মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দেব টানা তৃতীয়বারের মতো এমপি হলেন

টলিউডে একের পর এক সুপারহিট ছবি উপহার দিয়েছেন দেব। রাজনীতিতে নেমে প্রথমবারেই লোকসভার সংসদ সদস্য (এমপি) হয়েছেন। সেই জয়রথ থামল না, টানা তৃতীয়বারের মতো এমপি হলেন তিনি। পশ্চিমবঙ্গের পশ্চিম মেদেনীপুরের ঘাটাল কেন্দ্র থেকে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী দেব হারিয়েছেন টলিউডের আরেক তারকা হিরণ চট্টোপাধ্যায়কে। ১ লাখের বেশি ভোটের ব্যবধানে জিতেছেন দেব।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়, ২০১৪ এবং ২০১৯, পর পর দুবার ঘাটাল থেকে জিতেছেন দেব। গতবার বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে হারান তিনি। এবার অভিনেতা, বিধায়ক হিরণ চট্টোপাধ্যায়কে প্রার্থী করেছিল বিজেপি। তবে দেবের কাছে হেরে গেলেন হিরণ।

পর্দার ‘রংবাজ’ দেব এখন পশ্চিমবঙ্গ রাজনীতিতে বিনয়ের প্রতীক। কঠিন, তির্যক আক্রমণের উত্তরও তিনি দেন মুচকি হেসে। অন্যদিকে, ‘ভালোবাসা ভালোবাসা’ সিনেমার নায়ক হিরণ রাজনীতির ময়দানে বেশ ‘আগ্রাসী’। দুর্নীতি থেকে সন্ত্রাস, প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে তার স্বর সর্বদা চড়া ছিল।

লোকসভা ভোটের প্রচারে হিরণের স্বর এতটাই চড়া ছিল যে, শেষ পর্যায়ে এসে দেবকেও বলতে হয়েছে, ‘অনেক হয়েছে। সৌজন্যকে লোকে দুর্বলতা ভাবছে!’

এই তারকার লড়াইয়ে শেষমেশ দেবের ওপরই আস্থা রাখলেন ঘাটালের মানুষ। ঘাটালে ৫২ শতাংশেরও বেশি ভোট পেয়েছেন দেব। হিরণ পেয়েছেন ৪০ শতাংশের মতো।

দেব টানা তৃতীয়বারের মতো এমপি হলেন

প্রকাশের সময় : ১১:৫১:০৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ জুন ২০২৪

টলিউডে একের পর এক সুপারহিট ছবি উপহার দিয়েছেন দেব। রাজনীতিতে নেমে প্রথমবারেই লোকসভার সংসদ সদস্য (এমপি) হয়েছেন। সেই জয়রথ থামল না, টানা তৃতীয়বারের মতো এমপি হলেন তিনি। পশ্চিমবঙ্গের পশ্চিম মেদেনীপুরের ঘাটাল কেন্দ্র থেকে তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী দেব হারিয়েছেন টলিউডের আরেক তারকা হিরণ চট্টোপাধ্যায়কে। ১ লাখের বেশি ভোটের ব্যবধানে জিতেছেন দেব।

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজারের খবরে বলা হয়, ২০১৪ এবং ২০১৯, পর পর দুবার ঘাটাল থেকে জিতেছেন দেব। গতবার বিজেপি প্রার্থী ভারতী ঘোষকে হারান তিনি। এবার অভিনেতা, বিধায়ক হিরণ চট্টোপাধ্যায়কে প্রার্থী করেছিল বিজেপি। তবে দেবের কাছে হেরে গেলেন হিরণ।

পর্দার ‘রংবাজ’ দেব এখন পশ্চিমবঙ্গ রাজনীতিতে বিনয়ের প্রতীক। কঠিন, তির্যক আক্রমণের উত্তরও তিনি দেন মুচকি হেসে। অন্যদিকে, ‘ভালোবাসা ভালোবাসা’ সিনেমার নায়ক হিরণ রাজনীতির ময়দানে বেশ ‘আগ্রাসী’। দুর্নীতি থেকে সন্ত্রাস, প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে তার স্বর সর্বদা চড়া ছিল।

লোকসভা ভোটের প্রচারে হিরণের স্বর এতটাই চড়া ছিল যে, শেষ পর্যায়ে এসে দেবকেও বলতে হয়েছে, ‘অনেক হয়েছে। সৌজন্যকে লোকে দুর্বলতা ভাবছে!’

এই তারকার লড়াইয়ে শেষমেশ দেবের ওপরই আস্থা রাখলেন ঘাটালের মানুষ। ঘাটালে ৫২ শতাংশেরও বেশি ভোট পেয়েছেন দেব। হিরণ পেয়েছেন ৪০ শতাংশের মতো।