বুধবার, ১৯ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

সকালে ঘুম ভাঙতেই চায় না? জেনে নিন সহজ কিছু কৌশল

ছবি-সংগৃহীত

রাতে যখনই ঘুমাতে যান না কেন, সকালে ঘুম ভেঙে আর উঠতেই মন চায় না এমন অনেকে আছেন। মনে হয়, আরেকটু ঘুমিয়ে থাকি! কিন্তু আমাদের মনের চাওয়া অনুসারে তো সবকিছু ঘটে না। যাপিত জীবনের নানা ব্যস্ততা আমাদের ঘিরে থাকে। তাই না চাইলেও উঠতেই হয়। আর এই ঘুম ভেঙে ওঠাটাই যেন হয়ে ওঠে যুদ্ধজয়ের সমান। কারণ তখন নানাভাবে চেষ্টার পরও অনেক কষ্ট করে উঠতে হয়। আপনিও যদি এমন সমস্যায় ভুগে থাকেন তাহলে এখনই সতর্ক হতে হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক, কী করবেন-

শরীরচর্চা

ভাবছেন, রাতের বেলা আবার কীসের শরীরচর্চা? এটি মূলত আপনার সকালে ঘুম থেকে ওঠার ক্ষেত্রে সহায়ক হিসেবে কাজ করবে। তাই রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আধা ঘণ্টা আগে মিনিট পনেরো শরীরচর্চা করুন। এতে ঘুম আসবে সহজে। আর ঘুম গভীর হলে সকালে ওঠার ক্ষেত্রে সমস্যা হবে না। তাই এদিকে মনোযোগ দিন। রাতের খাবার খাওয়ার পর কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করবেন। এতেও ঘুম ভালো হবে। সকালে উঠতে পারবেন সহজেই।

সময় নির্দিষ্ট করুন

প্রতিদিন একই সময়ে বিছানায় যাওয়া এবং ঘুম থেকে ওঠার চেষ্টা করুন। রাতে একেক দিন একেক সময় ঘুমাতে যাবেন না। ঘুমানোর জন্য নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করুন। এতে আপনার শরীর সেই ঘড়ি অনুযায়ী চলবে এবং ঘুমের সময় হলে ঘুমের জন্য আপনাকে সংকেত পাঠাতে থাকবে। রুটিনবদ্ধ থাকলে ঘুমানো এবং ঘুম থেকে ওঠার ক্ষেত্রে আর সমস্যা হবে না।

পর্যাপ্ত ঘুম

একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির জন্য প্রতিদিন সাত-আট ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন হয়। তাই হিসাব করে দেখুন এতটা সময় ঘুমানোর জন্য আপনাকে কখন বিছানায় যেতে হবে। সকালে ঘুম থেকে যখন উঠবেন তার থেকে অন্তত আট ঘণ্টা আগে ঘুমাতে যান। এতে ঘুম পর্যাপ্ত হবে এবং আপনি সঠিক সময়ে ঘুম থেকে উঠতেও পারবেন। তখন আপনার প্রতিদিন সমস্যায় পড়তে হবে না।

রাতে চা কিংবা কফি নয়

অনেকেই আছেন যারা রাতের বেলায়ও এককাপ চা কিংবা কফি পান করে থাকেন। এমনটা করা যাবে না। সন্ধ্যার পর আর কোনো চা কিংবা কফি পান করবেন না। এমনকী কোনো চকোলেটও খাবেন না। কারণ তাতে ঘুমের সমস্যা দেখা দিতে পারে। যে কারণে সকালে ঘুম থেকে উঠতে অসুবিধা হয়। তাই খাবারের দিকে খেয়াল রাখুন। সেইসঙ্গে রাতে ভারী বা অতিরিক্ত মসলাদার খাবার খাওয়া থেকেও বিরত থাকুন।

সকালে ঘুম ভাঙতেই চায় না? জেনে নিন সহজ কিছু কৌশল

প্রকাশের সময় : ১২:১৯:১৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ৫ জুন ২০২৪

রাতে যখনই ঘুমাতে যান না কেন, সকালে ঘুম ভেঙে আর উঠতেই মন চায় না এমন অনেকে আছেন। মনে হয়, আরেকটু ঘুমিয়ে থাকি! কিন্তু আমাদের মনের চাওয়া অনুসারে তো সবকিছু ঘটে না। যাপিত জীবনের নানা ব্যস্ততা আমাদের ঘিরে থাকে। তাই না চাইলেও উঠতেই হয়। আর এই ঘুম ভেঙে ওঠাটাই যেন হয়ে ওঠে যুদ্ধজয়ের সমান। কারণ তখন নানাভাবে চেষ্টার পরও অনেক কষ্ট করে উঠতে হয়। আপনিও যদি এমন সমস্যায় ভুগে থাকেন তাহলে এখনই সতর্ক হতে হবে। চলুন জেনে নেওয়া যাক, কী করবেন-

শরীরচর্চা

ভাবছেন, রাতের বেলা আবার কীসের শরীরচর্চা? এটি মূলত আপনার সকালে ঘুম থেকে ওঠার ক্ষেত্রে সহায়ক হিসেবে কাজ করবে। তাই রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আধা ঘণ্টা আগে মিনিট পনেরো শরীরচর্চা করুন। এতে ঘুম আসবে সহজে। আর ঘুম গভীর হলে সকালে ওঠার ক্ষেত্রে সমস্যা হবে না। তাই এদিকে মনোযোগ দিন। রাতের খাবার খাওয়ার পর কিছুক্ষণ হাঁটাহাঁটি করবেন। এতেও ঘুম ভালো হবে। সকালে উঠতে পারবেন সহজেই।

সময় নির্দিষ্ট করুন

প্রতিদিন একই সময়ে বিছানায় যাওয়া এবং ঘুম থেকে ওঠার চেষ্টা করুন। রাতে একেক দিন একেক সময় ঘুমাতে যাবেন না। ঘুমানোর জন্য নির্দিষ্ট সময় নির্ধারণ করুন। এতে আপনার শরীর সেই ঘড়ি অনুযায়ী চলবে এবং ঘুমের সময় হলে ঘুমের জন্য আপনাকে সংকেত পাঠাতে থাকবে। রুটিনবদ্ধ থাকলে ঘুমানো এবং ঘুম থেকে ওঠার ক্ষেত্রে আর সমস্যা হবে না।

পর্যাপ্ত ঘুম

একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির জন্য প্রতিদিন সাত-আট ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন হয়। তাই হিসাব করে দেখুন এতটা সময় ঘুমানোর জন্য আপনাকে কখন বিছানায় যেতে হবে। সকালে ঘুম থেকে যখন উঠবেন তার থেকে অন্তত আট ঘণ্টা আগে ঘুমাতে যান। এতে ঘুম পর্যাপ্ত হবে এবং আপনি সঠিক সময়ে ঘুম থেকে উঠতেও পারবেন। তখন আপনার প্রতিদিন সমস্যায় পড়তে হবে না।

রাতে চা কিংবা কফি নয়

অনেকেই আছেন যারা রাতের বেলায়ও এককাপ চা কিংবা কফি পান করে থাকেন। এমনটা করা যাবে না। সন্ধ্যার পর আর কোনো চা কিংবা কফি পান করবেন না। এমনকী কোনো চকোলেটও খাবেন না। কারণ তাতে ঘুমের সমস্যা দেখা দিতে পারে। যে কারণে সকালে ঘুম থেকে উঠতে অসুবিধা হয়। তাই খাবারের দিকে খেয়াল রাখুন। সেইসঙ্গে রাতে ভারী বা অতিরিক্ত মসলাদার খাবার খাওয়া থেকেও বিরত থাকুন।