মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

আওয়ামী লীগ জনগণের সরকার নয়, তারা দখলদারীর সরকার-মির্জা ফখরুল

আওয়ামী লীগ জনগণের সরকার নয়, তারা দখলদারীর সরকার বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, ‘আমরা কোনোদিন কোনো দখল মেনে নেয়নি, আমরা কোনো দখল মেনে নেব না। আমরা একটা স্বাধীন জাতি, স্বাধীনভাবে বাঁচতে চাই। সেই স্বাধীনতার দাবি নিয়ে আমরা আন্দোলন-সংগ্রাম করছি।’ 

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) বিকালে ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলায় পুলিশ হেফাজতে মারা যাওয়া হরিপুর উপজেলা যুবদলের সদস্য সচিব আকরাম হোসেনের কবর জিয়ারত ও তার পরিবারের সঙ্গে দেখা করে এক শোক সভায় তিনি এসব বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘হাজার হাজার মানুষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে সাজা দেওয়া হয়েছে। এই অবস্থায় একটা দেশ চলতে পারে না। আমরা একটা শান্তিপূর্ণ পরিবেশ চাই; একটা শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচন চাই, যা হবে সুষ্ঠু-অবাধ নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে। যে নির্বাচনের মাধ্যমে আমরা এমন একটা সরকার গঠন করতে চাই যারা দেশের মানুষের কথা শুনবে এবং দেশের মানুষের কাছে জবাবদিহিতা করবে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের আন্দোলন চলাকালে প্রায় ৩০ জন নেতাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। আমাদের ৬০ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যে মামলা দেওয়া হয়েছে। ৭০০-৮০০ নেতাকর্মীকে গুম করে দেওয়া হয়েছে। অক্টোবরে আন্দোলনের পরে ২৭ হাজার নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমি নিজেও সাড়ে তিন মাস কারাগারে ছিলাম। এর মধ্যে অসংখ্য নেতাকর্মী জেলে ছিল। এই সরকার যারা মানুষের ভোটে নির্বাচিত হয়নি তারা আজকে সারা দেশকে নির্যাতনের কারখানায় পরিণত করেছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে ঈদুল ফিতর সাধারণ মানুষের জন্য আনন্দের বার্তা নিয়ে আসেনি। ঈদের আনন্দ সব মিলিয়ে গেছে জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে। সরকার সুপরিকল্পিতভাবে দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। মানুষের খাওয়ার উপায় নেই, বাজারে জিনিসপত্রের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে।’এসময় ঠাকুরগাঁও জেলা, উপজেলা বিএনপি ও সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

আওয়ামী লীগ জনগণের সরকার নয়, তারা দখলদারীর সরকার-মির্জা ফখরুল

প্রকাশের সময় : ০৩:০৮:৫১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৩ এপ্রিল ২০২৪

আওয়ামী লীগ জনগণের সরকার নয়, তারা দখলদারীর সরকার বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেছেন, ‘আমরা কোনোদিন কোনো দখল মেনে নেয়নি, আমরা কোনো দখল মেনে নেব না। আমরা একটা স্বাধীন জাতি, স্বাধীনভাবে বাঁচতে চাই। সেই স্বাধীনতার দাবি নিয়ে আমরা আন্দোলন-সংগ্রাম করছি।’ 

শুক্রবার (১২ এপ্রিল) বিকালে ঠাকুরগাঁওয়ের হরিপুর উপজেলায় পুলিশ হেফাজতে মারা যাওয়া হরিপুর উপজেলা যুবদলের সদস্য সচিব আকরাম হোসেনের কবর জিয়ারত ও তার পরিবারের সঙ্গে দেখা করে এক শোক সভায় তিনি এসব বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘হাজার হাজার মানুষকে মিথ্যা মামলা দিয়ে সাজা দেওয়া হয়েছে। এই অবস্থায় একটা দেশ চলতে পারে না। আমরা একটা শান্তিপূর্ণ পরিবেশ চাই; একটা শান্তিপূর্ণ ভাবে নির্বাচন চাই, যা হবে সুষ্ঠু-অবাধ নিরপেক্ষ সরকারের অধিনে। যে নির্বাচনের মাধ্যমে আমরা এমন একটা সরকার গঠন করতে চাই যারা দেশের মানুষের কথা শুনবে এবং দেশের মানুষের কাছে জবাবদিহিতা করবে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমাদের আন্দোলন চলাকালে প্রায় ৩০ জন নেতাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। আমাদের ৬০ লাখ মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যে মামলা দেওয়া হয়েছে। ৭০০-৮০০ নেতাকর্মীকে গুম করে দেওয়া হয়েছে। অক্টোবরে আন্দোলনের পরে ২৭ হাজার নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। আমি নিজেও সাড়ে তিন মাস কারাগারে ছিলাম। এর মধ্যে অসংখ্য নেতাকর্মী জেলে ছিল। এই সরকার যারা মানুষের ভোটে নির্বাচিত হয়নি তারা আজকে সারা দেশকে নির্যাতনের কারখানায় পরিণত করেছে।’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতির কারণে ঈদুল ফিতর সাধারণ মানুষের জন্য আনন্দের বার্তা নিয়ে আসেনি। ঈদের আনন্দ সব মিলিয়ে গেছে জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে। সরকার সুপরিকল্পিতভাবে দেশের অর্থনীতিকে ধ্বংস করে দিচ্ছে। মানুষের খাওয়ার উপায় নেই, বাজারে জিনিসপত্রের দাম অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে।’এসময় ঠাকুরগাঁও জেলা, উপজেলা বিএনপি ও সহযোগি সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।