সোমবার, ২৪ জুন ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

জেএমবি নেতার লাশ দাফনের সময় সাংবাদিকের উপর হামলা

জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে জেএমবি’র সাজাপ্রাপ্ত নেতা মন্তেজার রহমানের লাশ ও লাশ দাফনের ছবি নিতে গেলে যমুনা টিভির সিনিয়র রিপোর্টার আব্দুল আলীমের উপর হামলা ও হত্যার হুমকি দেয়া হয়। এ বিষয়ে গত শুক্রবার বিকেলে ক্ষেতলাল থানায় জিডি করা হয়েছে।
জিডি সুত্রে জানাগেছে, ২০০৬ সালে পুলিশের উপর জেএমবির হামলার ঘটনায় আসামী হয়ে ২০০৭ সাল থেকে কারাগারে থাকা মন্তেজার গত মঙ্গলবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় বগুড়ায় মারা যান। গত বুধবার (১৫ মে) বিকেলে তার লাশ বাড়িতে আনা হলে উৎসুক জনতা ভিড় করে। সেখানে যমুনা টিভির রিপোর্টার আব্দুল আলীম ও নাগরিক টিভির জেলা প্রতিনিধি মাহফুজার রহমান সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে তাদের বাঁধা দেয়া হয় এবং যমুনা টিভির সিনিয়র রিপোর্টার আব্দুল আলীম পরিচয় দেয়ার পরেও তার উপর আক্রমন করে। এসময় কয়েকজন গালিগালাজ করে তাকে হত্যার হুমকি দেয়। এঘটনায় ওই রিপোর্টার ক্ষেতলাল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।
এ বিষয়ে ক্ষেতলাল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইমায়েদুল জাহেদী বলেন, সাংবাদিককে হত্যা ও হুমকির জিডি গ্রহণ করা হয়েছে। ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
উল্লেখ্য, মন্তেজার জেএমবির শীর্ষ নেতা শায়খ আ. রহমান ও বাংলা ভাইয়ের অন্যতম সহযোগী ছিলেন। ২০০৬ সালে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় সে এতদিন জেলে ছিল

জেএমবি নেতার লাশ দাফনের সময় সাংবাদিকের উপর হামলা

প্রকাশের সময় : ০৩:৩০:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪
জয়পুরহাটের ক্ষেতলালে জেএমবি’র সাজাপ্রাপ্ত নেতা মন্তেজার রহমানের লাশ ও লাশ দাফনের ছবি নিতে গেলে যমুনা টিভির সিনিয়র রিপোর্টার আব্দুল আলীমের উপর হামলা ও হত্যার হুমকি দেয়া হয়। এ বিষয়ে গত শুক্রবার বিকেলে ক্ষেতলাল থানায় জিডি করা হয়েছে।
জিডি সুত্রে জানাগেছে, ২০০৬ সালে পুলিশের উপর জেএমবির হামলার ঘটনায় আসামী হয়ে ২০০৭ সাল থেকে কারাগারে থাকা মন্তেজার গত মঙ্গলবার চিকিৎসাধীন অবস্থায় বগুড়ায় মারা যান। গত বুধবার (১৫ মে) বিকেলে তার লাশ বাড়িতে আনা হলে উৎসুক জনতা ভিড় করে। সেখানে যমুনা টিভির রিপোর্টার আব্দুল আলীম ও নাগরিক টিভির জেলা প্রতিনিধি মাহফুজার রহমান সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে তাদের বাঁধা দেয়া হয় এবং যমুনা টিভির সিনিয়র রিপোর্টার আব্দুল আলীম পরিচয় দেয়ার পরেও তার উপর আক্রমন করে। এসময় কয়েকজন গালিগালাজ করে তাকে হত্যার হুমকি দেয়। এঘটনায় ওই রিপোর্টার ক্ষেতলাল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন।
এ বিষয়ে ক্ষেতলাল থানার পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ইমায়েদুল জাহেদী বলেন, সাংবাদিককে হত্যা ও হুমকির জিডি গ্রহণ করা হয়েছে। ঘটনা তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
উল্লেখ্য, মন্তেজার জেএমবির শীর্ষ নেতা শায়খ আ. রহমান ও বাংলা ভাইয়ের অন্যতম সহযোগী ছিলেন। ২০০৬ সালে পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় সে এতদিন জেলে ছিল