, যদি শত্রুবাহিনী উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে যুদ্ধে অবতীর্ণ হয়, সে ক্ষেত্রে কোনও রকম দ্বিধা না রেখেই শত্রুদের গুঁড়িয়ে দেওয়ার বার্তাও দিয়েছেন উত্তর কোরিয়ার শাসক। সে জন্য যে কোনও পদক্ষেপ করার কথা জানিয়েছেন কিম।

আজ কিমের মন্তব্য তুলে ধরেছে সরকারি সংবাদমাধ্যম। কিম বলেছেন, “আন্তর্জাতিক পরিস্থিতি জটিল… দেশের চারদিকে সামরিক ও রাজনৈতিক পরিস্থিতি অনিশ্চিত ও অস্থিতিশীল।”

প্রসঙ্গত গত মঙ্গলবারই সফল ভাবে হাইপারসোনিক ক্ষেপণাস্ত্রের পরীক্ষামূলক প্রয়োগ করেছে উত্তর কোরিয়া। এই অস্ত্র তাঁদের দ্রুত ও আরও শক্তিশালী ভাবে প্রত্যাঘাতের ক্ষেত্র প্রস্তুত করে দিয়েছে বলেও জানান কিম।