মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভুল চিকিৎসায় গরু মৃত্যুর অভিযোগ

রাজবাড়ী বালিয়াকান্দিতে উপজেলা প্রাণী সম্পদ দপ্তরে  এ. আই টেকনিশিয়ান কৃত্রিম প্রজনন পয়েন্টে কর্মরত সাব্বির মাহমুদ অন্তরের  বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসা দিয়ে গরু মারার অভিযোগ করে উপজেলার ইসলাম পুর ইউনিয়নের  সারুটিয়া গ্রামের  মো শাহজাহান মিয়া বলেন, আমার ষাড় গরু গায়ে কয়েকটি গুটি দেখা দিলে আমি  অন্তর ডাক্তার ,কে জানালে গত মাসের ২৩ তারিখে সে প্রথম দিন ৪টি ইনজেকশন দিয়ে ও ওষুধ লিখে চলে যায় পরের দিন আবার তাকে ফোনদিলে সে এসে ৪টি ইনজেকশন আবার দেয় ধারাবাহিক ভাবে ৩টি এন্টিবায়োটিক ডোজ দিলে তার দু দিন পরে তাকে ডাকলে তিনি আসেন নি তার কাছে প্রশ্ন করছি সে বলে আমি সে ডাক্তার না যে গরুর খোজ-খবর সুনবো পরে সে আর আসেনি।  আমি উপায় না পেয়ে বালিয়াকান্দি মিন্টু ভায়ের সাথে আলাপ করি সে আসে এবং বালিয়াকান্দি বড় ডাক্তারদের সাথে আলাপ করে বলে যে, এন্টিবায়োটিক ডোজ দেয়ার পরে এ গরুর আর চিকিৎসা হয় না। এর ভিতরে অন্তর ডাক্তার আরেক জনের কাছে বলেছে যে ইনজেকশন দিছি এক আল্লাহ যদি বাঁচায় তা ছারা এগরু বাচানোর মতো কোন পরিবেশ নাই। সে আমার গরুর যে চিকিৎসা দিয়েছে তার কোন প্রেসকাইপ করে নি এবং যে ইনজেকশন দিছে কিছু তিনি ছুড়ে ফেলে দেয়।
এই সাব্বির মাহমুদ অন্তরের ভুল চিকিৎসার ফলে সোমবার ( ৬ মে)  বিকালে  আমার প্রায় দেড় লক্ষ টাকার গরু টি মারা যায় আমি এর বিচার চাই যেন  ভবিষ্যতে আর কোন খারামরির যেন এতবড় ক্ষতি না হয়।
এবিষয়ে অভিযুক্ত এআই টেকনিশিয়ান সাব্বির মহমুদ অন্তর বলেন, এই বিষয়ে আমরা স্থানীয় ভাবে বসা হয়ছে চেয়ারম্যানের মাধ্যমে, এ.আই টেকনিশিয়ান হয়ে পশুর চিকিৎসা দিতে পারবেন কিনা প্রশ্ন করলে তিনি বলেন আমরা  দিতে পারবো না,  মো শাহজাহান মিয়া গরু এন্টিবায়োটিক পুসের কারনে মারা যাওয়ার অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন এটি এখনো প্রমান হয় নি? কালকে অনককে নিয়ে বসা হয়েছে বিষয়টি সমাধানের পর্যায়ে পরে তিনি বলেন আমি কেদার ভিতরে গাড়ি চালাচ্ছি আমি আপনাকে পরে কল দিচ্ছি।
এবিষয়ে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মানবেন্দ্র মজুমদার  বলেন  ডক্টর অফ ভেটেনারি মেডিসিন (ডিভিএম) পাস করে ভেটেনারি কাউন্সিল থেকে  রেজিষ্ট্রেশনকৃত ছারা কেউ এন্টিবায়োটিক বা প্রেসকাইপ করতে পারবে না। ইসলামপুর সাটুরিয়ায় এলাকায় ভুল চিকিৎসায় গরু মৃত্যুর বিষয়ে তিনি বলেন বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ভুল চিকিৎসায় গরু মৃত্যুর অভিযোগ

প্রকাশের সময় : ০৮:৫৫:০১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৯ মে ২০২৪
রাজবাড়ী বালিয়াকান্দিতে উপজেলা প্রাণী সম্পদ দপ্তরে  এ. আই টেকনিশিয়ান কৃত্রিম প্রজনন পয়েন্টে কর্মরত সাব্বির মাহমুদ অন্তরের  বিরুদ্ধে ভুল চিকিৎসা দিয়ে গরু মারার অভিযোগ করে উপজেলার ইসলাম পুর ইউনিয়নের  সারুটিয়া গ্রামের  মো শাহজাহান মিয়া বলেন, আমার ষাড় গরু গায়ে কয়েকটি গুটি দেখা দিলে আমি  অন্তর ডাক্তার ,কে জানালে গত মাসের ২৩ তারিখে সে প্রথম দিন ৪টি ইনজেকশন দিয়ে ও ওষুধ লিখে চলে যায় পরের দিন আবার তাকে ফোনদিলে সে এসে ৪টি ইনজেকশন আবার দেয় ধারাবাহিক ভাবে ৩টি এন্টিবায়োটিক ডোজ দিলে তার দু দিন পরে তাকে ডাকলে তিনি আসেন নি তার কাছে প্রশ্ন করছি সে বলে আমি সে ডাক্তার না যে গরুর খোজ-খবর সুনবো পরে সে আর আসেনি।  আমি উপায় না পেয়ে বালিয়াকান্দি মিন্টু ভায়ের সাথে আলাপ করি সে আসে এবং বালিয়াকান্দি বড় ডাক্তারদের সাথে আলাপ করে বলে যে, এন্টিবায়োটিক ডোজ দেয়ার পরে এ গরুর আর চিকিৎসা হয় না। এর ভিতরে অন্তর ডাক্তার আরেক জনের কাছে বলেছে যে ইনজেকশন দিছি এক আল্লাহ যদি বাঁচায় তা ছারা এগরু বাচানোর মতো কোন পরিবেশ নাই। সে আমার গরুর যে চিকিৎসা দিয়েছে তার কোন প্রেসকাইপ করে নি এবং যে ইনজেকশন দিছে কিছু তিনি ছুড়ে ফেলে দেয়।
এই সাব্বির মাহমুদ অন্তরের ভুল চিকিৎসার ফলে সোমবার ( ৬ মে)  বিকালে  আমার প্রায় দেড় লক্ষ টাকার গরু টি মারা যায় আমি এর বিচার চাই যেন  ভবিষ্যতে আর কোন খারামরির যেন এতবড় ক্ষতি না হয়।
এবিষয়ে অভিযুক্ত এআই টেকনিশিয়ান সাব্বির মহমুদ অন্তর বলেন, এই বিষয়ে আমরা স্থানীয় ভাবে বসা হয়ছে চেয়ারম্যানের মাধ্যমে, এ.আই টেকনিশিয়ান হয়ে পশুর চিকিৎসা দিতে পারবেন কিনা প্রশ্ন করলে তিনি বলেন আমরা  দিতে পারবো না,  মো শাহজাহান মিয়া গরু এন্টিবায়োটিক পুসের কারনে মারা যাওয়ার অভিযোগের বিষয়ে তিনি বলেন এটি এখনো প্রমান হয় নি? কালকে অনককে নিয়ে বসা হয়েছে বিষয়টি সমাধানের পর্যায়ে পরে তিনি বলেন আমি কেদার ভিতরে গাড়ি চালাচ্ছি আমি আপনাকে পরে কল দিচ্ছি।
এবিষয়ে উপজেলা প্রাণী সম্পদ কর্মকর্তা ডা. মানবেন্দ্র মজুমদার  বলেন  ডক্টর অফ ভেটেনারি মেডিসিন (ডিভিএম) পাস করে ভেটেনারি কাউন্সিল থেকে  রেজিষ্ট্রেশনকৃত ছারা কেউ এন্টিবায়োটিক বা প্রেসকাইপ করতে পারবে না। ইসলামপুর সাটুরিয়ায় এলাকায় ভুল চিকিৎসায় গরু মৃত্যুর বিষয়ে তিনি বলেন বিষয়টি খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।