মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিদেশে লোক পাঠানোর নামে প্রতারণা, থানায় অভিযোগ 

কিরগিজস্তানে লোক পাঠানোর নামে প্রতারণা, তাদের ভিসা এক্সটেনশন না করা, সময়মত ফ্লাইট না দেওয়া, টাকা নিয়েও লোক না পাঠানো, পাওনা টাকা চাওয়াই হুমকি দেয়া সহ বিভিন্ন কারণে মোখলেসুর রহমান নামের একজন ট্রাভেল এজেন্সির মালিকের নামে পল্টন মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন মোঃ জহির উদ্দিন নামের একজন। মোকলেসুর রহমান ছাড়াও রাখী রানী দাস ও মোঃ শহিদ নামে আরও দুজনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।
অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, রাখী রানী দাস মোখলেসুর রহমান এর ব্যবসায়ী অংশীদার এবং শহিদ তার আপন বড়ভাই।  অভিযুক্তরা পরস্পর যোগসাজশে বিদেশে লোক পাঠানোর নামে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ নিয়ে তাদের সাথে ছলচাতুরী করে প্রতারণা করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় মোঃ জহির উদ্দিন ৮ জন ব্যক্তিকে কিরগিজস্তানে পাঠানোর জন্য মোখলেসুর রহমানের ঢাকা পুরানো পল্টন এর ৭০/এফ ভবনের ৬ষ্ঠ তলার অফিসে গিয়ে ২০ লক্ষ টাকা প্রদান করেন। এই ৮জন ব্যক্তি কিরগিজস্তানে পৌছানোর পরে তাদের ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর কথা থাকলেও মোকলেসুর রহমান সেটা না করায় জহির উদ্দিন যোগাযোগ করলে তিনি তাকে ৯ লক্ষ ২১ হাজার টাকা ফেরত দিবেন বলে লিখিত চুক্তি করেন। কিন্তু অদ্যবধি তিনি একটি টাকাও দেননি। টাকা চাইতে গেলে তারা বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি এবং প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে।
এদিকে কিরগিজস্তান প্রবাসী ট্রাভেলস ব্যবসায়ী মোঃ ইমরান কাজি বলেন, মোখলেসুর রহমানকে আমি মোট ৬০ টি ভিসা দিয়েছি তার মধ্যে ৪০ টি একবার করে এবং ২০ টি ভিসা এক্সটেনশন সহ মোট ৩৬০০০ ডলার যা বাংলাদেশী টাকায় হয় ৪৩ লক্ষ ৯২ হাজার টাকা কিন্তু সে আমাকে দিয়েছে ৪১ লক্ষ ২৪ হাজার টাকা এবং ১৪ জন ফ্লাইট দিয়েছে তাদের ভিসা এক্সটেনশন করা বাবদ কোনো টাকা দেয় নাই, যার কারণে তারা ঠিক মতো চলাফেরা করতে পারে না এবং কাজ করলেও মালিকেরা সঠিক ভাবে বেতন দিচ্ছে না। এখন মোখলেসুর রহমানের কাছে টাকা চাইলে তিনি আমাকে এবং দেশে থাকা আমার পরিবারকে বিভিন্ন সময় হুমকি ধামকি দিচ্ছে। এ বিষয়ে জানতে মোখলেসুর রহমানের ব্যক্তিগত মোবাইল নংএ কয়েকবার ফোন দিলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।

বিদেশে লোক পাঠানোর নামে প্রতারণা, থানায় অভিযোগ 

প্রকাশের সময় : ০৫:০১:২৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০২৪
কিরগিজস্তানে লোক পাঠানোর নামে প্রতারণা, তাদের ভিসা এক্সটেনশন না করা, সময়মত ফ্লাইট না দেওয়া, টাকা নিয়েও লোক না পাঠানো, পাওনা টাকা চাওয়াই হুমকি দেয়া সহ বিভিন্ন কারণে মোখলেসুর রহমান নামের একজন ট্রাভেল এজেন্সির মালিকের নামে পল্টন মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন মোঃ জহির উদ্দিন নামের একজন। মোকলেসুর রহমান ছাড়াও রাখী রানী দাস ও মোঃ শহিদ নামে আরও দুজনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে।
অভিযোগ সুত্রে জানা যায়, রাখী রানী দাস মোখলেসুর রহমান এর ব্যবসায়ী অংশীদার এবং শহিদ তার আপন বড়ভাই।  অভিযুক্তরা পরস্পর যোগসাজশে বিদেশে লোক পাঠানোর নামে বিভিন্ন মানুষের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ অর্থ নিয়ে তাদের সাথে ছলচাতুরী করে প্রতারণা করে আসছে। এরই ধারাবাহিকতায় মোঃ জহির উদ্দিন ৮ জন ব্যক্তিকে কিরগিজস্তানে পাঠানোর জন্য মোখলেসুর রহমানের ঢাকা পুরানো পল্টন এর ৭০/এফ ভবনের ৬ষ্ঠ তলার অফিসে গিয়ে ২০ লক্ষ টাকা প্রদান করেন। এই ৮জন ব্যক্তি কিরগিজস্তানে পৌছানোর পরে তাদের ভিসার মেয়াদ বাড়ানোর কথা থাকলেও মোকলেসুর রহমান সেটা না করায় জহির উদ্দিন যোগাযোগ করলে তিনি তাকে ৯ লক্ষ ২১ হাজার টাকা ফেরত দিবেন বলে লিখিত চুক্তি করেন। কিন্তু অদ্যবধি তিনি একটি টাকাও দেননি। টাকা চাইতে গেলে তারা বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি এবং প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে।
এদিকে কিরগিজস্তান প্রবাসী ট্রাভেলস ব্যবসায়ী মোঃ ইমরান কাজি বলেন, মোখলেসুর রহমানকে আমি মোট ৬০ টি ভিসা দিয়েছি তার মধ্যে ৪০ টি একবার করে এবং ২০ টি ভিসা এক্সটেনশন সহ মোট ৩৬০০০ ডলার যা বাংলাদেশী টাকায় হয় ৪৩ লক্ষ ৯২ হাজার টাকা কিন্তু সে আমাকে দিয়েছে ৪১ লক্ষ ২৪ হাজার টাকা এবং ১৪ জন ফ্লাইট দিয়েছে তাদের ভিসা এক্সটেনশন করা বাবদ কোনো টাকা দেয় নাই, যার কারণে তারা ঠিক মতো চলাফেরা করতে পারে না এবং কাজ করলেও মালিকেরা সঠিক ভাবে বেতন দিচ্ছে না। এখন মোখলেসুর রহমানের কাছে টাকা চাইলে তিনি আমাকে এবং দেশে থাকা আমার পরিবারকে বিভিন্ন সময় হুমকি ধামকি দিচ্ছে। এ বিষয়ে জানতে মোখলেসুর রহমানের ব্যক্তিগত মোবাইল নংএ কয়েকবার ফোন দিলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।