সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নিয়মিত চশমা পরেন? এই বিষয়গুলো মেনে চলুন

ছবি-সংগৃহীত

চোখের সমস্যায় যাদের সবসময় চশমা পরে থাকতে হয়, চশমার বিরক্তি কেবল তারাই বুঝতে পারেন। তাই চশমার বদলবে লেন্স ব্যবহারের পথে হাঁটছেন অনেকে। কিন্তু আপনার যদি সেই উপায় না থাকে, অর্থাৎ চশমা যদি আপনাকে পরতেই হয়, তাহলে কয়েকটি বিষয় মেনে চলুন।

চশমা সবসময় নির্দিষ্ট খাপের মধ্যে রাখার চেষ্টা করুন। এতে চশমা ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা যেমন কমবে। তেমন খুঁজে পেতেও সুবিধা হবে।

প্রতিদিন অন্তত একবার চশমা পরিষ্কার করতেই হবে। হালকা গরম পানি এবং নরম কোনও সাবান দিয়ে চশমা ধুয়ে নিন। পানি ঝরে গেলে চশমা মোছার জন্য যে নরম কাপড়টি দেওয়া হয়েছে, তা দিয়ে লেন্স মুছে নিন।

চশমা বাছাইয়ের সময় একটু বাড়তি যত্নশীল হতেই হবে। মনে রাখবেন, চশমাও কিন্তু আপনার লুকেরই অংশ। তাই ঠিক কেমন লাগছে সে ব্যাপারে নিশ্চিত হয়ে নেওয়াই ভালো।

ব্যবহারের চশমা শক্তপোক্ত হওয়াই বাঞ্ছনীয়। যদি মনে হয়, স্রেফ রিডিং গ্লাস হলেই কাজ চলে যাবে, তা হলেও কিন্তু ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে তবেই নির্দিষ্ট পাওয়ারের চশমা নিন।

যাদের দৃষ্টিশক্তি ক্ষীণ, তাদের বাড়তি কয়েক সেট চশমা রাখা একান্ত আবশ্যক। অফিসের ব্যাগেও অবশ্যই স্পেয়ার চশমা রাখবেন।

চশমা তুলে মাথার ওপর রাখবেন না– তা যতই স্টাইলিশ দেখাক না কেন! এমনটা কয়েকবার করলেই তা আলগা হতে আরম্ভ করবে, আপনি যথাযথ ভিশন পাবেন না।

খালেদা জিয়ার রোগমুক্তি কামনা,চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির দোয়া মাহফিল

নিয়মিত চশমা পরেন? এই বিষয়গুলো মেনে চলুন

প্রকাশের সময় : ১১:৩০:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৬ মে ২০২৪

চোখের সমস্যায় যাদের সবসময় চশমা পরে থাকতে হয়, চশমার বিরক্তি কেবল তারাই বুঝতে পারেন। তাই চশমার বদলবে লেন্স ব্যবহারের পথে হাঁটছেন অনেকে। কিন্তু আপনার যদি সেই উপায় না থাকে, অর্থাৎ চশমা যদি আপনাকে পরতেই হয়, তাহলে কয়েকটি বিষয় মেনে চলুন।

চশমা সবসময় নির্দিষ্ট খাপের মধ্যে রাখার চেষ্টা করুন। এতে চশমা ভেঙে যাওয়ার সম্ভাবনা যেমন কমবে। তেমন খুঁজে পেতেও সুবিধা হবে।

প্রতিদিন অন্তত একবার চশমা পরিষ্কার করতেই হবে। হালকা গরম পানি এবং নরম কোনও সাবান দিয়ে চশমা ধুয়ে নিন। পানি ঝরে গেলে চশমা মোছার জন্য যে নরম কাপড়টি দেওয়া হয়েছে, তা দিয়ে লেন্স মুছে নিন।

চশমা বাছাইয়ের সময় একটু বাড়তি যত্নশীল হতেই হবে। মনে রাখবেন, চশমাও কিন্তু আপনার লুকেরই অংশ। তাই ঠিক কেমন লাগছে সে ব্যাপারে নিশ্চিত হয়ে নেওয়াই ভালো।

ব্যবহারের চশমা শক্তপোক্ত হওয়াই বাঞ্ছনীয়। যদি মনে হয়, স্রেফ রিডিং গ্লাস হলেই কাজ চলে যাবে, তা হলেও কিন্তু ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে তবেই নির্দিষ্ট পাওয়ারের চশমা নিন।

যাদের দৃষ্টিশক্তি ক্ষীণ, তাদের বাড়তি কয়েক সেট চশমা রাখা একান্ত আবশ্যক। অফিসের ব্যাগেও অবশ্যই স্পেয়ার চশমা রাখবেন।

চশমা তুলে মাথার ওপর রাখবেন না– তা যতই স্টাইলিশ দেখাক না কেন! এমনটা কয়েকবার করলেই তা আলগা হতে আরম্ভ করবে, আপনি যথাযথ ভিশন পাবেন না।