মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বেলকুচিতে অগ্নিকান্ডে ৩ টি বসতঘর পুড়ে ছাই 

সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে অগ্নিকান্ডে বসত বাড়ির তিনটি ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। স্থানীয়দের সহায়তায় প্রায় ১ ঘন্টা চেষ্টার পর গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় দশ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।
রবিবার (১৯ মে) সকালে উপজেলার চন্দনগাঁতী দক্ষিণ পাড়া গ্রামের মনো দেবের বাড়িতে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।’
বেলকুচি পৌর ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফজলুর রহমান ফজল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সকাল ৯ টার দিকে বিদুতোর সর্টসার্কিটে আগুনের শুত্রপাত হয়ে মনো ড্রাইবারসহ তার ভাই সুশান্ত ও মা প্রমিলার ঘরের আসবারপত্রসহ সম্পুর্ণ পুরে ছাই হয়েছে। এতে তাদের আনুমানিক ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
মনো দেব জানান, বিদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে প্রথমে আগুনের সুত্রপাত্র হয়। আমার ঘরে প্রথম আগুন লেগে যায়। আগুন ছড়িয়ে পড়লে মা ও ছোট ভাইয়ের ঘরে আগুন লাগে। তিনটি ঘরসহ আসবারপত্র পুরে ছাই হয়ে যায়। তিনটি ঘর পুরে যাওয়ার পর স্থানীয়দের সহায়তায় প্রায় ১ ঘন্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে। এতে আমাদের প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস এসে ছিলো কিন্তু রাস্তা উপরে নিচু নিচু গাছের ডাল থাকার করনে  কারণে ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে পারেনি।
বেলকুচি ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাষ্টার শহিদুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলের উদ্দেশে রওনা হই। কিন্তু যেখানে অগ্নিকান্ডের ঘটনা সেখাকার রাস্তা নিচু নিচু গাছের ডাল থাকার কারণে আমাদের গাড়ি পৌঁছাতে পারিনি। আমারা প্রায় ১ কিলোমিটার পথ হেটেঁ যাওয়ার পরে ঘটনাস্থলে দেখি স্থানীদের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রনে এসেছে।’

বেলকুচিতে অগ্নিকান্ডে ৩ টি বসতঘর পুড়ে ছাই 

প্রকাশের সময় : ০৭:৪৪:০০ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪
সিরাজগঞ্জের বেলকুচিতে অগ্নিকান্ডে বসত বাড়ির তিনটি ঘর পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। স্থানীয়দের সহায়তায় প্রায় ১ ঘন্টা চেষ্টার পর গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এ ঘটনায় দশ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।
রবিবার (১৯ মে) সকালে উপজেলার চন্দনগাঁতী দক্ষিণ পাড়া গ্রামের মনো দেবের বাড়িতে এ অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে।’
বেলকুচি পৌর ৬ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ফজলুর রহমান ফজল বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, সকাল ৯ টার দিকে বিদুতোর সর্টসার্কিটে আগুনের শুত্রপাত হয়ে মনো ড্রাইবারসহ তার ভাই সুশান্ত ও মা প্রমিলার ঘরের আসবারপত্রসহ সম্পুর্ণ পুরে ছাই হয়েছে। এতে তাদের আনুমানিক ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
মনো দেব জানান, বিদ্যুতিক শর্টসার্কিট থেকে প্রথমে আগুনের সুত্রপাত্র হয়। আমার ঘরে প্রথম আগুন লেগে যায়। আগুন ছড়িয়ে পড়লে মা ও ছোট ভাইয়ের ঘরে আগুন লাগে। তিনটি ঘরসহ আসবারপত্র পুরে ছাই হয়ে যায়। তিনটি ঘর পুরে যাওয়ার পর স্থানীয়দের সহায়তায় প্রায় ১ ঘন্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রনে আসে। এতে আমাদের প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। ফায়ার সার্ভিস এসে ছিলো কিন্তু রাস্তা উপরে নিচু নিচু গাছের ডাল থাকার করনে  কারণে ঘটনাস্থলে পৌঁছাতে পারেনি।
বেলকুচি ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন মাষ্টার শহিদুল ইসলাম জানান, খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক ঘটনাস্থলের উদ্দেশে রওনা হই। কিন্তু যেখানে অগ্নিকান্ডের ঘটনা সেখাকার রাস্তা নিচু নিচু গাছের ডাল থাকার কারণে আমাদের গাড়ি পৌঁছাতে পারিনি। আমারা প্রায় ১ কিলোমিটার পথ হেটেঁ যাওয়ার পরে ঘটনাস্থলে দেখি স্থানীদের সহযোগিতায় আগুন নিয়ন্ত্রনে এসেছে।’