মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত

ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী’বিধ্বস্ত’ হেলিকপ্টারের সঙ্গে রেডিও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়েছিল বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহমাদ ওয়াহিদি।

আজ রোববার আলজাজিরার প্রতিবেদনে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, রেডিও যোগাযোগের সময় বিস্তারিত তথ্য পাওয়ার আগেই সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদ এজেন্সি ইরনার প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট রাইসি আজারবাইজান-ইরান সীমান্তে একটি বাঁধ খোলার অনুষ্ঠান থেকে ফেরার সময় ভারজাকান অঞ্চলে তাকে বহনকারী হেলিকপ্টার অবতরণের সময় বিধ্বস্ত হয়।

এ ঘটনার পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট রাইসি এবং ওই হেলিকপ্টারে থাকা অন্য সদস্যদের খোঁজ পাওয়া যায়নি।

হেলিকপ্টারে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমিরাবদুল্লাহিয়ান, পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের গভর্নর মালেক রহমাতিসহ আরও বেশ কয়েকজন সিনিয়র কর্মকর্তা ছিলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহমাদ ওয়াহিদি জানিয়েছেন, হেলিকপ্টারটি অনুসন্ধানে উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে, কিন্তু খারাপ আবহাওয়ার কারণে তাদের এই অভিযান বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, প্রেসিডেন্টের এই বহরে মোট তিনটি হেলিকপ্টার ছিল। এর মধ্যে দুটি নিরাপদে ফিরে এলেও খারাপ আবহাওয়ার কবলে পরে প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টারটিকেই ‘হার্ড ল্যান্ডিং’ করতে হয়।

ইরানের আধা-সরকারি গণমাধ্যম তাসনিম নিউজ জানিয়েছে, হেলিকপ্টারটির ভেতরে প্রেসিডেন্ট রাইসির সঙ্গে যারা ছিলেন তারা জরুরি কল করতে সক্ষম হয়েছিলেন।

তাদের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, যেহেতু তারা কল করতে পেরেছেন, আশা করা যায় যে হেলিকপ্টারের যাত্রীদের কেউ মারা যাননি।

ইরানের প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টার বিধ্বস্ত

প্রকাশের সময় : ০৯:৩৫:৫৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪

ইরানের প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসিকে বহনকারী’বিধ্বস্ত’ হেলিকপ্টারের সঙ্গে রেডিও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়েছিল বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহমাদ ওয়াহিদি।

আজ রোববার আলজাজিরার প্রতিবেদনে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, রেডিও যোগাযোগের সময় বিস্তারিত তথ্য পাওয়ার আগেই সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।

ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদ এজেন্সি ইরনার প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রেসিডেন্ট রাইসি আজারবাইজান-ইরান সীমান্তে একটি বাঁধ খোলার অনুষ্ঠান থেকে ফেরার সময় ভারজাকান অঞ্চলে তাকে বহনকারী হেলিকপ্টার অবতরণের সময় বিধ্বস্ত হয়।

এ ঘটনার পর থেকে এখন পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট রাইসি এবং ওই হেলিকপ্টারে থাকা অন্য সদস্যদের খোঁজ পাওয়া যায়নি।

হেলিকপ্টারে দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমিরাবদুল্লাহিয়ান, পূর্ব আজারবাইজান প্রদেশের গভর্নর মালেক রহমাতিসহ আরও বেশ কয়েকজন সিনিয়র কর্মকর্তা ছিলেন।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহমাদ ওয়াহিদি জানিয়েছেন, হেলিকপ্টারটি অনুসন্ধানে উদ্ধারকারী দল ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে, কিন্তু খারাপ আবহাওয়ার কারণে তাদের এই অভিযান বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম জানিয়েছে, প্রেসিডেন্টের এই বহরে মোট তিনটি হেলিকপ্টার ছিল। এর মধ্যে দুটি নিরাপদে ফিরে এলেও খারাপ আবহাওয়ার কবলে পরে প্রেসিডেন্টকে বহনকারী হেলিকপ্টারটিকেই ‘হার্ড ল্যান্ডিং’ করতে হয়।

ইরানের আধা-সরকারি গণমাধ্যম তাসনিম নিউজ জানিয়েছে, হেলিকপ্টারটির ভেতরে প্রেসিডেন্ট রাইসির সঙ্গে যারা ছিলেন তারা জরুরি কল করতে সক্ষম হয়েছিলেন।

তাদের প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, যেহেতু তারা কল করতে পেরেছেন, আশা করা যায় যে হেলিকপ্টারের যাত্রীদের কেউ মারা যাননি।