মঙ্গলবার, ১৮ জুন ২০২৪, ৪ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে গাজায় গণহত্যা মামলার বাদি হতে চায় স্পেন

আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে (আইসিজে) ইসরায়েলের বিরুদ্ধে গাজায় গণহত্যার অভিযোগে দায়ের করা দক্ষিণ আফ্রিকার মামলায় বাদী হতে চায় ইউরোপীয় দেশ স্পেন। বৃহস্পতিবার এই ঘোষণা দিয়েছেন স্প্যানিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসে ম্যানুয়েল আলবারেজ। 

জানুয়ারিতে গাজায় গণহত্যার জন্য ইসরায়েলের বিরুদ্ধে আইসিজেতে মামলা দায়ের করে দক্ষিণ আফ্রিকা। এই মামলার শুনানিতে ইতিমধ্যে আদালত জরুরি পদক্ষেপ হিসেবে দুটি আদেশ দিয়েছে। যদিও ইসরায়েল তা অগ্রাহ্য করে যাচ্ছে। এর আগে কলম্বিয়া, মিশর ও তুরস্ক আইসিজেতে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে এই গণহত্যার মামলায় বাদী হওয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছিল।

স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, গাজায় সামরিক অভিযান অব্যাহত থাকার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে অভিযোগকারী হিসেবে যুক্ত হতে চাই। মধ্যপ্রাচ্যে সংঘাতের বিস্তৃতিও আমরা উদ্বেগের সঙ্গে পর্যবেক্ষণ করছি।

তিনি বলেন, স্পেন শুধু গাজায় ও মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ফিরিয়ে আনার জন্য এই সিদ্ধান্ত নেয়নি। আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকার অবস্থান থেকেও এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য হলো যুদ্ধের অবসান এবং দ্বিরাষ্ট্র সমাধানের পথে এগিয়ে যাওয়া। এই ঘোষণার এক সপ্তাহ পূর্বে আয়ারল্যান্ড ও নরওয়ের সঙ্গে স্পেন ফিলিস্তিনকে আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিল। এই পদক্ষেপে ইসরায়েল ক্ষুব্ধ হয়েছিল। দেশটি দাবি করেছিল, এর মাধ্যমে হামাসের সন্ত্রাসবাদকে পুরস্কৃত করা হয়েছে। এ অভিযোগ তুলে দেশগুলো থেকে নিজের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করেছিল ইসরায়েল।

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে গাজায় গণহত্যা মামলার বাদি হতে চায় স্পেন

প্রকাশের সময় : ১২:২১:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০২৪

আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে (আইসিজে) ইসরায়েলের বিরুদ্ধে গাজায় গণহত্যার অভিযোগে দায়ের করা দক্ষিণ আফ্রিকার মামলায় বাদী হতে চায় ইউরোপীয় দেশ স্পেন। বৃহস্পতিবার এই ঘোষণা দিয়েছেন স্প্যানিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসে ম্যানুয়েল আলবারেজ। 

জানুয়ারিতে গাজায় গণহত্যার জন্য ইসরায়েলের বিরুদ্ধে আইসিজেতে মামলা দায়ের করে দক্ষিণ আফ্রিকা। এই মামলার শুনানিতে ইতিমধ্যে আদালত জরুরি পদক্ষেপ হিসেবে দুটি আদেশ দিয়েছে। যদিও ইসরায়েল তা অগ্রাহ্য করে যাচ্ছে। এর আগে কলম্বিয়া, মিশর ও তুরস্ক আইসিজেতে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে এই গণহত্যার মামলায় বাদী হওয়ার আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দিয়েছিল।

স্পেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন, গাজায় সামরিক অভিযান অব্যাহত থাকার পরিপ্রেক্ষিতে আমরা দক্ষিণ আফ্রিকার সঙ্গে অভিযোগকারী হিসেবে যুক্ত হতে চাই। মধ্যপ্রাচ্যে সংঘাতের বিস্তৃতিও আমরা উদ্বেগের সঙ্গে পর্যবেক্ষণ করছি।

তিনি বলেন, স্পেন শুধু গাজায় ও মধ্যপ্রাচ্যে শান্তি ফিরিয়ে আনার জন্য এই সিদ্ধান্ত নেয়নি। আন্তর্জাতিক আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকার অবস্থান থেকেও এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য হলো যুদ্ধের অবসান এবং দ্বিরাষ্ট্র সমাধানের পথে এগিয়ে যাওয়া। এই ঘোষণার এক সপ্তাহ পূর্বে আয়ারল্যান্ড ও নরওয়ের সঙ্গে স্পেন ফিলিস্তিনকে আনুষ্ঠানিকভাবে রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছিল। এই পদক্ষেপে ইসরায়েল ক্ষুব্ধ হয়েছিল। দেশটি দাবি করেছিল, এর মাধ্যমে হামাসের সন্ত্রাসবাদকে পুরস্কৃত করা হয়েছে। এ অভিযোগ তুলে দেশগুলো থেকে নিজের রাষ্ট্রদূত প্রত্যাহার করেছিল ইসরায়েল।