মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মৃত মেয়ের বিয়ের জন্য পাত্র খুঁজছেন বাবা-মা

প্রতীকী ছবি। সংগৃহীত

ভারতে ত্রিশ বছর আগে মারা যাওয়া এক মেয়ের বিবাহের জন্য পাত্র চেয়ে সংবাদপত্রে দেওয়া একটি বিজ্ঞাপন আলোড়ন তুলেছে জনমনে।

আজ মঙ্গলবার (১৪ মে) এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ত্রিশ বছর আগে দক্ষিণ কন্নড় জেলার পুত্তুরের একটি পরিবারের শিশু কন্যা মারা যায়। এরপর থেকে তারা অপ্রত্যাশিত প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হয়। গুরুজনদের কাছ থেকে পরামর্শ চাইলে বলা হয়, তাদের সমস্যার মূলে তাদের মৃত কন্যার অস্থির মনোভাব। তাকে বিয়ে দিলে সমস্যার সমাধান হবে।

এই অপ্রচলিত বিজ্ঞাপনটির লক্ষ্য মৃত মেয়ের আত্মায় শান্তি আনা। একারণে পরিবারটি তার জন্য একটি বিবাহের ব্যবস্থা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

৩০ বছর আগে মারা যাওয়া কারও জন্য পাত্র খুঁজতে বাবা-মা জেলার একটি বহুল পঠিত পত্রিকায় একটি বিজ্ঞাপন দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপনে লেখা রয়েছে, ৩০ বছর আগে চলে যাওয়া এক পাত্রীর জন্য পাত্র খুঁজছি। দয়া করে ওই নম্বরে ফোন করে প্রেতাত্মার বিয়ের আয়োজন করুন।

তবে, আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধবদের আপ্রাণ চেষ্টা সত্ত্বেও সমবয়সী ও বর্ণের উপযুক্ত মৃত পাত্র এখনো  খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে জানান ও মৃত মেয়ের বাবা-মা।

মৃত মেয়ের বিয়ের জন্য পাত্র খুঁজছেন বাবা-মা

প্রকাশের সময় : ১০:১৭:৪৬ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৫ মে ২০২৪

ভারতে ত্রিশ বছর আগে মারা যাওয়া এক মেয়ের বিবাহের জন্য পাত্র চেয়ে সংবাদপত্রে দেওয়া একটি বিজ্ঞাপন আলোড়ন তুলেছে জনমনে।

আজ মঙ্গলবার (১৪ মে) এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে এনডিটিভি।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ত্রিশ বছর আগে দক্ষিণ কন্নড় জেলার পুত্তুরের একটি পরিবারের শিশু কন্যা মারা যায়। এরপর থেকে তারা অপ্রত্যাশিত প্রতিবন্ধকতার সম্মুখীন হয়। গুরুজনদের কাছ থেকে পরামর্শ চাইলে বলা হয়, তাদের সমস্যার মূলে তাদের মৃত কন্যার অস্থির মনোভাব। তাকে বিয়ে দিলে সমস্যার সমাধান হবে।

এই অপ্রচলিত বিজ্ঞাপনটির লক্ষ্য মৃত মেয়ের আত্মায় শান্তি আনা। একারণে পরিবারটি তার জন্য একটি বিবাহের ব্যবস্থা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

৩০ বছর আগে মারা যাওয়া কারও জন্য পাত্র খুঁজতে বাবা-মা জেলার একটি বহুল পঠিত পত্রিকায় একটি বিজ্ঞাপন দিয়েছেন।

বিজ্ঞাপনে লেখা রয়েছে, ৩০ বছর আগে চলে যাওয়া এক পাত্রীর জন্য পাত্র খুঁজছি। দয়া করে ওই নম্বরে ফোন করে প্রেতাত্মার বিয়ের আয়োজন করুন।

তবে, আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধবদের আপ্রাণ চেষ্টা সত্ত্বেও সমবয়সী ও বর্ণের উপযুক্ত মৃত পাত্র এখনো  খুঁজে পাওয়া যায়নি বলে জানান ও মৃত মেয়ের বাবা-মা।