মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

রাষ্ট্রপতির কাছে তিন দেশের রাষ্ট্রদূতের পরিচয়পত্র পেশ

ছবি-সংগৃহীত

রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিনের কাছে পৃথকভাবে নিজেদের পরিচয়পত্র পেশ করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত তিন দেশের নতুন রাষ্ট্রদূত।

তিন অনাবাসিক রাষ্ট্রদূতরা হলেন- ফিনল্যান্ডের কিমো লাহদেভির্তা, গুয়াতেমালার ওমর কাস্তানেদা সোলারেস ও আয়ারল্যান্ডের কেভিন কেলি।

মঙ্গলবার (২৮ মে) বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি তাদের পরিচয়পত্র গ্রহণ করেন। বৈঠক শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। খবর বাসসের।

রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের সব দেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বৃদ্ধিতে আগ্রহী।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ কূটনৈতিক সম্পর্কের পাশাপাশি বাণিজ্য ও বিনিয়োগ এবং দুই দেশের জনগণের সঙ্গে সম্পর্ক বৃদ্ধিকে অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে।’ বাংলাদেশে বিরাজমান বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূতদের দ্বিপক্ষীয় সম্ভাবনাময় খাতসমূহে বিনিয়োগ বৃদ্ধির আহ্বান জানান রাষ্ট্রপ্রধান। তিনি পারস্পরিক বাণিজ্য-বিনিয়োগ প্রতিনিধিদলের সফর বিনিময়ের কথাও উল্লেখ করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, মায়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত নাগরিকদের মানবিক বিবেচনায় আশ্রয় দিলেও বর্তমানে এটি একটি জটিল আর্থ-সামাজিক সমস্যায় পরিণত হয়েছে।’ তিনি রোহিঙ্গাদের সম্মানজনকভাবে নিজ দেশে প্রত্যাবর্তনে বন্ধুরাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

বৈঠকে দূতরা নিজ নিজ দেশের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক বৃদ্ধিতে তাদের আগ্রহের কথা জানান। তারা সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড় ‘রিমাল’র ক্ষয়ক্ষতির জন্য দুঃখ ও সহানুভূতি প্রকাশ করেন।

রিমালসহ বাংলাদেশের নানা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় সরকার ও জনগণের সাফল্যের প্রশংসা করেন রাষ্ট্রদূতরা। তারা নিজ নিজ দায়িত্ব পালনে রাষ্ট্রপতির সহযোগিতা কামনা করেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সচিবরা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এর আগে বঙ্গভবনে পৌঁছালে রাষ্ট্রপতির গার্ড রেজিমেন্টের (পিজিআর) একটি অশ্বারোহী দল রাষ্ট্রদূতদের ‘গার্ড অব অনার’ দেন।

রাষ্ট্রপতির কাছে তিন দেশের রাষ্ট্রদূতের পরিচয়পত্র পেশ

প্রকাশের সময় : ০৮:৪২:১১ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

রাষ্ট্রপতি মো. সাহাবুদ্দিনের কাছে পৃথকভাবে নিজেদের পরিচয়পত্র পেশ করেছেন বাংলাদেশে নিযুক্ত তিন দেশের নতুন রাষ্ট্রদূত।

তিন অনাবাসিক রাষ্ট্রদূতরা হলেন- ফিনল্যান্ডের কিমো লাহদেভির্তা, গুয়াতেমালার ওমর কাস্তানেদা সোলারেস ও আয়ারল্যান্ডের কেভিন কেলি।

মঙ্গলবার (২৮ মে) বঙ্গভবনে রাষ্ট্রপতি তাদের পরিচয়পত্র গ্রহণ করেন। বৈঠক শেষে রাষ্ট্রপতির প্রেস সচিব জয়নাল আবেদীন গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন। খবর বাসসের।

রাষ্ট্রপতি বলেন, বাংলাদেশ বিশ্বের সব দেশের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় ও বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক বৃদ্ধিতে আগ্রহী।

তিনি বলেন, বাংলাদেশ কূটনৈতিক সম্পর্কের পাশাপাশি বাণিজ্য ও বিনিয়োগ এবং দুই দেশের জনগণের সঙ্গে সম্পর্ক বৃদ্ধিকে অগ্রাধিকার দিয়ে থাকে।’ বাংলাদেশে বিরাজমান বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ ও অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে রাষ্ট্রদূতদের দ্বিপক্ষীয় সম্ভাবনাময় খাতসমূহে বিনিয়োগ বৃদ্ধির আহ্বান জানান রাষ্ট্রপ্রধান। তিনি পারস্পরিক বাণিজ্য-বিনিয়োগ প্রতিনিধিদলের সফর বিনিময়ের কথাও উল্লেখ করেন।

রাষ্ট্রপতি বলেন, মায়ানমার থেকে বাস্তুচ্যুত নাগরিকদের মানবিক বিবেচনায় আশ্রয় দিলেও বর্তমানে এটি একটি জটিল আর্থ-সামাজিক সমস্যায় পরিণত হয়েছে।’ তিনি রোহিঙ্গাদের সম্মানজনকভাবে নিজ দেশে প্রত্যাবর্তনে বন্ধুরাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন।

বৈঠকে দূতরা নিজ নিজ দেশের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক বৃদ্ধিতে তাদের আগ্রহের কথা জানান। তারা সাম্প্রতিক ঘূর্ণিঝড় ‘রিমাল’র ক্ষয়ক্ষতির জন্য দুঃখ ও সহানুভূতি প্রকাশ করেন।

রিমালসহ বাংলাদেশের নানা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনায় সরকার ও জনগণের সাফল্যের প্রশংসা করেন রাষ্ট্রদূতরা। তারা নিজ নিজ দায়িত্ব পালনে রাষ্ট্রপতির সহযোগিতা কামনা করেন।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, রাষ্ট্রপতির কার্যালয়ের সংশ্লিষ্ট সচিবরা ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। এর আগে বঙ্গভবনে পৌঁছালে রাষ্ট্রপতির গার্ড রেজিমেন্টের (পিজিআর) একটি অশ্বারোহী দল রাষ্ট্রদূতদের ‘গার্ড অব অনার’ দেন।