মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

পরমাণু নীতিতে পরিবর্তন আসতে পারে: ইরান

  • অনলাইন ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : ০৩:৫২:৪৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪
  • ১৮

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহমাদ হাক তালাব। ছবি- দি টাইমস অফ ইসরাইল

ইরানের পারমাণবিক কেন্দ্রগুলোর নিরাপত্তা ও সুরক্ষা বিভাগের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহমাদ হাক তালাব বলেছেন, ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের পারমাণবিক নীতি ও ডকট্রিনে পরিবর্তন এবং এর আগে ঘোষিত এ সংক্রান্ত আপত্তিকে উপেক্ষা করার সম্ভাবনা রয়েছে।

ইরানের পরমাণু কেন্দ্র ও স্থাপনাগুলোতে হামলার ইসরায়েলি হুমকির প্রতিক্রিয়ায় গতকাল বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) তিনি এ কথা বলেন।

ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসির কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহমাদ হাক তালাব আরো বলেছেন, এ ধরণের হুমকি নতুন কিছু নয়। অবৈধ ইহুদিবাদী ইসরায়েল বহু বছর ধরেই এ ধরণের হুমকি দিয়ে আসছে। তারা এর আগে ইরানের পারমাণবিক শিল্পের বিরুদ্ধে নাশকতা চালিয়েছে এবং সন্ত্রাসী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

তিনি আরো বলেন, যদিও আন্তর্জাতিক প্রটোকল ও নীতিমালা এবং আন্তর্জাতিক পরমাণু সংস্থার আইন ও বিধি অনুযায়ী বিশ্বের যেকোনো দেশের পারমাণবিক স্থাপনায় হামলা থেকে বিরত থাকার কথা বলা হয়েছে। এরপরও ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান প্রথম থেকেই এসব হুমকি মোকাবেলায় জন্য সব সময় প্রস্তুত ছিল এবং এখনো প্রস্তুত আছে।

জেনারেল হাক তালাব বলেন, সম্প্রতি ইহুদিবাদী শাসক গোষ্ঠী সিরিয়ায় ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের দূতাবাসের কনস্যুলার বিভাগে হামলা চালিয়ে সব ধরণের আন্তর্জাতিক আইন ও নীতিমালা লঙ্ঘন করেছে। এরপর তারা পরমাণু কেন্দ্রে হামলার মতো কোনো পদক্ষেপ নিলে আল্লাহর রহমতে আমরা সর্বোচ্চ নেতা ও সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়কের দিক-নির্দেশনায়, সশস্ত্র বাহিনীর সাহসী সন্তানদের প্রচেষ্টায়, প্যাসিভ ডিফেন্স পরিকল্পনা বাস্তবায়ন এবং অতি উন্নত অস্ত্র ও সরঞ্জাম ব্যবহারের পাশাপাশি পারমাণবিক কেন্দ্র ও স্থাপনাগুলোর অবস্থানগত সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে যেকোনো হুমকি মোকাবেলা করব ও আমরা এ জন্য পূর্ণ প্রস্তুত আছি।

শত্রুর যেকোনো আগ্রাসনের জবাব দিতে সশস্ত্র বাহিনী সম্পূর্ণ প্রস্তুত রয়েছে উল্লেখ করে ইরানের পরমাণু কেন্দ্রগুলোর নিরাপত্তা ও সুরক্ষায় নিয়োজিত ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসির এ সংক্রান্ত কমান্ডার জোর দিয়ে বলেছেন, ইসরায়েলের পরমাণু কেন্দ্রগুলোকে আমরা চিহ্নিত করে রেখেছি এবং চরম আঘাত হানার জন্য প্রয়োজনীয় সব রকম তথ্য-উপাত্ত আমাদের হাতে রয়েছে। তাই, ইসরায়েল যদি ইরানে হামলা চালানোর দুঃসাহস দেখায় তাহলে তাদের নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তু ধ্বংস করার জন্য শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার ট্রিগারে আঙ্গুল রাখা আছে।

তিনি আরো বলেছেন, ইসরায়েল যদি আমাদের পারমাণবিক স্থাপনায় কোনো ধরনের  হামলা চালায় তাহলে তাদের জেনে রাখা উচিত যে, আমাদের অত্যাধুনিক অস্ত্র  দিয়ে ইসরায়েলের পরমাণু স্থাপনাগুলোতে বড় ধরনের হামলা চালানো হবে। তিনি এও বলেন, ইসরায়েল যদি পারমাণবিক কেন্দ্রে হামলার হুমকিকে ইরানের ওপর চাপ সৃষ্টির হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে চায়, তাহলে পরমাণু ইস্যুতে ইরানের নীতিতে পরিবর্তন আসতে পারে এবং পূর্ব ঘোষণা থেকে সরে আসা অসম্ভব কিছু নয়। আঘাত করে পার পাওয়ার যুগ শেষ হয়ে গেছে সর্বোচ্চ নেতার এই বক্তব্যকে তুলে ধরে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হাক তালাব বলেছেন, ইসরায়েল যদি ইরানের বিরুদ্ধে কোনো আগ্রাসন চালায়, তাহলে ইরানের সশস্ত্র বাহিনী এর উপযুক্ত জবাব দেবে। এ ব্যাপারে তারা নিশ্চিত থাকতে পারে যে, সত্য প্রতিশ্রুতি সামরিক অভিযানের মতো আমাদের সশস্ত্র বাহিনী এবারও তাদের ওপর এমন আঘাত হানবে যা ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

তিনি তার বক্তব্যের শেষ অংশে বলেছেন, আমরা ইরানের প্রিয় ও সম্মানিত জনগণকে এ নিশ্চয়তা দিচ্ছি যে, আইআরজিসিতে নিয়োজিত আপনাদের বিপ্লবী সন্তানেরা, আপনাদের সেনাবাহিনী, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, নিরাপত্তা ও গোয়েন্দা বিভাগ উন্নত প্যাসিভ ডিফেন্স পরিকল্পনা এবং অত্যাধুনিক সুরক্ষা সরঞ্জাম ব্যবহার করে পরমাণু কেন্দ্রগুলো রক্ষায় তৎপর রয়েছে। তাই আমাদের দেশের পারমাণবিক কেন্দ্রগুলো সম্পূর্ণ নিরাপদ রয়েছে।

পরমাণু নীতিতে পরিবর্তন আসতে পারে: ইরান

প্রকাশের সময় : ০৩:৫২:৪৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪

ইরানের পারমাণবিক কেন্দ্রগুলোর নিরাপত্তা ও সুরক্ষা বিভাগের কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহমাদ হাক তালাব বলেছেন, ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের পারমাণবিক নীতি ও ডকট্রিনে পরিবর্তন এবং এর আগে ঘোষিত এ সংক্রান্ত আপত্তিকে উপেক্ষা করার সম্ভাবনা রয়েছে।

ইরানের পরমাণু কেন্দ্র ও স্থাপনাগুলোতে হামলার ইসরায়েলি হুমকির প্রতিক্রিয়ায় গতকাল বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) তিনি এ কথা বলেন।

ইরানের ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসির কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আহমাদ হাক তালাব আরো বলেছেন, এ ধরণের হুমকি নতুন কিছু নয়। অবৈধ ইহুদিবাদী ইসরায়েল বহু বছর ধরেই এ ধরণের হুমকি দিয়ে আসছে। তারা এর আগে ইরানের পারমাণবিক শিল্পের বিরুদ্ধে নাশকতা চালিয়েছে এবং সন্ত্রাসী পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

তিনি আরো বলেন, যদিও আন্তর্জাতিক প্রটোকল ও নীতিমালা এবং আন্তর্জাতিক পরমাণু সংস্থার আইন ও বিধি অনুযায়ী বিশ্বের যেকোনো দেশের পারমাণবিক স্থাপনায় হামলা থেকে বিরত থাকার কথা বলা হয়েছে। এরপরও ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরান প্রথম থেকেই এসব হুমকি মোকাবেলায় জন্য সব সময় প্রস্তুত ছিল এবং এখনো প্রস্তুত আছে।

জেনারেল হাক তালাব বলেন, সম্প্রতি ইহুদিবাদী শাসক গোষ্ঠী সিরিয়ায় ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের দূতাবাসের কনস্যুলার বিভাগে হামলা চালিয়ে সব ধরণের আন্তর্জাতিক আইন ও নীতিমালা লঙ্ঘন করেছে। এরপর তারা পরমাণু কেন্দ্রে হামলার মতো কোনো পদক্ষেপ নিলে আল্লাহর রহমতে আমরা সর্বোচ্চ নেতা ও সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়কের দিক-নির্দেশনায়, সশস্ত্র বাহিনীর সাহসী সন্তানদের প্রচেষ্টায়, প্যাসিভ ডিফেন্স পরিকল্পনা বাস্তবায়ন এবং অতি উন্নত অস্ত্র ও সরঞ্জাম ব্যবহারের পাশাপাশি পারমাণবিক কেন্দ্র ও স্থাপনাগুলোর অবস্থানগত সুবিধাকে কাজে লাগিয়ে যেকোনো হুমকি মোকাবেলা করব ও আমরা এ জন্য পূর্ণ প্রস্তুত আছি।

শত্রুর যেকোনো আগ্রাসনের জবাব দিতে সশস্ত্র বাহিনী সম্পূর্ণ প্রস্তুত রয়েছে উল্লেখ করে ইরানের পরমাণু কেন্দ্রগুলোর নিরাপত্তা ও সুরক্ষায় নিয়োজিত ইসলামি বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসির এ সংক্রান্ত কমান্ডার জোর দিয়ে বলেছেন, ইসরায়েলের পরমাণু কেন্দ্রগুলোকে আমরা চিহ্নিত করে রেখেছি এবং চরম আঘাত হানার জন্য প্রয়োজনীয় সব রকম তথ্য-উপাত্ত আমাদের হাতে রয়েছে। তাই, ইসরায়েল যদি ইরানে হামলা চালানোর দুঃসাহস দেখায় তাহলে তাদের নির্দিষ্ট লক্ষ্যবস্তু ধ্বংস করার জন্য শক্তিশালী ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার ট্রিগারে আঙ্গুল রাখা আছে।

তিনি আরো বলেছেন, ইসরায়েল যদি আমাদের পারমাণবিক স্থাপনায় কোনো ধরনের  হামলা চালায় তাহলে তাদের জেনে রাখা উচিত যে, আমাদের অত্যাধুনিক অস্ত্র  দিয়ে ইসরায়েলের পরমাণু স্থাপনাগুলোতে বড় ধরনের হামলা চালানো হবে। তিনি এও বলেন, ইসরায়েল যদি পারমাণবিক কেন্দ্রে হামলার হুমকিকে ইরানের ওপর চাপ সৃষ্টির হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করতে চায়, তাহলে পরমাণু ইস্যুতে ইরানের নীতিতে পরিবর্তন আসতে পারে এবং পূর্ব ঘোষণা থেকে সরে আসা অসম্ভব কিছু নয়। আঘাত করে পার পাওয়ার যুগ শেষ হয়ে গেছে সর্বোচ্চ নেতার এই বক্তব্যকে তুলে ধরে ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হাক তালাব বলেছেন, ইসরায়েল যদি ইরানের বিরুদ্ধে কোনো আগ্রাসন চালায়, তাহলে ইরানের সশস্ত্র বাহিনী এর উপযুক্ত জবাব দেবে। এ ব্যাপারে তারা নিশ্চিত থাকতে পারে যে, সত্য প্রতিশ্রুতি সামরিক অভিযানের মতো আমাদের সশস্ত্র বাহিনী এবারও তাদের ওপর এমন আঘাত হানবে যা ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে থাকবে।

তিনি তার বক্তব্যের শেষ অংশে বলেছেন, আমরা ইরানের প্রিয় ও সম্মানিত জনগণকে এ নিশ্চয়তা দিচ্ছি যে, আইআরজিসিতে নিয়োজিত আপনাদের বিপ্লবী সন্তানেরা, আপনাদের সেনাবাহিনী, আইন প্রয়োগকারী সংস্থা, নিরাপত্তা ও গোয়েন্দা বিভাগ উন্নত প্যাসিভ ডিফেন্স পরিকল্পনা এবং অত্যাধুনিক সুরক্ষা সরঞ্জাম ব্যবহার করে পরমাণু কেন্দ্রগুলো রক্ষায় তৎপর রয়েছে। তাই আমাদের দেশের পারমাণবিক কেন্দ্রগুলো সম্পূর্ণ নিরাপদ রয়েছে।