মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

টিকটকার তৈরি করতে অর্থ বরাদ্দের ঘোষণা দিলেন হুইপ কমল

কক্সবাজারের টিকটকার তৈরি করতে অর্থ বরাদ্দের ঘোষণা দিয়েছেন জাতীয় সংসদের হুইপ ও কক্সবাজার-৩ আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল (এমপি)।

গত শুক্রবার (৩১ মে) বিকেলে কক্সবাজারের একটি কমিউনিটি সেন্টারে কক্সবাজার টিকটক পরিবার ব্যানারে টিকটকারদের মিলনমেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই কথা বলেন তিনি।

গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টিকটকারদের নির্বাচনী প্রচারণায় সাহায্যের কথা অকপটে স্বীকার করে এবং তাদের এই ঋণ তিনি কখনো শোধ করতে পারবেন না বলে জানান তার বক্তব্যে।

হুইপ কমল টিকটক প্ল্যাটফর্মটি কীভাবে ইতিবাচক কাজে লাগানো যায়, সে বিষয়েও তার মতামত দিয়েছেন। এসময় তিনি টিকটকারদের জন্য একটি উপদেষ্টামণ্ডলী গঠনের প্রস্তাব দেন, যেখানে তিনি নিজে এবং ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতানকে সদস্য হিসেবে রাখার কথা বলেন।

বক্তব্যকালে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজারসহ বিভিন্ন এলাকার শতাধিক টিকটকার।

টিকটকারদের মিলন মেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যের ভিডিওটি জেলা জুড়ে টক অব দ্যা ডে’তে পরিণত হয়েছে।

শনিবার (১ জুন) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে এম.কে মাহমুদ সিকদার নামের এক ব্যক্তি কমেন্টে লেখেন, টিকটকারদের সাপোর্টার একটি জেলার এমপি হতে পারে না। এমডি রায়হান নামে আর এক ব্যক্তি মন্তব্য করেন টিকটকারদের মাধ্যমে ভালো কিছু প্রচার হোক। আয়ুব মোল্লা নামে একজন লেখেন দক্ষ পাগল তৈরি করতে বরাদ্দ দিলে ভালো হয়।

এনিয়ে চলছে পুরো জেলা তীব্র আলোচনা ও সমালোচনা।

টিকটকার তৈরি করতে অর্থ বরাদ্দের ঘোষণা দিলেন হুইপ কমল

প্রকাশের সময় : ০৯:২৯:১৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২ জুন ২০২৪

কক্সবাজারের টিকটকার তৈরি করতে অর্থ বরাদ্দের ঘোষণা দিয়েছেন জাতীয় সংসদের হুইপ ও কক্সবাজার-৩ আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল (এমপি)।

গত শুক্রবার (৩১ মে) বিকেলে কক্সবাজারের একটি কমিউনিটি সেন্টারে কক্সবাজার টিকটক পরিবার ব্যানারে টিকটকারদের মিলনমেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই কথা বলেন তিনি।

গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে টিকটকারদের নির্বাচনী প্রচারণায় সাহায্যের কথা অকপটে স্বীকার করে এবং তাদের এই ঋণ তিনি কখনো শোধ করতে পারবেন না বলে জানান তার বক্তব্যে।

হুইপ কমল টিকটক প্ল্যাটফর্মটি কীভাবে ইতিবাচক কাজে লাগানো যায়, সে বিষয়েও তার মতামত দিয়েছেন। এসময় তিনি টিকটকারদের জন্য একটি উপদেষ্টামণ্ডলী গঠনের প্রস্তাব দেন, যেখানে তিনি নিজে এবং ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতানকে সদস্য হিসেবে রাখার কথা বলেন।

বক্তব্যকালে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজারসহ বিভিন্ন এলাকার শতাধিক টিকটকার।

টিকটকারদের মিলন মেলায় প্রধান অতিথির বক্তব্যের ভিডিওটি জেলা জুড়ে টক অব দ্যা ডে’তে পরিণত হয়েছে।

শনিবার (১ জুন) সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ভিডিওতে এম.কে মাহমুদ সিকদার নামের এক ব্যক্তি কমেন্টে লেখেন, টিকটকারদের সাপোর্টার একটি জেলার এমপি হতে পারে না। এমডি রায়হান নামে আর এক ব্যক্তি মন্তব্য করেন টিকটকারদের মাধ্যমে ভালো কিছু প্রচার হোক। আয়ুব মোল্লা নামে একজন লেখেন দক্ষ পাগল তৈরি করতে বরাদ্দ দিলে ভালো হয়।

এনিয়ে চলছে পুরো জেলা তীব্র আলোচনা ও সমালোচনা।